kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মজার বিজ্ঞান

জাদুর কাপড়

নাবীল অনুসূর্য

১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জাদুর কাপড়

একই সময়ে একই তাপে একটি বরফ খণ্ডের একেক অংশ কি একেক পরিমাণে গলানো সম্ভব? নিশ্চয়ই ‘অসম্ভব’ বলে একটা চিত্কার দিয়ে বসেছ! এই তো ভুল করলে। বিজ্ঞানের জাদুর কাছে অসম্ভব নয় মোটেই। সে জন্য অবশ্য খানিকটা কারিকুরি করতে হবে। বড় একটা বরফ খণ্ড তো লাগবেই। এর একটা পাশ আবার মসৃণ হতে হবে। কোনো পাশই যদি মসৃণ না হয়, তাহলে একটা পাশ কেটে মসৃণ করে নিতে হবে। সঙ্গে লাগবে চার টুকরা কাপড়। সেগুলোকে আয়তাকার করে সমানভাবে কাটতে হবে। চার টুকরার রং হবে চার রকম। তবে অবশ্যই একটা কালো আর একটা সাদা কাপড় রাখতে হবে। এগুলোকে বলতে পারো ‘জাদুর কাপড়’। কারণ এগুলোই জাদুমন্ত্রের মতো কাজ করবে।

বাকি কাজটুকু একেবারেই সোজা। বরফ খণ্ডের ওপর চারটা আলাদা জায়গায় কাপড় চারটা রাখতে হবে। যেন কাপড়গুলো একটা আরেকটার থেকে খানিকটা দূরে দূরে থাকে। এবার কাপড়সমেত বরফ খণ্ডটা রেখে দিতে হবে রোদে। কিছুক্ষণ পর দেখা যাবে জাদু। রোদে বরফ গলে পানি হয়ে যাবে—এটাই নিয়ম। কিন্তু এ ক্ষেত্রে দেখা যাবে, একেক কাপড়ের নিচের বরফ একেকভাবে গলছে। কালো কাপড়ের নিচে বরফ গলে গর্ত হবে সবচেয়ে বেশি। আর সাদা কাপড়ের নিচে হবে সবচেয়ে কম। এভাবে চার কাপড়ের নিচে বরফ গলে গর্ত হবে চার আকারের। সোজা কথায়, একই সময়ে একই তাপে একটি বরফ খণ্ডের একেক অংশ গলবে একেক গতিতে!

এর পেছনের বিজ্ঞানটাও সোজা। কাপড় তাপ শোষণ করে। কিন্তু কী পরিমাণে করে সেটা নির্ভর করে কাপড়ের রঙের ওপর। কারণ একেক রঙের তাপ শোষণের মাত্রা একেক রকম। কালো রং সবচেয়ে বেশি তাপ শোষণ করে আর সাদা রং সবচেয়ে কম। সোজা করে বললে, যত হালকা রং, সেটা তত কম তাপ শোষণ করে। তাই গ্রীষ্মকালে সাদা বা হালকা রঙের কাপড় পরলে গরম কম লাগে। আর শীতকালে কালো বা গাঢ় রঙের কাপড় পরলে শীত লাগে কম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা