kalerkantho

শুক্রবার । ৭ অক্টোবর ২০২২ । ২২ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

হালান্ডের জোড়া গোল

জাদুকরী গোলে রোমারিওর পাশে মেসি

৮ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জাদুকরী গোলে রোমারিওর পাশে মেসি

ক্লেরমোঁর বক্সে বাতাসে ভাসানো ক্রস পাবলো সারাবিয়ার। দুই ডিফেন্ডারের পাস দিয়ে এগিয়ে বল বুক দিয়ে রিসিভ করলেন লিওনেল মেসি। পেছনেই গোলপোস্ট আর উল্টো দিকে মুখ করে মেসি। জাদুকরী মুহূর্তটা তৈরি হলো তখনই।

বিজ্ঞাপন

বুকসমান উচ্চতার বলটা অ্যাক্রোবেটিক ওভারহেড কিকে জালে জড়ানোর পরই গ্যালারিজুড়ে ‘মেসি, মেসি’ স্লোগান। দর্শকরা অভিবাদন জানাল দাঁড়িয়ে। কে বলবে খেলাটা প্রতিপক্ষের মাঠে! ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব ফুটবল হিস্টোরি অ্যান্ড স্ট্যাটিস্টিকসের (আইএফএফএইচএস) হিসাবে রোমারিওর সমান ৭৭২ গোল এখন মেসির।

মেসির জাদুকরী রাতে রং ছড়িয়েছেন নেইমারও। নিজে এক গোল করার পাশাপাশি অ্যাসিস্ট করেছেন তিনটি। তাতে ৫-০ গোলের বড় জয়ে লিগ ওয়ান শুরু করেছে পিএসজি। এদিকে প্রিমিয়ার লিগে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের প্রথম ম্যাচে বেঞ্চে ছিলেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ব্রাইটনের বিপক্ষে ম্যানইউ হেরে গেছে ২-১ গোলে। বিরতির পর রোনালদো নেমেও জেতাতে পারেননি দলকে। অপর ম্যাচে চেলসি ১-০ গোলে হারিয়েছে এভারটনকে। পেনাল্টি থেকে একমাত্র গোলটি জর্জিনহোর। প্রিমিয়ার লিগে নিজের ২০ গোলের ১৮টিই পেনাল্টি থেকে করলেন এই ইতালিয়ান। লিগে পেনাল্টি থেকে এটা চেলসির রেকর্ড ১৩৯তম গোল। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৩৮ গোল আছে লিভারপুলের।

গতকাল অপর ম্যাচে ওয়েস্টহামের বিপক্ষে প্রিমিয়ার লিগে অভিষেক হয়েছে আর্লিং হালান্ডের। নিজের প্রথম ম্যাচটি তিনি স্মরণীয় করেছেন জোড়া গোলে। ৩৬ মিনিটে পেনাল্টি থেকে ম্যানসিটিকে এগিয়ে দেন তিনি। তাঁর দ্বিতীয় গোলে ম্যানসিটি জেতে ২-০ ব্যবধানে।

ক্লেরমোঁর মাঠে জাদুকরী প্রথম মুহূর্তটা তৈরি হয় ম্যাচের নবম মিনিটে। পাবলো সারাবিয়ার বাড়ানো চলন্ত বলে পায়ের পাতা দিয়ে টোকা দিয়েছিলেন মেসি, যা পেয়ে জালে জড়াতে ভুল করেননি নেইমার। চোখ-ধাঁধানো পাসের কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গোলটার দাবিদার বলা হচ্ছে মেসিকেই! ২৬ মিনিটে প্রতি-আক্রমণ থেকে নেইমারের বাড়ানো থ্রু পাসে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন আশরাফ হাকিমি। ৩৮ মিনিটে নেইমারের বাঁ দিক থেকে নেওয়া ফ্রিকিকে মাথা ছুঁইয়ে ৩-০ করেন মার্কিনিয়োস। পিএসজির শেষ দুটি গোল মেসির। ৮০ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে বল পায়ে ছুটে বক্সে ঢোকার মুখে নেইমারকে পাস দেন মেসি। নেইমারের ফিরতি পাসে প্রথম ছোঁয়ায় কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি। এরপর ৮৭ মিনিটে সেই ওভারহেড কিকে গোল।

এমন জয়ে কোচ ত্রিস্তোফ গালতিয়েরের সন্তুষ্টি, ‘এই হচ্ছে মেসি। গত মৌসুমটা কঠিন ছিল ওর জন্য। নতুন পরিবেশে মানিয়ে নেওয়া সহজ নয়। আমার বিশ্বাস এই মৌসুম ওর দারুণ কাটবে। সবাই উঁচু মানের ফুটবল খেলেছে। ’ এএফপি

 



সাতদিনের সেরা