kalerkantho

কোরবানির পশুর খোঁজ ভার্চুয়াল হাটে

৩ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৭ মিনিটে



কোরবানির পশুর খোঁজ ভার্চুয়াল হাটে

অনলাইনেও শুরু হয়ে গেছে কোরবানির পশুর হাট। অনেক খামারি এখন প্রথাগতভাবে হাটে না গিয়ে অনলাইনেই নিজের গরু বিক্রি করে থাকেন। আছে ফেইসবুক গ্রুপও, এমনকি অনলাইনেও পাওয়া যায় কসাইদের। ক্রেতারাও হাটে যাওয়ার ঝক্কি-ঝামেলা থেকে দূরে থাকতে হাজির হচ্ছেন অনলাইনের হাটগুলোতে। পাশাপাশি কোরবানিসংক্রান্ত অন্যান্য কেনাকাটা করা যাবে বিভিন্ন ই-কর্মাসগুলোতে। সেসবের খোঁজখবর জানাচ্ছেন তুসিন আহম্মেদ

ডিজিটালের এই সময়ে যেকোনো কেনাকাটাই করা যায় অনলাইনে। তো কোরবানির হাটই বা বাদ যাবে কেন? আর তাইতো হাটে না গিয়েও কিনে ফেলা যাবে পছন্দের গরু-ছাগল। শুধু গরুই নয়, কোরবানির ঈদের যাবতীয় কেনাকাটাও কয়েক ক্লিকে করে নেওয়া যাবে দেশের ই-কমার্স সাইটগুলোর কল্যাণে। দিন দিন জনপ্রিয়ও হয়ে উঠছে অনলাইনে কোরবানির পশু বিকিকিনির ধারণা। এবারও কোরবানির ভার্চুয়াল হাটে বিক্রির পরিমাণ বাড়ার কথা বলছেন সংশ্লিষ্টরা। শুধু দেশই নয়, অনেক প্রবাসীও দেশে থাকা পরিবারের জন্য অনলাইনের মাধ্যমে গরু কিনছেন। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে অনলাইন পেমেন্ট সেবাও জনপ্রিয় হচ্ছে। অনেক গ্রাহক গরু কিনে অনলাইনেই করছেন মূল্য পরিশোধের কাজ।

 

বেঙ্গল মিট

দীর্ঘদিন ধরেই গরুর মাংস বিভিন্নভাবে প্রক্রিয়াজাত করে অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করে আসছে দেশীয় প্রতিষ্ঠান ‘বেঙ্গল মিট’। ঈদের আগে আগে প্রতিষ্ঠানটি অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রি করে নবহমধষসবধঃ.পড়স সাইটটির মাধ্যমে।

বেঙ্গল মিটের হেড অব মার্কেটিং এইচ ইউ এম মেহেদী সাজ্জাদ বলেন, ‘গত বছরের তুলনায় এ পর্যন্ত বিক্রি প্রায় ৪০ শতাংশ বেশি হবে, এমনটা আশা করি। আমাদের রয়েছে অনলাইনে পেমেন্টের সুবিধা। চাইলে ঘরে বসেই গরু অর্ডার করে বিল দিয়ে দেওয়া যাবে।’

বেঙ্গল মিটের ওয়েবসাইটে ৭০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে চার লাখের অধিক মূল্যের গরু বিক্রি হচ্ছে। এই সাইট থেকে ব্যবহারকারী রং, দাম ও গরুর জাত অনুযায়ী সার্চ করে পছন্দের গরু কিনতে পারবেন।

এই অনলাইন হাট থেকে গ্রাহকরা কোরবানির পশু কেনার পাশাপাশি পাবেন মাংস প্রক্রিয়াকরণ এবং তা বাসায় পৌঁছে দেওয়ার সুবিধাও। ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট মহানগরের বাসিন্দারা কোরবানির গরু বাড়িতেই ডেলিভারি পাবেন। আর মাংসের প্রক্রিয়াকরণের সেবা পাবেন শুধু ঢাকার বাসিন্দারা।

 

দারাজ

ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম দারাজ (http://bit.ly/30XA6Re) অনলাইন গরুর হাটের আয়োজন করেছে। ৫০ হাজার থেকে শুরু করে দেড় লাখ টাকা দামের গরু রয়েছে এই ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মটিতে। ২০১৭ সালে অনলাইনে প্রথমবারের মতো গরুর হাটের আয়োজন করা হলেও এবার বড় পরিসরে কাজ করছে বলে জানায় দারাজ কর্তৃপক্ষ।

