kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ কার্তিক ১৪২৭। ২৭ অক্টোবর ২০২০। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

[ প্রা ণি জ গ ৎ ]

উল্টোলেজি বানর

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উল্টোলেজি বানর

নামেই প্রমাণ, লেজটি যেভাবে থাকার কথা সেভাবে নেই বানরটির। এর আরো অনেক নাম আছে। যেমন কুলু বান্দর, উলু বান্দর, সিংহ বানর বা শূকরলেজি বানর। এটি ম্যাকাক গণের একটি বানর। এর সোনালি রঙের লেজটি (মাত্রই ১৮ থেকে ২৫ সেন্টিমিটার) মেরুদণ্ড বরাবর নিচের দিকে একটু উঁচু হয়ে ঝুলে থাকে। উল্টোলেজি বানর কিন্তু সচরাচর দেখা যায় না। এটি সংকটাপন্ন। এদের গায়ের রং হালকা সোনালি থেকে বাদামি। তবে ওপরের অংশ জলপাই ধূসর আর নিচের দিক ধূসর সাদা। মাথার মাঝখানটা চ্যাপ্টা ও কালচে রঙের। বয়স্ক বানরের মাথায় কখনো কখনো কেশর দেখা যায়। আমাদের দেশের সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের মিশ্র চিরসবুজ বনে যেমন ফাঁসিয়াখালী বন্য প্রাণী অভয়ারণ্য, লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান এবং রেমা-কালেঙ্গা বন্য প্রাণী অভয়ারণ্যে এদের পাওয়া যায়। দলবদ্ধভাবে এরা বসবাস করে। পুরুষ, স্ত্রী ও বাচ্চা মিলে ২০-২৫টি বানর এক দলে বাস করে। পুরুষ দলের নেতৃত্ব দেয়। স্বভাবে পুরুষ বানর বেশ রাগী। কাউকে ভয় দেখানোর জন্য দাঁত-মুখ খিঁচিয়ে ভেংচি কাটে। এদের খাদ্যতালিকায় আছে ফল-মূল, কচি পাতা, কুঁড়ি, কীটপতঙ্গ, কাঁকড়া, পাখির বাচ্চা, পাখির ডিম ইত্যাদি। 

মারজিয়া লিপি

মন্তব্য