kalerkantho

সোমবার । ২৮ নভেম্বর ২০২২ । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

শেষ মিনিটে রুদ্ধশ্বাস জয়

৬ অক্টোবর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শেষ মিনিটে রুদ্ধশ্বাস জয়

ম্যাচ তখন ১-১ সমতায় গড়াচ্ছিল শেষের পথে। মনে হচ্ছিল, সিঙ্গাপুরের থেকে ধারে-ভারে এগিয়ে থেকেও কেবল সুযোগ কাজে লাগাতে না পারার হতাশায় পুড়তে হবে। শেষ পর্যন্ত তা হয়নি, ৯৮তম মিনিটে এসেছে স্বস্তির জয়সূচক গোলটি। ছবি : মীর ফরিদ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : দ্বিতীয়ার্ধের পুরোটা সময় নিজেদের অর্ধে নেমে খেলছিল সিঙ্গাপুর। কিন্তু চড়াও হয়ে খেলেও বাংলাদেশ কাঙ্ক্ষিত গোলটা পাচ্ছিল না। কখনো ফাইনাল পাসটা মিলছিল না, কখনো উড়িয়ে মেরে সুযোগ নষ্ট করছিল মিরাজুল, নাজিম উদ্দিনরা। ফলে হতাশা বাড়ছিল বাংলাদেশ শিবিরে।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচ তখন ১-১ সমতায় গড়াচ্ছিল শেষের পথে। মনে হচ্ছিল, সিঙ্গাপুরের থেকে ধারে-ভারে এগিয়ে থেকেও কেবল সুযোগ কাজে লাগাতে না পারার হতাশায় পুড়তে হবে। শেষ পর্যন্ত তা হয়নি, ৯৮তম মিনিটে এসেছে স্বস্তির জয়সূচক গোলটি।

৯০ মিনিট শেষে আট মিনিট অতিরিক্ত সময় পাওয়াতেই যেন আরেকটি সুযোগ তৈরি হয়েছিল। রেফারির শেষ বাঁশির আগমুহূর্তে সেই সুযোগটাই কাজে লাগায় বাংলাদেশ। সিঙ্গাপুরের বক্সে থ্রো ইন ছিল রাতুলের। সিঙ্গাপুরেরই এক ডিফেন্ডার তা ক্লিয়ার করতে গিয়ে আরো পোস্টের দিকে ঠেলে দেয়। বাংলাদেশ ফরোয়ার্ডদের চাপের মুখে গোলরক্ষক ইসাক লি সেই বল ধরেও হাতে জমাতে পারেনি, বল চলে যায় পোস্টের ভেতরে। আর সেটাই হয়ে যায় ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণী। অনূর্ধ্ব-১৭ এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের প্রথম ম্যাচে আসে ২-১ গোলের স্বস্তির জয়।

কমলাপুরে কাল তৃতীয় মিনিটেই গোলের সুযোগ পেয়েছিল বাংলাদেশ। সিঙ্গাপুর গোলরক্ষকের একটি দুর্বল শট বক্সের বাইরেই থামিয়ে নাজিম উদ্দিন সেই সুযোগটা নিয়েছিল। কিন্তু গোলরক্ষকের পাশ দিয়ে ছাড়া তার বলটি পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। এগিয়ে যাওয়া সেই গোলটি আসে ১০ মিনিটেই, সেই নাজিমের চেষ্টাতেই। বাঁ পায়ে ক্রস ফেলেছিল এই উইঙ্গার। প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার ব্রাইডেন গহ সেই বল ক্লিয়ার করতে গিয়েই ভুলটা করে বসে। বল তার হাঁটুতে লেগে সরাসরি জালে ঢুকে যায়। এগিয়ে যায় বাংলাদেশ।

এই ধারাতেই বাকি সময় খেলে কিশোররা সহজ জয় তুলে নেবে বলেই মনে হয়েছিল। কিন্তু সময় যত গড়ায় ম্যাচটা আরো কঠিন হতে থাকে। মিরাজুল ইসলামকে দুইবার হতাশ করে গোলরক্ষক লি। ২৮ মিনিটে অনেকটা খেলার ধারার বিপরীতে সমতায় ফেরে সিঙ্গাপুর। বক্সের বাইরে থেকে মোহাম্মদ সাইয়াজুয়ানের নেওয়া আচমকা শট ডান দিকে ওপরের কোণ দিয়ে জড়ায় জালে। এর পর থেকেই জয়সূচক গোলটার জন্য কিশোরদের চেষ্টা, যা মেলে ওই শেষ মিনিটে।



সাতদিনের সেরা