kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ব্যস্ত সূচি মেয়েদেরও

এই চ্যাম্পিয়নশিপের ২০২২-২০২৫ চক্রে প্রতিটি দল আটটি তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে। এর মধ্যে চারটি খেলবে দেশে এবং বাকি চারটি দেশের বাইরে।

১৭ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : সেই ২০১১ সালে ওয়ানডে অভিষেক। পরের ১১ বছরে মাত্র ৪৯টি ওয়ানডে খেলা বাংলাদেশের মেয়েরা আগামী তিন বছরেই খেলবেন এর প্রায় অর্ধেক, ২৪টি ম্যাচ। সেই সঙ্গে প্রথমবারের মতো ঘোষিত মেয়েদের ক্রিকেটের এফটিপিতে (ফিউচার ট্যুরস প্রগ্রাম) ২৬টি টি-টোয়েন্টিও আছে সালমা খাতুন-নিগার সুলতানা-রুমানা আহমেদদের। তিন বছরের জন্য করা এই সূচিতে বাংলাদেশকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে আইসিসি উইমেনস চ্যাম্পিয়নশিপেও।

বিজ্ঞাপন

আগেরবার এটি আট দলকে নিয়ে হলেও এবার বাংলাদেশ আর আয়ারল্যান্ডকে নিয়ে দলের সংখ্যা ১০টি।

এই চ্যাম্পিয়নশিপের ২০২২-২০২৫ চক্রে প্রতিটি দল আটটি তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে। এর মধ্যে চারটি খেলবে দেশে এবং বাকি চারটি দেশের বাইরে। এই চক্রের শেষে শীর্ষ পাঁচটি দল এবং স্বাগতিক ভারত ২০২৫ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার সুযোগ পাবে। বাকি দলগুলোকে বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলতে পার হতে হবে বাছাই পর্বের বাধা। এ বছরই নিউজিল্যান্ডে হওয়া ওয়ানডে বিশ্বকাপে ‘প্রথম’ অনেক কিছুর স্বাদ পান বাংলাদেশের মেয়েরা। প্রথমবারের মতো ওয়ানডে খেলেন অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। এফটিপির প্রথম চক্রে ইংল্যান্ড ছাড়া বাকি দুই দলের সঙ্গেই দ্বিপক্ষীয় সিরিজ আছে বাংলাদেশের। তবে তাদের টেস্ট খেলার অপেক্ষা বাড়ছে। তিন বছরের সূচিতে ১৩৫ ওয়ানডে ও ১৫৯ টি-টোয়েন্টির তুলনায় টেস্টের সংখ্যা নগণ্যই, মাত্র সাতটি। দেশের মাটিতে ভারত, অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান ও আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে সিরিজ আছে মেয়েদের। অ্যাওয়ে সিরিজ চারটি নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজে। চলতি বছরের ডিসেম্বরে নিউজিল্যান্ড সফর দিয়ে আইসিসি উইমেনস চ্যাম্পিয়নশিপে যাত্রা শুরু হবে বাংলাদেশের, সেই সঙ্গে ব্যস্ত ও ঠাসা সূচির মধ্যে ঢুকে পড়বেন নারী ক্রিকেটাররাও।



সাতদিনের সেরা