kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সোনালি অতীতের খোঁজে উরুগুয়ে

২৪ নভেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফুটবল বিশ্বকাপে শিরোপা জেতার সোনালি অতীত আছে উরুগুয়ের। কিন্তু ১৯৫০ সালে দ্বিতীয়বার জেতার পর আর ফাইনালে খেলতে পারেনি দুইবারের চ্যাম্পিয়নরা। তবে দীর্ঘদিনের আক্ষেপ ঘোচানোর সংকল্প নিয়ে আজ কাতার মিশন শুরু করছে দিয়েগো আলোনসোর দল। এডুকেশন সিটি মাঠে তাদের প্রতিপক্ষ এশিয়ার সবচেয়ে সফল দল দক্ষিণ কোরিয়া।

বিজ্ঞাপন

বাছাইয়ে টানা হারে বিশ্বকাপে আসাটাই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল উরুগুয়ের। কিন্তু অস্কার তাবারেজের চেয়ারে বসে ভাগ্যের চাকাও ঘুরিয়ে দেন আলোনসো। টানা চার ম্যাচ জিতে তারা টিকিট কাটে কাতারের। তাঁর দলটিও দুর্দান্ত। আক্রমণভাগে আছেন লুই সুয়ারেস, ম্যাক্সি গোমেজ, এদিনসন কাভানির মতো তারকা। ফার্নান্দো মুসলেরা, দিয়েগো গোদিন, হোসে রোদ্রিগেজদের নিয়ে গড়া উরুগুয়ের রক্ষণও বেশ জমাট। আলোনসোও তাই দারুণ আশাবাদী, ‘দলটি সত্যিই ভালো করছে। ওদের নিয়ে প্রত্যাশাও অনেক। এখানে আসতে পেরে খুব ভালো লাগছে। আমরা খুবই উদ্দীপ্ত। ’

কোরিয়ার বিপক্ষে এর আগে আটবার খেলে ছয়বারই জয়ের হাসি হেসেছে উরুগুয়ে। সর্বশেষ ২০১০ সালের বিশ্বকাপে শেষ ষোলোর লড়াইয়েও তারা জিতেছিল ২-১ গোলে। পাউলো বেন্তোর দলের সামনে তাই এবার প্রতিশোধের হাতছানি। কিন্তু বিশ্বকাপে ইউরোপের বাইরের দেশগুলোর বিপক্ষে তাদের অতীত বড্ড বিবর্ণ, জয় মোটে একটি। দলের সেরা তারকা সন হিউং মিনের চোখের নিচের হাড়ে অস্ত্রোপচারজনিত কারণে তাদের প্রস্তুতিও প্রত্যাশিত হয়নি। তবে উরুগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচের আগে সনকে নিয়ে স্বস্তির খবরই দিয়েছেন কোচ বেন্তো, ‘সন খেলতে পারে এবং সে মাঠে নামার জন্য তৈরিও। ’ কিন্তু মুখোশ পরে সন নিজের সাবলীল খেলাটা খেলতে পারবেন তো! কোচ বেন্তো এ ব্যাপারে আশ্বস্ত করেছেন। ফিফা



সাতদিনের সেরা