kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

তো মা দে র উ ত্ত র

তোমাদের প্রিয় গল্পের বই কোনটি? কেন?

২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আমার প্রিয় বই ‘পথের পাঁচালী’। অপু ও দুর্গার শৈশব, গ্রামীণজীবন আমাকে আকৃষ্ট করে। সর্বজয়া যেন গ্রামবাংলার সব মায়ের প্রতিনিধি। এই বইয়ে এমন এক গ্রামীণ পরিবেশের কথা লেখক স্বমহিমায় উপস্থাপন করেছেন, যা আমার চিরকালের আকাঙ্ক্ষা।

জারীন মাহজাবীন

নবম শ্রেণি, সরকারি পি এন বালিকা উচ্চ

বিদ্যালয়, রাজশাহী। 

 

 

প্রায় প্রতি সপ্তাহে আমার প্রিয় বই বদল হতো। তবে ‘হ্যারি পটার’ সিরিজ পড়ার পর সেটা আমার প্রিয় হয়ে গেল স্থায়ীভাবে। এখানে হ্যারি পটার নামের একটা ছোট ছেলের তার আংকেল-আন্টির কাছে বড় হওয়া, পুরনো কাপড় পরে সারা দিন থাকা আর একটা ছোট চিলেকোঠার ঘরে থাকার কথা বলা হয়েছে। তারপর হঠাৎ করে জাদু স্কুল থেকে চিঠি আসা। সেখানে যাওয়ার অভিনব উপায় সবাইকে চমকে দেয়। তারপর হ্যারি আর ওর প্রিয় বন্ধু রন এবং হারমিওনের সঙ্গে মজাদার ও ভয়ংকর সব ঘটনা—সত্যি অসাধারণ।

অঙ্গনা রায় ভূমি

ষষ্ঠ শ্রেণি, বিদ্যাময়ী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ময়মনসিংহ।

 

 

টাইম মেশিন কিভাবে বানাতে হবে বা সেটা

বানানো সম্ভব কি না তা নিয়ে বিজ্ঞানীদের চিন্তার শেষ নেই। কিন্তু কল্পনায় সবই সম্ভব। জনপ্রিয় লেখক এইচ জি ওয়েলস তাই কল্পনা করেই লিখে ফেললেন ‘টাইম মেশিন’ নামে একটি অসাধারণ কল্পকাহিনি। টাইম মেশিন আবিষ্কারের পর সময়ের স্রোতে ভ্রমণের অনুভূতি কেমন হবে তাই বর্ণনা করে এই কাহিনি।

 

হাসানুল বান্না

অষ্টম শ্রেণি, অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

 

 

আমার প্রিয় বইয়ের নাম ‘দশ দিগন্তে বিশ ভূত’।  এটি মাহবুব রেজার বই। আমার এই বইটি ভালো লাগে, কারণ আমি ভূতের গল্প পড়তে পছন্দ করি ।

তাশফিকা আজরিন

সপ্তম শ্রেণি, সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়  দিনাজপুর।

 

 

আমি বই পড়তে বেশ পছন্দ করি। আমার প্রিয় বইটি হলো রকিব হাসানের লেখা ‘কালো বিড়াল’। এটি একটি গোয়েন্দা গল্প, যেখানে একটি বিড়ালের রহস্যজনক কাণ্ডের কথা ফুটে উঠেছে। বইটি পড়ে বেশ মজা পেয়েছি। আমার মনে হয়েছে, আমিও কোনো রহস্য ভেদে জড়িয়ে পড়ি।

ফাঈকা নাঈমা হোসেন

পঞ্চম শ্রেণি, মির্জা আহমেদ ইস্পাহানী উচ্চ বিদ্যালয়, পাহাড়তলী, চট্টগ্রাম।

 

 

আমার প্রিয় বই মুহম্মদ জাফর ইকবালের   ‘রাতুলের রাত রাতুলের দিন’। বইটিতে রাতুলের সুন্দরবনের বিভিন্ন অ্যাডভেঞ্চারের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। সেই সঙ্গে জলদস্যুদের আক্রমণ এবং তাদের প্রতিহত করার দারুণ অভিজ্ঞতা। সব মিলিয়ে বইটির দুঃসাহসিক সব অভিযান আমাকে মুগ্ধ করেছে।   

ফয়সাল মাহমুদ

নবম শ্রেণি, বায়তুল হিকমাহ মাদরাসা, চট্টগ্রাম। 

 

এবারের প্রশ্ন

করোনাকালে নতুন কী কী শিখলে?

(উত্তর পাঠাও ২৫ সেপ্টেম্বর শুক্রবারের মধ্যে এই ঠিকানায় : টুনটুন টিনটিন, ফিচার বিভাগ, কালের কণ্ঠ, ৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা আ/এ, ঢাকা-১২২৯ অথবা ই-মেইল করতে পারো : [email protected])

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা