kalerkantho

বুধবার । ৩১ আষাঢ় ১৪২৭। ১৫ জুলাই ২০২০। ২৩ জিলকদ ১৪৪১

ভারতে নিষিদ্ধ ৫৯ চীনা অ্যাপ

১ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতে নিষিদ্ধ ৫৯ চীনা অ্যাপ

ভারত-চীনের সীমান্ত লড়াইটা এখন হাজির হয়েছে প্রযুক্তি জগতেও। সোমবার টিকটক, ইউসি ব্রাউজার, শেয়ার-ইট, উই-চ্যাট, ক্যামস্ক্যানারের মতো জনপ্রিয় অ্যাপসহ মোট ৫৯টি অ্যাপকে নিষিদ্ধ করেছে ভারত সরকার। এ সিদ্ধান্তের পেছনে যুক্তি হিসেবে দেশটির তথ্য-প্রযুক্তিমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, ‘ভারতের সুরক্ষা, সংহতি, নিরাপত্তা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা এবং দেশের সাধারণ মানুষের তথ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই আইনের ৬৯ক ধারায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

সোমবার রাত থেকে নিষিদ্ধ হওয়া এ অ্যাপগুলো স্মার্টফোন থেকে মুছে ফেলার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে ভারতীয়দের। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একটি নির্দেশিকাও জারি করা হয়েছে। তাতে টেলিকম সংস্থাগুলোকে ওই অ্যাপগুলো সরিয়ে নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। পাশাপাশি ভারতে চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে চীন। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লিও ঝিজিয়াং এ বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ‘পুরো পরিস্থিতি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। চীনা সংস্থাগুলো বারবারই আন্তর্জাতিক এবং স্থানীয় আইন মেনে কাজ করে থাকে। ভারত সরকারের উচিত অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার মতো চীনা সংস্থাগুলোরও আইনি অধিকার রক্ষা করা।’

সদ্য নিষিদ্ধ হওয়া এসব অ্যাপ ব্যবহারকারীর সংখ্যা ভারতে বিশাল। শুধু টিকটকেরই আছে ১০ কোটির বেশি ব্যবহারকারী! চিন্তিত ওই সব অ্যাপে কাজ করা ভারতীয় কর্মীরাও। নিষিদ্ধ করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই এক বিবৃতিতে টিকটক জানিয়েছে, ভারত সরকারের সব নিয়ম মেনেই চলবে তারা। পাশাপাশি সংস্থাটি এটাও নিশ্চিত করেছে, ভারতীয় ব্যবহারকারীদের কোনো তথ্যই বিদেশে বা চীনের হাতে তুলে দেয় না টিকটক। এরই মধ্যে গুগল প্লে স্টোর থেকে ভারতে নিষিদ্ধ হওয়া সব অ্যাপ সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে টিকটক নিজেই প্লে স্টোর থেকে তাদের অ্যাপ তুলে নিয়েছে।

টেকপ্রতিদিন ডেস্ক, সূত্র: ইন্টারনেট

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা