kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

স্বপ্নের ডেলিভারিতে স্বপ্নময় অভিষেক তৃষ্ণার

একের পর এক ভেতরে ঢোকা ডেলিভারি দিয়ে পৌঁছে গেলেন দারুণ এক অর্জনের চূড়ায়ও, যে চূড়ায় এর আগে ছিলেন শুধু একজনই। তিনি নেপালের অঞ্জলি চাঁদ। নারী ক্রিকেটের ইতিহাসে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি অভিষেকেই মাত্র দ্বিতীয় বোলার হিসেবে হ্যাটট্রিক করার কীর্তিতে নেপালি অফস্পিনারের পাশে গিয়েই বসলেন বাংলাদেশের তৃষ্ণা।

ইয়াহইয়া ফজল, সিলেট   

৭ অক্টোবর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



স্বপ্নের ডেলিভারিতে স্বপ্নময় অভিষেক তৃষ্ণার

ডানহাতি ব্যাটারের জন্য বল ভেতরে ঢোকানোর দক্ষতা রপ্ত করতে চান যেকোনো বাঁহাতি পেসারই। তাঁদের কাছে যে এটি স্বপ্নের ডেলিভারির মর্যাদাই পায়। কোচদের সহযোগিতা আর নিজের চেষ্টায় তা অনেকটাই শিখে ফেলা ফারিহা তৃষ্ণা এবার আন্তর্জাতিক মঞ্চও আলো করলেন তেমন ডেলিভারিতে। শুধু তা-ই নয়, একের পর এক ভেতরে ঢোকা ডেলিভারি দিয়ে পৌঁছে গেলেন দারুণ এক অর্জনের চূড়ায়ও, যে চূড়ায় এর আগে ছিলেন শুধু একজনই।

বিজ্ঞাপন

তিনি নেপালের অঞ্জলি চাঁদ। নারী ক্রিকেটের ইতিহাসে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি অভিষেকেই মাত্র দ্বিতীয় বোলার হিসেবে হ্যাটট্রিক করার কীর্তিতে নেপালি অফস্পিনারের পাশে গিয়েই বসলেন বাংলাদেশের তৃষ্ণা।

ঘরোয়া ক্রিকেটেও যাঁর ১৪ রানে ৬ উইকেট নেওয়ার সাফল্য আছে। এর আগে পাঁচটি ওয়ানডে খেলা পেসারের টি-টোয়েন্টি অভিষেক হয়ে হয়েও হচ্ছিল না। মূল দলে প্রথমে সুযোগ না হলেও জাহানারা আলমের চোটে বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব খেলতে বদলি হিসেবে উড়ে গিয়েছিলেন আবুধাবিতেও। কিন্তু সেখানেও অভিষেকের অপেক্ষা দীর্ঘ হয়। দেশে ফিরে সিলেটে নারী টি-টোয়েন্টি এশিয়া কাপের প্রথম দুই ম্যাচেও থাকতে হয় একাদশের বাইরে। পাকিস্তানের কাছে হারের পর যখন দলের জয়ে ফেরাটা খুব দরকার, তখন মালয়েশিয়ার বিপক্ষে স্বপ্নপূরণের মঞ্চে নামার সুযোগ হয়।

নতুন বলে ২ ওভার বোলিং করে ৬ রান দিয়ে কোনো উইকেট না পাওয়া তৃষ্ণা বাজিমাত করেন নিজের তৃতীয় ওভারে। ১৩০ রানের লক্ষ্য তাড়ায় প্রথম ৫ ওভারে কোনো উইকেট না হারানো মালয়েশিয়ার ব্যাটিং মেরুদণ্ডও ভেঙে পড়ে তৃষ্ণার ওই ওভারেই। প্রথম বলে সিঙ্গল নেন এলসা হান্টার। দ্বিতীয় বলেই সুইং করে ভেতরে ঢোকা বলে বোল্ড মালয়েশিয়ার অধিনায়ক উইনিফ্রেড দুরাইসিঙ্গাম। বল আঘাত হানে তাঁর লেগস্টাম্পে। পরের বলও হালকা ভেতরে ঢোকে। তাতে মাস এলিসা পড়েন এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে। ওভারের চতুর্থ বলও ঢোকে ভেতরে। তাতে মাহিরা ইসমাইল ব্যাট-প্যাডের ফাঁক গলে বোল্ড হতেই তৃষ্ণার হ্যাটট্রিকের বাঁধভাঙা আনন্দ পুরো দলেরই। এতে ৮৮ রানের বড় জয় দিয়ে বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নেওয়ার দিনে বড় এক হোঁচটই খেয়েছে পাকিস্তান। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের মুখোমুখি হওয়ার আগের দিন দুর্বল থাইল্যান্ডের কাছে ৪ উইকেটে হেরেছে তারা।   

ওপেনার মুর্শিদা খাতুন (৫৪ বলে ৬ চারে ৫৬) এবং অধিনায়ক নিগার সুলতানার (৩৪ বলে ১ ছক্কা ও ৬ চারে ৫৩) ফিফটিতে নির্ধারিত ২০ ওভারে স্বাগতিকরা ৫ উইকেট হারিয়ে ১২৯ রান তোলার পর বোলিংয়ে নিজের সেরাটা দেওয়ার প্রস্তুতিও নাকি অনেক দিন থেকেই নিয়ে রেখেছিলেন তৃষ্ণা, ‘(অভিষেক হচ্ছিল না বলে) প্রথমত আমি হতাশ ছিলাম না। কারণ জানতাম যে অভিষেক আজ না হলেও পরে হবে। টিম কম্বিনেশনের ওপরই সব কিছু হয়। মাথায় ছিল যে সুযোগ এলে ভালো কিছুই করতে হবে। সে জন্যই নিজেকে সব সময় প্রস্তুত রেখেছি। ’ সিলেটের উইকেটও নাকি তৃষ্ণার ভালো করার বিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছিল আরো, ‘এটি আমাদের হোম গ্রাউন্ড। এখানে এনসিএলের (জাতীয় লিগ) অনেক ম্যাচ যেমন খেলেছি, তেমনি প্রস্তুতি ম্যাচও খেলা হয়েছে অনেক। এখানকার উইকেট আমার জন্য সৌভাগ্যই বয়ে আনে। যখনই এখানে খেলি, তখনই ভালো কিছু হয়ে যায়। তাই বিশ্বাস ছিল যে অভিষেকেও এখানে ভালো কিছুই করতে পারব। ’ দূর পঞ্চগড় থেকে উঠে আসা ২০ বছর বয়সী এই পেসার নিজের শক্তির জায়গাও তুলে ধরলেন, ‘শক্তির জায়গা হচ্ছে আমার স্পট বল। আউটসুইংটা ন্যাচারাল। সঠিক জায়গায় বল ফেলতে পারলে ডানহাতি ব্যাটারের জন্য ভেতরে ঢোকা ডেলিভারিটাও খুব ভালো হয়। ’ সেটি অভিষেকেও হলো বলেই না হ্যাটট্রিকে বাজিমাত করতে পারলেন।



সাতদিনের সেরা