kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১২ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৩০ সফর ১৪৪৪

মিশন এশিয়া কাপ

নতুনের হাওয়ায় উড়ে যাবেন কে?

১৯ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নতুনের হাওয়ায় উড়ে যাবেন কে?

ছবি : কালের কণ্ঠ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : সাকিব আল হাসান আর মুশফিকুর রহিমদের অনুশীলন দেখতে গতকাল দুপুরে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে চলে এলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। অবশ্য অনুশীলন দেখার পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নিয়ে ‘বসা’র ব্যাপারও যে ছিল, সেটিও পরে জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমকে। টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব, টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ, ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্স এবং ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির প্রধান জালাল ইউনুসদের সঙ্গে বসে একটি সিদ্ধান্তও যে চূড়ান্ত করে ফেলেছেন, বলেছেন তা-ও, ‘টি-টোয়েন্টিতে আমরা শক্তিশালী দল নই। কী করা যায়, এটি নিয়ে ভাবতে গিয়ে আমরা একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

বিজ্ঞাপন

এই এশিয়া কাপে পুরো মানসিকতা ও চিন্তাধারা, সব কিছু হঠাৎ করে বদলে ফেলতে চাচ্ছি। আমরা দেখতে চাই, নতুন করে শুরু করা যায় কি না। ’

নতুনের এই হাওয়ায় ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্সও যে হুট করেই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছেন, নাজমুলের বক্তব্য থেকে তা আঁচ করে নেওয়াও কঠিন কিছু নয়। জিম্বাবুয়ে সফর শেষে হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো এখনো ঢাকায় না ফিরলেও দলের সঙ্গে ফিরেছেন এই অস্ট্রেলিয়ান। ফেরার পর টি-টোয়েন্টি ব্যর্থতার অতল থেকে উঠে দাঁড়ানোর উপায় খুঁজতে সিডন্সের সঙ্গেও একান্তে বসেছিলেন বিসিবি সভাপতি। সে আলোচনার বিস্তারিত নাজমুল তুলে ধরলেন এভাবে, ‘কয়েক দিন আগে জেমি আমার বাসায় এসেছিল। কিছু বিষয় নিয়ে আমরা আলোচনা করছিলাম। যদি আমরা জিততে চাই বা ভালো করতে চাই, তাহলে টি-টোয়েন্টি ভাবনাটা পরিবর্তন করতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই। ১৩০ রান করে তো ম্যাচ জিততে পারবেন না। আমাদের ১৮০-২০০ রান করতে হবে। এটি মাথায় রাখতে হবে। আমাদের এখনকার পরিকল্পনায় সে রকম কিছু করার কোনো লক্ষণই দেখছি না। নতুন করে কী করা যায়, তা নিয়ে জেমির সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। ’

দিন দুয়েক আগের সেই আলোচনা থেকে নতুনের হাওয়ায় কারো উড়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও উঁকি দিয়েছে। কে উড়ে যাবেন? তা নিয়ে মুখ খুলছেন না কেউই। এমনকি ক্রিকেট অপারেশনসের প্রধান জালালও না। ডমিঙ্গোর জায়গায় হেড কোচ হিসেবে অন্য কারো এশিয়া কাপে যাওয়ার কোনো সম্ভাবনা আছে কি না—প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেছেন, ‘এ মুহূর্তে আমি কিছুই বলতে পারছি না। ’ তবে পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়েছেন ঠিকই, ‘সভাপতি সাহেব তো আপনাদের যা বলার বলেছেনই। কিছু হলে আপনারা শিগগিরই জানবেন। ’ তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা শিগগিরই ঘোষণা আকারে আসতে যাওয়া ব্যাপারটি নিয়ে ধারণা দিয়েছেন এভাবে, ‘দুই দিন আগেই ডমিঙ্গোর জায়গায় সিডন্সকে এশিয়া কাপে হেড কোচ করা যায় কি না, সে আলোচনা উঠেছে। ’

আজ-কালের মধ্যে ঢাকায় ফিরলে ডমিঙ্গোকে তা জানানোও হবে। এর আগে আপাতত নতুন কিছুর ভাবনায় সিডন্সই যে যাবতীয় দায়দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত, নাজমুলের বক্তব্যে আছে সে আভাসও। টি-টোয়েন্টির জন্য পাওয়ার হিটিং কোচ নিয়োগের বিষয়ে বিসিবি সভাপতি বলছিলেন, ‘আমরা একজন পাওয়ার হিটিং কোচ নিয়ে আলোচনা করছিলাম। তো তখন জেমি বলল, ওর নাকি এটায় বিশেষত্ব আছে। ’ যদিও জেমিকে এই দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া নিয়ে দ্বিমতও আছে বোর্ডের ভেতর, ‘পাওয়ার হিটিং কোচ হিসেবে জুলিয়ান উডই সবচেয়ে ভালো হতেন। ’ সর্বশেষ বিপিএলে সিলেট সানরাইজার্সের হয়ে কাজ করে যাওয়া বিশ্বের প্রথম পাওয়ার হিটিং কোচ উডের সঙ্গে শুরু হওয়া আলোচনা কত দূর এগিয়েছিল, সেটি অবশ্য জানা যায়নি। তবে তাঁর পাশাপাশি একটি আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির একজন ভারতীয় কোচেরও বিসিবির বিবেচনায় থাকার কথা জানা গেছে।



সাতদিনের সেরা