kalerkantho

মোবাইলেই মিলবে রক্তের খোঁজ

১০ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৭ মিনিটে



মোবাইলেই মিলবে রক্তের খোঁজ

চারদিকে ডেঙ্গুর মারাত্মক প্রকোপ। জটিল ডেঙ্গু রোগীদের বাঁচাতে জরুরি ভিত্তিতে দরকার হয় রক্তের। আর সে জন্য প্রথমেই খোঁজ পড়ে ব্লাড ব্যাংকে। সেসবের খোঁজখবর এবং সেবার তথ্য পাওয়া যাবে বিভিন্ন অ্যাপ আর ফেইসবুকে। জানাচ্ছেন তুসিন আহম্মেদ

 

রক্তের সন্ধান দেবে ছারপোকা অ্যাপ

২০১৬ সালে শুরু হয় ছারপোকা ব্লাড ব্যাংক।

ফেসবুকভিত্তিক রক্তদান সেবার প্রায় তিন বছরের দীর্ঘ পথচলা শেষে এবার তারা রক্তদানপ্রক্রিয়াকে আরো সহজভাবে মানুষের হাতে পৌঁছে দিতে প্রকাশ করেছে নিজস্ব ব্লাড ব্যাংক অ্যাপ! জরুরি ভিত্তিতে রক্তের প্রয়োজনে এই অ্যাপটির মাধ্যমে খুব সহজেই রোগীর নিকটবর্তী এলাকার রক্তদাতাকে খুঁজে পাওয়া সম্ভব। সঙ্গে পাওয়া যাবে ডোনারের মোবাইল নাম্বারও।

অ্যাপটি ইনস্টল করার পর ব্যবহারকারীর নাম, ফোন নম্বর, এলাকার নাম ও ব্লাড গ্রুপ দিয়ে নিবন্ধন করতে হবে। তারপর চাইলে রক্ত দান করা যাবে। রক্তদানে ইচ্ছুক হলে অ্যাপে থাকা ‘Blood Request’ পেইজ থেকে প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় রক্তের অনুরোধগুলো দেখে রোগীকে সাহায্য করা যাবে। শুধু নিজের প্রয়োজনেও রক্তদাতা খুঁজে পেতে অ্যাপটি ব্যবহার করা যাবে।

অ্যাপটির ‘Make Request’ অপশনে ক্লিক করে চাইলে ব্যবহারকারীরা রক্ত চেয়ে সবার কাছে অনুরোধ বার্তা পাঠাতে পারেন। অথবা ‘All Donor’ অপশনে গিয়ে সব ডোনারের তালিকা দেখতে পারেন। এ ছাড়া ‘Search Donor’ অপশনে নিজের সুবিধামতো ব্লাড গ্রুপ বা এলাকার নাম লিখে সার্চ দিয়ে ডোনার খুঁজে নিতে পারেন।

অ্যাপটির সাইজ মাত্র দুই মেগাবাইট। ছারপোকার পরিচালক কাজী নিপু বলেন, ‘ছারপোকা ব্লাড ব্যাংক দেশের সব ডোনারকে এক প্ল্যাটফর্মে এনে দাঁড় করানোর ব্যবস্থা করেছে। ২০২০ সালের মধ্যে এটির ডাটা বেইসে সারা বাংলাদেশ থেকে ২০ লাখ রক্তদাতা অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্যে কাজ করা হচ্ছে।’

অ্যাপটি নির্মাণে কাজ করেছেন ডেভেলপার ফাহিম আকবর এবং সার্বিক তত্ত্বাবধানে কাজ করছেন আহমেদ অরিত্র ও আশিকুর রহমান মৃন্ময়।

ডাউনলোড লিংক : http://bit.ly/2SP07PU

 

ইনফোব্লাড

ইনফোব্লাড রক্তদাতাদের ডাটা বেইস তৈরিতে কাজ করছে। এটির রয়েছে নিজস্ব ওয়েবসাইট ও অ্যাপ। ৬৪ জেলার জন্য এতে আলাদা সার্চ সুবিধা, প্রত্যেক রক্তদাতা আলাদাভাবে লগইন করতে পারবেন। এতে রক্তদাতা কবে, কোথায় রক্ত দান করেছেন, সে তথ্য হালনাগাদ করতে পারবেন। রক্ত দেওয়ার পর নির্দিষ্ট সময়ের জন্য রক্তদাতার তথ্য লুকানো থাকবে। রক্ত দেওয়ার সময় হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে রক্তদাতার কাছে মোবাইলে ও ই-মেইলে মেসেজ চলে যাবে।

এরই মধ্যে প্রায় ২৩ হাজার ব্লাড ডোনার ও আটটি প্রতিষ্ঠান এই সাইটে নিজেদের তথ্য হালনাগাদ করেছে।

