kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

আবার...

সাকিবের দলে ফিরেছে অভিজ্ঞতা

১৪ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



সাকিবের দলে ফিরেছে অভিজ্ঞতা

ছবি : মীর ফরদ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বাংলাদেশ ক্রিকেটের দুটি ট্রেন্ড আছে। বড় ক্রিকেটার হলে মিলবে বিশেষ ছাড়। দ্বিতীয়ত, জাতীয় দল থেকে বাদ পড়লে বিষণ্নতায় আক্রান্ত হওয়ার কোনো দরকার নেই। অন্য কারো ব্যর্থতায় একসময় ঠিকই ফেরা হবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে।

বিজ্ঞাপন

এশিয়া কাপের জন্য গতকাল ঘোষিত দলে একযোগে দেখা মিলেছে দুটি রীতির। বিনা অনুমতিতে জুয়াসংশ্লিষ্ট একটি প্রতিষ্ঠানের দূতিয়ালি করার পরও সাকিব আল হাসানকে এশিয়া কাপসহ তিনটি টি-টোয়েন্টি আসরে অধিনায়ক মনোনীত করেছে বিসিবি। আর ব্যাটারদের সাম্প্রতিক ব্যর্থতায় প্রায় তিন বছর পর জাতীয় দলে ফিরেছেন সাব্বির রহমান। এর মধ্যে নতুন মুখ এবাদত হোসেন, যাঁকে এত দিন টেস্ট বিশেষজ্ঞ বিবেচনা করা হতো।

গতকালের প্রধান আকর্ষণ ছিল সাকিব-এপিসোড। সকালে জানানো হয়েছিল দুপুরে মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে দল ঘোষণা করবে নির্বাচক কমিটি। তার আগে দুপুরে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসানের বাসায় দেখা করবেন সাকিব। কিন্তু দুপুরে মিনহাজুল আবেদীন ও হাবিবুল বাশারকে জানিয়ে দেওয়া হয় তাঁরা যেন বাসায় গিয়ে খেয়েদেয়ে বিকেল সাড়ে ৪টায় বোর্ড সভাপতির বাসায় যান। কারণ শিডিউল বদলেছে সাকিবেরও, তিনি বোর্ড সভাপতির সঙ্গে দেখা করবেন একই সময়ে। তাই মিরপুর থেকে তড়িঘড়ি মিডিয়া ভিড় করে বোর্ড সভাপতির গুলশানস্থ বাসভবনে। প্রথমে সাকিব, এরপর একে একে টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ, ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস, প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন এবং তাঁর সহকর্মী হাবিবুল বাশার।

সাকিববিষয়ক ঘোষণা দিয়ে জালাল ইউনুস সরে যাওয়ার পর এশিয়া কাপের জন্য ১৭ সদস্যের দল ঘোষণা করেছেন মিনহাজুল। যে দলে ওপেনার সাকল্যে দুজন, যেখানে সর্বশেষ জিম্বাবুয়ে সফরে সংখ্যাটা ছিল পাঁচ! দল নির্বাচনী নীতির এই বৈপরীত্য বাদ দিলেও টুর্নামেন্ট চলাকালে একজন ওপেনার চোট পেলে কী হবে, পরিষ্কার কোনো ব্যাখ্যা নেই। প্রধান নির্বাচক জানিয়েছেন, ‘এ জায়গাটায় একটা প্রশ্ন আছে। কিন্তু আপনারা দেখেছেন যে ক্রিকেটারদের কয়েক জায়গায় পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। যেহেতু এখন ঘরোয়া ক্রিকেট নেই, আমরা ক্রিকেটারদের বিভিন্ন ক্যাম্পে দেখছি। ওখান থেকে বিবেচনা করেই দল তৈরি করা হয়েছে। ’

সেই দলে চোটগ্রস্ত নুরুল হাসানও আছেন, যাঁর সার্ভিস এশিয়া কাপে পাওয়া নিয়ে সংশয় আছে। তবে মিনহাজুল আশাবাদী, ‘সোহানের (নুরুল হাসান) চোট থাকলেও তার একটা আপডেট হলো, ২১ (আগস্ট) তারিখে হাতের সেলাই খোলার কথা। আশা করছি, ইতিবাচক কিছু হবে। সে যদি খেলতে পারে, সেই আশা থেকে তাকে দলে রাখা হয়েছে। ’

জিম্বাবুয়ে সফর করে ফেরা দলের মুনিম শাহরিয়ার ও নাজমুল হোসেনকে রাখা হয়নি এশিয়া কাপের স্কোয়াডে। সেই শূন্যস্থান পূরণে সাব্বির রহমানের ওপর বাজি ধরেছেন নির্বাচক কমিটির প্রধান, ‘সাব্বির অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। টি-টোয়েন্টি ও ঘরোয়া ক্রিকেটে ওর খেলার অভিজ্ঞতা থেকেই দলে নেওয়া হয়েছে। টিম ম্যানেজমেন্টের সবার সঙ্গে আলোচনা করেই সাব্বিরের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কিছু কিছু জায়গায় কিছু কিছু খেলোয়াড়কে নিয়ে এভাবে চিন্তা করতে হয়। অনেকের ইনজুরি আছে। মিডল অর্ডার ব্যাটার দরকার। ’ টি-টোয়েন্টির ছন্নছাড়া চেহারা ঝেড়ে ফেলতে এবার অভিজ্ঞতাকেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে নতুনের জয়গান গেয়ে জিম্বাবুয়েতে যাওয়া বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিম ফিরেছেন, আছেন মাহমুদ উল্লাহও। নতুনত্ব বলতে এবাদত হোসেনের অন্তর্ভুক্তি এবং সৌম্য সরকারের ডাক না পাওয়া। ‘এবাদত শেষ বিপিএলে খুব ভালো করেছে। সেই চিন্তা করে ওকে দলে নেওয়া। সৌম্য চোখের আড়াল হয়নি। আমাদের ভবিষ্যৎ চিন্তায় আছে। ’



সাতদিনের সেরা