kalerkantho

বুধবার । ৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

ছড়া

লুকোচুরি লুকোচুরি গল্প

ব্রত রায়

১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লুকোচুরি লুকোচুরি গল্প

টুবলু আমার পুত্র, সবে বয়েস হলো আড়াই,

সব রকমের দুষ্টুমি আজ হচ্ছে যে তার দ্বারাই!

পাশের বাসার অন্তু আসে, নিচের বাসার বিনি,

ইফতি, রনি, বাবলি, কণা আসছে প্রতিদিনই।

ওরা সবাই খেলতে আসে দুপুর-বিকেল বেলায়

সবচেয়ে বেশি আনন্দ হয় লুকোচুরির খেলায়।

নতুন নতুন জায়গা খুঁজে লুকায় তাতে ওরা

এমন এমন জায়গা...ভেবে কূল পাবি না তোরা!

এই তো ছিল কই লুকাল? কেমনে হলো হাওয়া?

টুবলু দেখি বাক্সে লুকায় যায় না খুঁজে পাওয়া!

অন্তু যদি লুকায় ধরো বড় সোফার পিছে

কণা লুকায় কম্পিউটার টেবিলটার নিচে!

বসার ঘরের পর্দা আছে—বিনি লুকায় তাতে

ইফতি আবার লুকিয়ে পড়ে সোফার কুশনটাতে!

বাবলি আবার লুকায় দেখি ওয়ার্ডরোবের তাকে

কেউ লুকাতে ইউজ করে খেলনা কুমিরটাকে।

রনি আবার টাওয়েল দিয়ে শরীর ঢাকে পুরো

কার্পেটে কেউ লুকায় যদি খুঁজতে কে যায় দূরো!।

ওয়াশরুমের কমোড চিনিস? দেয় না তাকেও ছাড়

গাছের পিছে, আলমারিতেও লুকায় চমৎকার!

এই লুকোনো-খুঁজে পাওয়ায় মাথা দারুণ খোলে

খেলবি তোরা? এক্ষুনি আয় আমার বাসায় চলে!

আমার বাসা কেমনে পাবি? সোজা করেই বলি

লুকোচুরির নেই তো কিছুই! ওই তো ভূতের গলি!

মোড় থেকে ঠিক ডান দিকে যা কিংবা বামে যাবি

সোজা গেলেও একসময়ে আমার বাড়ি পাবি।

গলির ভেতর দেখবি শুধু বহুতলের সারি

ওর ভেতরেই লুকিয়ে আছে আমার ছোট বাড়ি!

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা