kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০২২ । ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সাকিবের নতুন বিজ্ঞাপনে বিচলিত বোর্ড

মাসুদ পারভেজ   

৪ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



সাকিবের নতুন বিজ্ঞাপনে বিচলিত বোর্ড

তিন বছরের জন্য বিপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি হতে আগ্রহী প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে ইওআই (এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট) চেয়ে ২ আগস্ট পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়েছে বিসিবি। যে প্রক্রিয়ায় কোনো বেটিং এবং অনলাইন বেটিং সংস্থা অংশ নিতে পারবে না বলেও স্পষ্ট উল্লেখ আছে বিজ্ঞাপনে। মজার ব্যাপার হলো, একই দিন এসেছে অনলাইন বেটিং সাইট বেটউইনারের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান বেটউইনার নিউজের দূত হিসেবে বাংলাদেশের শীর্ষ তারকা সাকিব আল হাসানের চুক্তিবদ্ধ হওয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা। প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির পরস্পরবিরোধী এই ব্যাপারটিকে আপাতত দৈব কোনো ঘটনা হিসেবেই দেখতে চান বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন চৌধুরী, ‘খেলোয়াড়ও জানতেন না যে আমরা কোন দিন বিজ্ঞাপন দেব।

বিজ্ঞাপন

আর আমরাও জানতাম না যে তাঁর বাণিজ্যিক সম্পর্কের ঘোষণা কবে আসবে। কাজেই বিষয়টি কাকতালীয় মাত্র। ’

এটি কাকতালীয় হলেও ফাঁকতালে বিতর্কিত প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি সম্পাদন করে ফেলার দায় এখন শুধুই সাকিবের কাঁধে গিয়েই বর্তাচ্ছে। বোর্ডের চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটার হিসেবে যেকোনো বাণিজ্যিক চুক্তি করার আগে বিসিবিকে অবহিত করা এবং তাদের অনুমোদন নেওয়াটা বাধ্যতামূলক হলেও তিনি এই নিয়ম অনুসরণ করেননি। বরং বাংলাদেশের আইনে বেটিং বা জুয়া নিষিদ্ধ হওয়ায় তাঁর নতুন চুক্তিটি একটি নিউজ পোর্টালের সঙ্গে দেখানোর ‘ফাঁকফোকর’ও বের করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। দেশের সর্বোচ্চ ক্রিকেট প্রশাসনের ধারণা যে এর চেয়ে আলাদা কিছু নয়, নিজাম উদ্দিনের বক্তব্যেই তা স্পষ্ট, ‘এই সমস্ত নিউজ পোর্টাল কেন করে, সেটি আপনারা ভালোভাবে জানেন, আমরাও জানি। না বোঝার কিছু নয় এটি। ’

তবে ঘটনাটি আকস্মিক বলে আগে একটু ধাতস্থ হয়ে নিতে চায় বিসিবি, ‘ভেরি ট্রু। সাকিব চুক্তিটি আমাদের জানিয়ে করেননি। আজই (বুধবার) বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। আমরা বিষয়টির আইনি দিক নিয়ে কথা বলছি। দ্রুত বিষয়টির নিষ্পত্তিও চাই আমরা। চুক্তিটি সরাসরি বেটিং সাইটের সঙ্গে নয় ঠিক, তবে এটি একটি বেটিং সাইটের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান। নিউজ পোর্টাল মূলত। কিন্তু যেহেতু এর সঙ্গে বেটিংয়ের বিষয়টিও চলে এসেছে, তাই অবশ্যই এর আইনি দিকগুলো আমাদের খতিয়ে দেখতে হবে। কারণ আমাদের দেশের আইন বেটিং অনুমোদন করে না। তাই আইনি দিকটি দেখে এ ক্ষেত্রে আমাদের করণীয় যা, আমরা তা করব। ’

অবশ্য কিছু করার আগে সাকিবকেও সুযোগ দিতে চায় বিসিবি। ইউরোপে অফশোর ব্যাংকিংয়ের স্বর্গরাজ্য সাইপ্রাসভিত্তিক ম্যারিকিট হোল্ডিংসের মালিকানাধীন বেটিং সাইটের অঙ্গপ্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তির সময় তাঁকে ভুল বোঝানো হয়েছে কি না,  সে বিষয়ে এই অলরাউন্ডারের সঙ্গে কথা বলে আগে বুঝে নিতে চান জানালেন নিজাম, ‘যাঁকে (সাকিব) নিয়ে প্রশ্ন, কিভাবে বিষয়টি তাঁর কাছে উপস্থাপন করা হয়েছে এবং কতটুকু তিনি জানেন, তা-ও আমাদের শুনতে হবে। একটাই মিসকমিউনিকেশন হয়েছে যে তিনি আমাদের সঙ্গে আগে যোগাযোগ করেননি। ’ এই মুহূর্তে দেশে না থাকা সাকিবের বিতর্কিত চুক্তি নিয়ে তড়িঘড়ি কিছু করতেও অনীহা বিসিবি প্রধান নির্বাহীর, “আমাদের কাছে সবাই গুরুত্বপূর্ণ। চাইলেই আমরা হুট করে একজনের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিতে পারি না। আমি ইতিবাচকভাবেই বিষয়টি দেখছি। আগেই বিষয়টি নিয়ে আমরা ‘জাম্প’ করতে চাই না। বোঝাপড়ার মাধ্যমে যদি বিষয়টি শেষ করা যায়, এর চেয়ে ভালো কিছু তো হতে পারে না। ”

কিন্তু বিসিবি বিষয়টি যতটা সহজে শেষ করা যাবে বলে ভাবছে, তেমন তো না-ও হতে পারে। সে ক্ষেত্রে কঠোর হওয়ার বার্তা দিয়ে রাখতেও ভুললেন না নিজাম উদ্দিন, ‘আমার কাছে মনে হচ্ছে, তিনি বুঝতে পারলে বিষয়টি খুবই সহজ। আর না বুঝতে পারলে বিষয়টি জটিল হবে। অবশ্যই এখানে আমাদের ইমেজ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ব্যাপার আছে। প্রতিটি বিষয়েরই মেরিটস ও ডিমেরিটস থাকে। উনি হয়তো ডিমেরিটস চিন্তা করেননি। এখন তিনি বিষয়টি বুঝলে সবার জন্যই ভালো। আর যদি না বোঝেন, তাহলে আপনারা যেভাবে চিন্তা করছেন, সেভাবেই বিষয়টি দেখতে হবে। ’



সাতদিনের সেরা