kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সোনার লড়াইয়ে তাঁরা

১৬ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সোনার লড়াইয়ে তাঁরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : কমনওয়েলথ গেমস থেকে ফিরতে হয়েছে শূন্য হাতে। কোনিয়ায় ইসলামিক সলিডারিটি গেমসেও হতাশ করছিলেন বাংলাদেশি খেলোয়াড়রা। তবে পদকের আশা ছিল আর্চারি ঘিরে। পূরণ হলো সেই স্বপ্নটা।

বিজ্ঞাপন

তুরস্কের কোনিয়ায় চলমান ইসলামিক সলিডারিটি গেমসে আর্চারির নারী দলগত কম্পাউন্ড ইভেন্টে গতকাল ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। রোকসানা আক্তার, শ্যামলী রায় ও পুষ্পিতা জামান বাছাই পর্বে ২০৩৪ স্কোর করে দ্বিতীয় স্থান নিশ্চিত করেছেন। আগামীকাল ফাইনালে তাঁদের প্রতিপক্ষ স্বাগতিক তুরস্ক।

এই ইভেন্টে মোট অংশ নিয়েছিলেন ১০ জন আর্চার। তবে শুধু বাংলাদেশ ও তুরস্কেরই ছিল তিনজন করে খেলোয়াড়। অন্য দেশের নির্ধারিত তিন আর্চার না থাকায় সোনা ও রুপার লড়াইটা শুধুই বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে। খেলোয়াড় না থাকায় ব্রোঞ্জ পদকের লড়াই হচ্ছে না এই ইভেন্টে। সলিডারিটি গেমসে ২০১৩ সালে রুপা জিতেছিলেন ইমদাদুল হক। ২০১৭ সালে আজারবাইজানে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ আসরে আর্চারি ছিল না। তুরস্কে আর্চারি ফেরার পরই নিশ্চিত হলো অন্তত একটি পদক।

এ ছাড়া গতকাল নারী কম্পাউন্ডের ব্যক্তিগত ইভেন্টে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছেছেন বাংলাদেশের শ্যামলী রায় ও রোকসানা আক্তার। শেষ আটে পৌঁছাতে আজ পুষ্পিতা জামান মুখোমুখি হবেন মালয়েশিয়ার হালিম নুর আয়না ইয়াসমিনের। সাফল্য আছে ছেলেদের ইভেন্টেও। সাগর ইসলাম ৬-০ সেটে সুদানের রাশাদ খালিদকে হারিয়ে নিশ্চিত করেছেন রিকার্ভ এককের শেষ ষোলোর টিকিট। একই ইভেন্টে বাই পেয়ে শেষ ষোলোতে পৌঁছেছেন রোমান সানা ও আব্দুল হাকিম। দলগত ইভেন্টে ১৯১৮ স্কোর করে এই তিন আর্চার হয়েছেন পঞ্চম।



সাতদিনের সেরা