kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

চ্যাম্পিয়নের দাপটেই শুরু বাংলাদেশের

২ অক্টোবর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



চ্যাম্পিয়নের দাপটেই শুরু বাংলাদেশের

শামীমা-ফারজানার ৬৯ রানের জুটি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ওয়ানডে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে বাংলাদেশের মেয়েদের হারিয়েছিল থাইল্যান্ড। হারাতে পারত কদিন আগে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাই পর্বেও। উত্তেজনার ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত ১১ রানে জেতে নিগার সুলতানার দল। সেই থাইল্যান্ড পাত্তাই পেল না এশিয়া কাপে।

বিজ্ঞাপন

গতকাল উদ্বোধনী দিনে টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ জিতেছে ৯ উইকেটে। স্পিনারদের ঘূর্ণিতে থাইল্যান্ডকে ৮২ রানে গুটিয়ে নিগারদের দল জয় নিশ্চিত করে ৫০ বল হাতে রেখে। ৩০ বলে ৪৯ রানের ঝোড়ো ইনিংসে ম্যাচসেরার পুরস্কার শামীমা সুলতানার। পুরস্কার নিতে এসে অসুস্থ হয়ে পড়লেও শামীমা সুস্থ আছেন বলে নিশ্চিত করেছে বিসিবি।

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের মেয়েদের উইকেটের ব্যবধানে এটা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জয়। ২০১৯ সালে বাংলাদেশ নেপালকে হারিয়েছিল ১০ উইকেটে। ৯ উইকেটে সব মিলিয়ে জয় পেয়েছে দুইবার, দুটিই থাইল্যান্ডের বিপক্ষে। দাপুটে জয়ে এশিয়া কাপ শুরুর পর অধিনায়ক নিগারের স্বস্তি, ‘থাইল্যান্ডের সঙ্গে আমাদের দাপট দেখিয়েই জেতা উচিত। একটা টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচ খুব গুরুত্বপূর্ণ। পুরো টুর্নামেন্টে আপনি কী করতে যাচ্ছেন, সেটা বোঝা যায় প্রথম ম্যাচে। দলও আত্মবিশ্বাস অনুভব করে। মেয়েরা দারুণ বোলিং করেছে। শামীমা আপু অসাধারণ ব্যাটিং করেছে। যখন ১ রান দরকার ছিল, তখন চেষ্টা করেছিলাম ছক্কা মেরে জেতার। ছক্কাটা মেরে তাই ভালো লাগছে। ’ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়ে এমনিতেই আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে ছিল মেয়েদের। গতকালের দাপুটে জয়টা এশিয়া কাপের শিরোপা ধরে রাখার নতুন জ্বালানি।

এমন শুরুতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মেয়েদের প্রশংসায় ভাসিয়েছেন মুশফিকুর রহিম, ‘সত্যিই ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের মতো খেলেছি। চালিয়ে যাও। মাশাআল্লাহ। ’ খুশি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানও। তবে আফসোসও আছে তাঁর, ‘মেয়েরা অনেক দিন ধরে ভালো খেলছে। আমরা দেখছি না, তাকাচ্ছি না, এটা আমাদের ব্যর্থতা। ’

সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের ২ নম্বর মাঠে টস জিতে ব্যাট করা থাইল্যান্ড পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে হারায় দুই উইকেট। বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে এ সময় একটি বাউন্ডারিও পায়নি তারা। প্রথম বাউন্ডারিটি আসে নবম ওভারে। তবু পানিতা মায়া ও নাত্তাখান চান্থামের তৃতীয় উইকেটে ৩৮ রানের জুটিতে ম্যাচে ফেরে থাইল্যান্ড। একটা সময় দুই উইকেটে তাদের সংগ্রহ ছিল ৫৪ রান। এমন ভিত্তি পেয়ে ১০০ রানের পুঁজি করতেই পারত তারা। কিন্তু ২২ বলে ২৬ রান করা মায়াকে উইকেটের পেছনে শামীমা সুলতানার ক্যাচ বানিয়ে সোহেলি আকতার ফেরানোর পরই বদলে যায় দৃশ্যপট। লেগ স্পিনার রুমানা খাতুন তিন উইকেট নিয়ে চাপটা বাড়িয়ে দেন থাইল্যান্ডের। তাঁর বোলিং ফিগার ৩-১-৯-৩।

থাইল্যান্ড শেষ পাঁচ উইকেট ২১ রানে, আর শেষ তিন উইকেট হারায় ৭ রানের ব্যবধানে। নিগার তিনটি আর দুটি করে উইকেট নেন নাহিদা আকতার, সানজিদা আকতার মেঘলা, সোহেলি আকতার। আর সালমা খাতুনের শিকার এক উইকেট। স্পিনারদের দাপটে পেসার জাহানারা আলম বল করেন কেবল দুই ওভার।

লক্ষ্যটা ছোট হলেও বাংলাদেশের মেয়েরা আগ্রাসী ছিলেন শুরু থেকে। দুই ওপেনার শামীমা সুলতানা ও ফারজানা হক ৮.১ ওভারে গড়েন ৬৯ রানের জুটি। ৩০ বলে ১০ বাউন্ডারিতে ৪৯ করে শামীমা আউট হলেও ফারজানা মাঠ ছাড়েন দলকে জিতিয়ে। এই ওপেনার ২৯ বলে দুই বাউন্ডারি এক ছক্কায় ২৬ আর অধিনায়ক নিগার সুলতানা অপরাজিত থাকেন ১১ বলে এক ছক্কায় ১০ রানে। পরের ম্যাচে আগামীকাল পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

গতকাল অপর ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ৪১ রানে হারায় ভারত। গতবারের ফাইনালিস্টদের ১৫০ রানের জবাবে লঙ্কান মেয়েরা গুটিয়ে যায় ১০৯ রানে। ৫৩ বলে ৭৬ রানের ইনিংসে ম্যাচসেরার পুরস্কার ২২ বছর বয়সী ব্যাটার জেমিমা রদ্রিগুয়েজের।

বাংলাদেশে হওয়া এবারের এশিয়া কাপের সব আম্পায়ার ও ম্যাচ রেফারির দায়িত্ব পালন করছেন নারীরা। তবে স্বাগতিক হলেও এই তালিকায় নেই কোনো বাংলাদেশির নাম!

সংক্ষিপ্ত স্কোর

থাইল্যান্ড : ১৯.৪ ওভারে ৮২ (মায়া ২৬, চানথাম ২০, কানোহ ১১; রুমানা ৩/৯, সানজিদা ২/১১)।

বাংলাদেশ : ১১.৪ ওভারে ৮৮/১ (শামীমা ৪৯, ফারজানা ২৬*, নিগার ১১*; পুথাওং ১/২৩)।

ফল : বাংলাদেশ ৯ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচসেরা : শামীমা সুলতানা।



সাতদিনের সেরা