kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ কার্তিক ১৪২৮। ২৮ অক্টোবর ২০২১। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

তাঁর মহাজীবন

রেভারেন্ড মার্টিন অধিকারী

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আজ আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতির জনকের সুযোগ্যা কন্যা শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন। এই শুভ দিনে তাঁকে অশেষ শ্রদ্ধা ও অভিনন্দন জানাই। এই শুভ দিনে পরমেশ্বরের কাছে প্রার্থনার অর্ঘ্য নিবেদন করি যেন তিনি তাঁকে সুদীর্ঘকাল সুস্বাস্থ্যে বাঁচিয়ে রাখেন, যেন তিনি আমাদের দেশ ও সব মানুষের কল্যাণের জন্য আরো অনেক সেবা দিতে পারেন; সেই সঙ্গে যেন তিনি আমাদের দেশের জন্যই নয়, বিশ্বের অসংখ্য দরিদ্র ও নিপীড়িত মানুষের অবস্থার কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নের জন্য এক পথপ্রদর্শকের কাজ করে যেতে পারেন।

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি তথা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার স্বপ্নকে বাস্তব রূপ দেওয়ার এক মহা ও পবিত্র তীর্থযাত্রায় অনেক চড়াই-উতরাইয়ের কঠিন পথ পেরিয়ে স্বমহিমায় আমাদের প্রধানমন্ত্রী এগিয়ে চলেছেন। সীমাহীন দেশপ্রেম, দরিদ্র ও দুর্বল মানুষের প্রতি তাঁর দরদি মন ও সেবার আদর্শে তিনি আমাদের মাঝে এক জীবন্ত কিংবদন্তি। তাঁর তুলনা তিনি নিজেই।

মানুষের জীবনের উন্নতিকল্পে তিনি তাঁর জীবন ও সব কর্মপ্রচেষ্টার জন্য সারা বিশ্বেই আজ প্রশংসিত ও নন্দিত। তাঁর জন্যই বাংলাদেশ ভূষিত হয়েছে ‘উন্নয়নের রোল মডেল’র বিশেষণে, মানবতার সেবার জন্য তাঁকে দেওয়া হয়েছে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’সহ অনেক উপাধি। এইতো কদিন আগে জাতিসংঘ তাঁকে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে সফলতার পথে এগিয়ে যাওয়ার জন্য ‘এসডিজি প্রগ্রেস অ্যাওয়ার্ড’ প্রদানের মাধ্যমে তাঁর দর্শন ও কাজের বিরল এক স্বীকৃতি দান করেছে। একই দিনে বিশ্বের বিভিন্ন খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন তাঁকে আখ্যায়িত করেছে ‘ক্রাউন জুয়েল’ অভিধায়।

বাংলাদেশ এখন স্বল্পোন্নত একটি দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছে। এর পেছনে আছে প্রধানমন্ত্রীর অক্লান্ত শ্রম, মেধা ও অকৃত্রিম দেশপ্রেম ও দরিদ্র মানুষের প্রতি তাঁর দরদি মন-প্রাণ। মানুষের প্রতি নিঃস্বার্থ ভালোবাসা ও সেবাব্রতই তাঁর নেতৃত্বের বড় চালিকাশক্তি। শুধু বর্তমানকে নয়, দেশের চলমান উন্নয়নের গতিধারা ভবিষ্যতে দেশকে কোথায় নিয়ে যাবে সে বিষয়ে আছে তাঁর ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ, আছে নির্ভরযোগ্য রূপরেখা। তাঁর নেতৃত্বে এখন যেভাবে উন্নয়নের গতিধারা এগিয়ে চলছে তার অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকলে আমাদের দেশ আগামী ২০ বছরের মধ্যে একটি উন্নত দেশের পরিচয় লাভ করবে বলে আশা আছে।

আমাদের প্রধানমন্ত্রীর সামনে সব সময়ই অনেক বড় বড় চ্যালেঞ্জ অতীতে যেমন ছিল, এখনো আছে। কিন্তু তাঁর দৃঢ় মনোবল, আত্মবিশ্বাস, মানুষের প্রতি অকৃত্রিম ভালোবাসা ও রাজনৈতিক প্রজ্ঞা তাঁকে উত্তরোত্তর খ্যাতি ও সার্থকতার সুউচ্চ শিখরে নিয়ে যাচ্ছে। তিনি এ দেশের কোটি কোটি মানুষের স্নেহময়ী মায়ের মতো, অনেকের কাছে তিনি বড় বোন। সর্বোপরি তিনি দেশসেবার জন্য আমাদের আদর্শ, তিনি মহামানব। আজ এই বিশেষ দিনে আমাদের অন্তরের প্রার্থনা—তিনি শতায়ু হোন।

 লেখক : খ্রিস্টীয় ঈশতত্ত্বের শিক্ষক, চার্চ নেতা এবং সম্প্রীতি বাংলাদেশের সদস্য

 



সাতদিনের সেরা