ইনফোব্লাডের পরিচালক আরিফুল হাসান অপু বলেন, ‘রক্তের অভাবে যেন কেউ আর মারা না যায়, সে লক্ষ্যে চলতি বছরের মধ্যে আমরা এক লাখ রক্তদাতাকে আমাদের ডাটা বেইসে আনতে চাই। আগামী ২০২৮ সালের মধ্যে কমপক্ষে এক কোটি রক্তদাতার তথ্য হালনাগাদ করতে চাই।’

ডাউনলোড লিংক : https://urlzs.com/zrEti

 

রক্তবন্ধু.কম

সারা দেশের স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের নিয়ে একটি প্ল্যাটফর্ম www.roktobondhu.com। এদের ফেসবুক গ্রুপসহ অ্যাপও আছে। এদের ওয়েবসাইট এবং অ্যাপে রক্তদাতাদের রক্তের গ্রুপ ও যোগাযোগ সম্পর্কিত তথ্য পাওয়া যাবে।

ওয়েবসাইটে ঢুকে বাঁ দিকে রক্তের গ্রুপ বাছাই করে বাঁ পাশের ফাঁকা ঘরে জেলার নাম ঠিক করে ‘খুঁজুন’ বাটনে ক্লিক করলেই ওই জেলার রক্তদাতাদের নাম, ঠিকানা, যোগাযোগের ফোন নম্বর চলে আসবে। পাশাপাশি রক্তদাতা সর্বশেষ কবে রক্ত দান করেছেন, সেই সময়ও দেখা যাবে। এটা দেখে যে কেউ জানতে পারবেন—এখন সেই ডোনার রক্ত দান করার মতো অবস্থায় আছেন কি না। কেউ চাইলে রক্তবন্ধু সাইটে নিজের তথ্যও যোগ করতে পারবেন। এভাবে এদের অ্যাপেও মিলবে অনুরূপ তথ্য। অ্যাপের ডাইনলোড লিংক : https://urlzs.com/26VSg

 

ব্লাড বট

ব্লাড বট ফেইসবুকের মেসেঞ্জারভিত্তিক অ্যাপ্লিকেশন। রক্তদাতা ও গ্রহীতাদের মধ্যে যোগাযোগের একটি মাধ্যম। যাঁরা রক্ত দিতে ইচ্ছুক, তাঁরা বটকে রক্তের গ্রুপ, লোকেশন দিয়ে বার্তা পাঠালেই হবে। যখন কেউ রক্ত চেয়ে বটকে বার্তা পাঠাবে, তখন বট স্বয়ংক্রিয়ভাবে রক্তদাতাকে জানিয়ে দেবে।

সহজে বলা যায়, জরুরি প্রয়োজনে রক্ত দরকার হলে আমরা যেভাবে ফেইসবুক বন্ধুদের নক করে রক্ত চাই, ঠিক একইভাবে বটের সাহায্যে রক্ত চাওয়া ও দেওয়া যাবে।

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজির কম্পিউটার বিভাগে পড়ুয়া অনিরুদ্ধ চক্রবর্তী এটি তৈরি করেছেন। তাঁর সঙ্গে ছিলেন ওমরান জামাল, নওফেল মাশনূর, সুমনা চক্রবর্তী, জেরিন তাসনিমসহ আরো কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবী।

যখন কেউ এই ঠিকানায় গিয়ে রক্ত চেয়ে বার্তা দেন, তখন ‘ব্লাড বট’ রক্তের গ্রুপ, যে নম্বরটিতে রক্তের জন্য যোগাযোগ করবেন সে নম্বরটি, যে হাসপাতালে রক্ত লাগবে সেটির অবস্থান জানাতে বলে। নম্বরটিতে একটি ভেরিফিকেশন কোড পাঠানো হয়। কোডটি বটকে জানিয়ে নম্বোর ভেরিফাই করে নেওয়ার পর বট হাসপাতালের আশপাশে দুই কিলোমিটার রেডিয়াসের কাঙ্ক্ষিত রক্তের গ্রুপের ডোনারদের মেসেঞ্জারে নোটিফিকেশন পাঠিয়ে দেয়।

ডোনারকে ‘details, can not go, alreadz donated’ বাটন পাঠায় বট। রক্ত দিতে যেতে চাইলে ‘details’ চাপলে লোকেশন, ফোন নম্বরসহ বিস্তারিত তথ্য দেখাবে। রক্ত এরই মধ্যে দিয়ে থাকলে ‘alreadz donated’ বাটন চাপলে কোন মাসে রক্ত দিয়েছেন, বট তা জানতে চায়। জেনে নিয়ে পরবর্তী চার মাস আর কোনো নোটিফিকেশন দেবে না ওই রাক্তদাতাকে।

অনিরুদ্ধ চক্রবর্তীর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ৫০ লাখ রক্তদাতার একটি ডাটা বেইস সমৃদ্ধ করা। যেন ব্লাড বটে কেউ রক্ত চাইলে দ্রুত সময়ে পেতে পারেন এবং রক্ত নিয়ে স্বজনদের দুশ্চিন্তা কমানো যায়।

 

ফেইসবুকও জানাবে রক্তের খোঁজ

সহজে রক্ত পেতে ফেইসবুকের রয়েছে নিজস্ব ফিচার। এই ফিচারটি ব্যবহার করে ফেসবুকে রক্তদাতা হিসেবে যেকোনো ব্যবহারকারী সাইনআপ করতে পারবেন। অন্যদিকে যাঁর রক্ত দরকার, তাঁর আশপাশে রক্ত দেওয়ার মতো কে আছেন, তা-ও জানতে পারবেন।

সেবাটির ব্যবহারও খুব সহজ। সেখানে আগ্রহী ডোনাররা ফেইসবুকে সাইন ইন করে তাঁদের রক্তের গ্রুপ জানিয়ে দিতে পারবেন। থাকবে তাঁর বসবাসের এলাকার লোকেশন। এরপর যখন কারো রক্ত দরকার হবে, তখন স্বয়ংক্রিয়ভাবে একটি মেসেজ চলে আসবে তাঁর কাছে। তিনি রক্ত দিতে সম্মত হলে যোগাযোগ করতে পারবেন।

ফেইসবুকে এই ফিচারটিতে যুক্ত হতে প্রথমে facebook.com/donateblood-এ গিয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে নিবন্ধন করা যাবে। সেখানে ক্লিক করলেই ব্লাড ডোনার হওয়ার আবেদনপত্রটি চলে আসবে। আর ব্লাড ডোনার হিসেবে ক্যাম্পেইনে যুক্ত থাকতে চাইলে প্রথমে https://www.facebook.com/ help/contact/712333468960840

ঠিকানায় গিয়ে নিবন্ধন করতে হবে। এ সময় ব্যবহারকারীর রক্তের গ্রুপ ও সংস্থা, ই-মেইল ঠিকানা, নিজের ফেইসবুক পেইজের লিংক ইত্যাদি তথ্য দিয়ে ফরম পূরণ করলেই কাজ শেষ। এরপর রক্তের প্রয়োজন দেখা দিলে ফেইসবুক থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নোটিফিকেশন আসবে।

তিনি যদি রক্ত দিতে চান, তাহলে মেসেজটি অ্যাকসেপ্ট করে রক্ত সন্ধানকারী ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন।

যখন কেউ রক্তের সন্ধান করবেন, তখন তিনি ফেইসবুকে বিশেষ পোস্ট তৈরি করে সবার সঙ্গে শেয়ার করতে পারবেন। ফেইসবুকের একটি নোটিফিকেশন স্বয়ংক্রিয়ভাবে কাছাকাছি থাকা রক্তদাতার কাছে পৌঁছে যাবে। পোস্টটি দেখার পর রক্তদানে অনুরোধকারীর সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারবেন। যতক্ষণ পর্যন্ত রক্তদাতা স্বেচ্ছায় তাঁর সম্পর্কিত তথ্য অনুরোধকারীর সঙ্গে শেয়ার না করছেন, ততক্ষণ পর্যন্ত অনুরোধকারী রক্তদাতা সম্পর্কে কোনো তথ্য জানতে পারবেন না। এভাবে গোপনীয়তা রক্ষা হবে।

পাশাপাশি কোনো প্রতিষ্ঠান বা সংগঠন বাংলাদেশে কোনো ‘ব্লাড ক্যাম্প’ চালালে ফেইসবুকে ‘ইভেন্ট’ বিভাগে সেই ক্যাম্প সম্পর্কে পোস্ট তৈরি করতে পারবেন এবং নোটিফিকেশনের মাধ্যমে কাছাকাছি থাকা রক্তদাতাদের জানাতে পারবেন। রক্তদাতারা ইভেন্ট সম্পর্কে জানার পর সেখানে যেতে ইচ্ছুক কি না তা-ও নির্বাচন করতে পারবেন।

 

জীবনের জন্য রক্ত

ফেইসবুকভিত্তিক আরেকটি প্ল্যাটফর্ম হলো ‘জীবনের জন্য রক্ত’ https://www.facebook.com/ jibonerjonnorokto/। কারো রক্তের প্রয়োজন হলে জীবনের জন্য রক্তের ফেইসবুক পেইজ রক্তদাতা জোগাড় করে দিয়ে থাকে।

রক্তের প্রয়োজন হলে প্রয়োজনীয় রক্তের গ্রুপ, হাসপাতালের নাম, বেড নম্বর, রোগীর সমস্যা, যোগাযোগের নম্বর এবং সময় বা তারিখ সঠিকভাবে তাদের ফেইসবুক পেইজে ইনবক্সে জানাতে হবে। অথবা পেইজের কাভার ফটোতে এবং অ্যাবাউটে দেওয়া নম্বরগুলোতে ফোন করা যাবে।

আর যাঁরা স্বেচ্ছায় রক্ত দান করতে চান, তাঁরাও পোস্টে দেওয়া নম্বরে যোগাযোগ করে দিতে পারবেন। চাইলে রক্তের গ্রুপ, লোকেশন এবং যোগাযোগের নম্বর এই পেইজের ইনবক্স অথবা ওয়ালেও জানিয়ে দিতে পারেন।

মন্তব্য