প্রতিটি গরু ঘরে বসেই ফ্রি ডেলিভারি পাওয়া যাচ্ছে। এ ছাড়া গরু কেনার বিশেষ ভাউচার, প্রি-পেমেন্টে ও কার্ড পেমেন্টে ২০ শতাংশ ছাড়ও মিলছে।

দারাজ বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সৈয়দ মোস্তাহিদুল হক বলেন, ‘প্রতিটি গরুই শতভাগ অর্গানিক এবং গ্রামীণ নারী উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। এখনো পর্যন্ত ক্রেতাদের আশানুরূপ সাড়া পাচ্ছি এবং প্রায় প্রতিদিনই আমাদের কাছে গরুর বিষয়ে অনুসন্ধান করতে বহু ক্রেতার ফোন আসে। এবার শুধু ঢাকাভিত্তিক হলেও আগামী বছরগুলোতে আরো অধিক নারী ও তরুণ উদ্যোক্তাকে নিয়ে আমাদের ক্যাম্পেইনটি বড় পরিসরে আয়োজন করার পরিকল্পনা রয়েছে।’

 

বিক্রয় ডটকম

অনলাইন বিকিকিনির প্ল্যাটফর্ম বিক্রয় ডটকমেও মিলছে কোরবানির পশু। প্ল্যাটফর্মটিতে গরুর পাশাপাশি ছাগলও বিক্রি হচ্ছে। ৪৫ হাজার থেকে শুরু করে চার লাখের অধিক মূল্যের গরু মিলছে। এ ছাড়া ১৫ থেকে ৪০ হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে ছাগল।

বিক্রয় ডটকমের অ্যাড সেলস অ্যান্ড জবস বিভাগের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা ঈশিতা শারমিন বলেন, ‘পাঁচ বছর ধরে ঈদুল আজহা উপলক্ষে কোরবানির পশুর পসরা নিয়ে আসছি। এ বছর আমরা গ্রাহকদের জন্য আরো বেশিসংখ্যক কোরবানির পশু নিয়ে এসেছি। এই পর্যন্ত এক হাজারেরও বেশি পশু স্থান পেয়েছে আমাদের সাইটে। গত বছর বিক্রয় ডটকমের সাইটে মেম্বারশিপ সার্ভিস নিবন্ধনের মাধ্যমে প্রায় ৭০টি গবাদি পশুর খামার ব্যবসায়ী কোরবানির পশু বিক্রি করেছেন। এ বছর আশা করছি, সেই সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে ১৫০টিতে গিয়ে দাঁড়াবে।’

 

ফেইসবুকেও চলছে গরু বিকিকিনি

ই-কমার্সের পাশাপাশি ঈদে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক ফেইসবুক পেইজ ও গ্রুপ চাঙ্গা হচ্ছে। সেখানে কেনাবেচা হচ্ছে গৃহপালিত পশু।

♦ গরু ছাগলের বিরাট হাট/Goru Chagol Er Birat Haat !!(GCBH) : ফেইসবুকে এমন একটি জনপ্রিয় গ্রুপ ‘https://www.facebook.com /groups/gorupagol/’। ২০১৬ সালে তৈরি করা গ্রুপটিতে রয়েছে ৩০ হাজারের বেশি সদস্য। ঈদ আসার বেশ কয়েক দিন আগে থেকেই গ্রুপটি সরব হয়ে উঠেছে। অনেক খামারি এবং সাধারণ ক্রেতা-বিক্রেতারাও পোস্ট করছেন কোরবানির পশু নিয়ে অনেক কিছু।

♦ বাংলাদেশের গরু ছাগলের হাট : পশু বিকিকিনির তথ্য নিয়ে ফেইসবুকে রয়েছে আরেকটি বড় গ্রুপ ‘বাংলাদেশের গরু ছাগলের হাট’ [Bangladesh er Goru Chagoler Haatt - BDGCH] নামে। এই গ্রুপটিতেও অনেকেই জানতে চাইছেন কোরবানির পশুর দরদাম। দিচ্ছেন গরুর বিভিন্ন ছবি, ভিডিও।

♦ বিডি ক্যাটল শো : ফেইসবুকে ‘বিডি ক্যাটল শো’ (https://www.facebook. com/BDCattleshow/) নামে রয়েছে একটি পেইজ। এতে রয়েছে কোরবানির পশু, বিশেষ করে গরু নিয়ে নানা আয়োজন। সেখানে তিন দশক আগের কিছু ছবিও শেয়ার করা হয়েছে। রয়েছে গরুর হাট নিয়ে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকার কাটিং। এসব ছাড়াও ফেইসবুকে রয়েছে অসংখ্য ছোট-বড় গ্রুপ, যেগুলোতে কোরবানির পশু নিয়ে আলোচনা হয়। পশু কেনাবেচাও হয় এগুলোর মাধ্যমে।

 

আরো কিছু অফার

প্রিয়শপ ডটকম

দেশে শীর্ষস্থানীয় ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম প্রিয়শপ ডটকমে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে আয়োজন করা হয়েছে ঈদ ফেস্ট (priyoshop.com)। ক্যাম্পেইনে ঈদের নিত্যপ্রয়োজনীয় হোম ও কিচেন অ্যাপ্লায়েন্স সামগ্রী পাওয়া যাবে আকর্ষণীয় মূল্যে। যার মধ্যে রয়েছে ফ্রিজ, এয়ারকুলার ও মাইক্রোওয়েভ কালেকশন।

প্রিয়শপ ডটকমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আশিকুল আলম খান বলেন, ‘গ্রাহকদের ঈদের কেনাকাটার সুবিধার জন্য রয়েছে বিকাশ ও কার্ড পেমেন্ট ডিসকাউন্ট। বিকাশ পেমেন্ট করলেই পাচ্ছেন ইনস্ট্যান্ট ২০ শতাংশ ক্যাশব্যাক। ইবিএল, সিটি ব্যাংক, লংকা বাংলা, এনআরবি ইউপে কার্ড পেমেন্ট করলে মিলবে ১৫ শতাংশ ডিসকাউন্ট।

 

বাগডুম ডটকম

আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাগডুম ডটকমে চলছে সব পণ্যের ওপর সর্বোচ্চ ৬৮ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়। এ ছাড়া বিভিন্ন পণ্যের ওপর থাকছে আকর্ষণীয় মূল্য ছাড়ের সমাহার। এখানে কোরবানি সম্পর্কিত সব ধরনের পণ্য পাওয়া যাবে।

 

আজকের ডিল

দেশের আরেকটি ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম আজকের ডিলে (ajkerdeal.com) চলছে কাটাকুটির মেলা। সেখানে ডিজিটাল স্কেল, ছুরি, কাঁচি ও চামচ, স্লাইসার ইত্যাদি পণ্য ডিসকাউন্টে পাওয়া যাবে। আজকের ডিলের প্রধান নির্বাহী এ কে এম ফাহিম মাসরুর বলেন, ‘ঈদ উপলক্ষে অনলাইনে কেনাকাটার পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। সেই সঙ্গে বিকাশ ও বিভিন্ন ব্যাংকের কার্ডে ডিসকাউন্ট থাকায় অনলাইনে পেমেন্টের হারও বাড়ছে। আজকের ডিলের গ্রাহকদের জন্য বিকাশ ও কার্ড পেমেন্টে রয়েছে ডিসকাউন্ট।

 

কসাই মিলবে অনলাইনেও

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকেও পাওয়া যাচ্ছে কসাই। এর জন্য ‘Butcher Shop কসাই সাপ্লাই’ নামে একটি পেইজও আছে। পেইজে থাকা ফোন নাম্বারে ফোন করে কিংবা মেসেজ করে কসাই বুকিং করা যাবে। সেবাটি শুধু ঢাকার মধ্যেই পাওয়া যাবে। ফেইসবুকে এই পেইজের মাধ্যমে তিন বছর ধরে সবার সেবা দিচ্ছেন সোলায়মান হোসেন। তিনি বলেন, ‘ফেইসবুকের মাধ্যমে আমরা ভালোই সাড়া পাচ্ছি। গত বছর প্রায় ৭০টি অর্ডার পেয়েছি। এ বছর ১৫০ জন গ্রাহককে আমরা সেবা প্রদানে প্রস্তুত। কোরবানির ঈদের পর এক মাস মাংসের ব্যবসা বন্ধ থাকে। এ সময় কসাইরা বসে বসে দিন কাটায়। তাদের জন্য কিছু করার চিন্তা মাথায় আসার পর পেইজটি চালু করা হয়েছে। এখন শতাধিক কসাই আমাদের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে।’

মন্তব্য