kalerkantho

শুক্রবার । ১২ আগস্ট ২০২২ । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৩ মহররম ১৪৪৪

নুরুলের শক্তিতে মুগ্ধ ডমিঙ্গো

৪ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নুরুলের শক্তিতে মুগ্ধ ডমিঙ্গো

নুরুলের ‘পাওয়ার’ই ডমিঙ্গোর দৃষ্টি কেড়েছে, ‘সোহান এই সংস্করণে সত্যিই আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার হয়ে উঠতে পারে। পাওয়ারফুল ছেলে সে, ইনিংসের শেষ দিকে বিগ হিটার। নতুন মাত্রা যোগ করছে সে আমাদের ব্যাটিংয়ে।

ক্রীড়া প্রতিবেদক : সাগরে খড়কুটো আঁকড়ে ধরে বাঁচতে চাওয়া বিপন্ন মানুষের প্রতিচ্ছবিই যেন হয়ে উঠতে চাইলেন রাসেল ডমিঙ্গো! ডমিনিকার উইন্ডসর পার্কে বৃষ্টিতে প্রথমে ১৬ ওভার, পরে ১৪ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে নিজ দলের আরেকটি হতাশাজনক ব্যাটিং প্রদর্শনীর মধ্য থেকেও তাঁর আশাবাদী হওয়ার মতো কিছু খুঁজে নেওয়াটা অন্তত তা-ই বলে। বাংলাদেশ দলের হেড কোচ ‘খড়কুটো’ ভেবে যাঁকে ধরলেন, তিনি উইকেটরক্ষক-ব্যাটার নুরুল হাসান। টেস্ট সিরিজের দুই ম্যাচেই ফিফটি করার পর তিনি প্রথম টি-টোয়েন্টিতে অবশ্য খুব বড় কিছু করেননি। তবে দলীয় প্রেক্ষাপটে তাঁর ১৬ বলে ২৫ রানের ইনিংসটি আবার ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ।

বিজ্ঞাপন

ওই ইনিংসটি না হলে যে দলেরই ‘সেঞ্চুরি’ হয় না। যদিও দক্ষিণ আফ্রিকান কোচের কাছে এসব নয়, প্রাধান্য পাচ্ছে ছোট্ট ইনিংসটি খেলার পথে নুরুলের ব্যাটে দেখা যাওয়া ‘পাওয়ার’!

কুড়ি-বিশের ক্রিকেটের চাহিদানুযায়ী পেশিশক্তির জোরে বল হাঁকাতে জানা ব্যাটারের সরবরাহ একদমই নেই বলে নিত্য হাপিত্যেশ শোনা যায় বাংলাদেশ শিবির থেকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এই টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরুর দু-এক দিন আগে বাস্তবতা মেনে অবশ্য ভিন্ন উপায় খোঁজার কথা বলতে শোনা গেছে ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্সকে। ওরকম কাউকে পাওয়া যাচ্ছে না ধরে নিয়েই এই অস্ট্রেলিয়ান বলেছিলেন, ‘আমাদের দীর্ঘদেহী খেলোয়াড় নেই। জস বাটলার বা গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের মতো ৬ ফুট ২ ইঞ্চি উচ্চতার। এমনকি মার্কাস স্টয়নিসও বিশাল শারীরিক গড়নের। আমাদের তাই অন্যভাবে উপায় খুঁজতে হবে। আমরা শক্তির দিক থেকে অন্য দলগুলোকে পেছনে ফেলতে পারব না। ’ তবে ডমিনিকায় ক্যারিবীয় ফাস্ট বোলার ওডেন স্মিথকে এক ওভারেই মারা দু-দুটি ছক্কায় শটের পেছনে থাকা শক্তিটা জানান দিতে পেরেছেন নুরুল। বিশেষ করে কবজির জোরে মারা দ্বিতীয় ছক্কাটি ছিল ৯২ মিটার লম্বা। ছোট্ট ইনিংস হলেও এখন পর্যন্ত জাতীয় দলের হয়ে খুব উল্লেখযোগ্য পারফরম্যান্স না থাকা সত্ত্বেও সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টির ব্যাটিং ব্যর্থতার মধ্যে নুরুলের ‘পাওয়ার’ই ডমিঙ্গোর দৃষ্টি কেড়েছে, ‘সোহান এই সংস্করণে সত্যিই আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার হয়ে উঠতে পারে। পাওয়ারফুল ছেলে সে, ইনিংসের শেষ দিকে বিগ হিটার। নতুন মাত্রা যোগ করছে সে আমাদের ব্যাটিংয়ে। যদিও সে ভুল পথ বেছে নিয়েই আউট হয়েছে। ওর জন্যও এটা শিক্ষা। ওকে ভালো ফর্মে দেখে ভালো লেগেছে। টেস্ট সিরিজ থেকে সে ফর্ম টি-টোয়েন্টিতে টেনে এনেছে। ’

নুরুলের পাশাপাশি এই সফর দিয়েই আট বছর পর টেস্টে ফেরা এনামুল হক বিজয়ও নজর কেড়েছেন ডমিঙ্গোর। সর্বশেষ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) হাজারের বেশি রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে টি-টোয়েন্টি আর ওয়ানডে দলে জায়গা করে নেন এই ওপেনার। যদিও আবার জাতীয় দলের জার্সি তিনি গায়ে চাপান টেস্ট দিয়েই। ইয়াসির আলী চৌধুরী চোটে পড়ে ছিটকে যাওয়ার পর দ্বিতীয় টেস্টের স্কোয়াডে অন্তর্ভুক্ত করা হয় তাঁকে। সেন্ট লুসিয়া টেস্টে ঢুকে পড়েন একাদশেও। যদিও ইনিংস বড় করা হয়নি। দারুণ কিছুর প্রতিশ্রুতি জাগিয়ে প্রথম ইনিংসে আউট হয়ে যান ২৩ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসে করেন ৪ রান। এরপর সাড়ে ছয় বছর পর দেশের হয়ে টি-টোয়েন্টি খেলতে নেমে শুরু থেকেই জানান দিচ্ছিলেন নিজের আগ্রাসী মানসিকতার। মুখোমুখি হওয়া নিজের প্রথম দুই বলেই হাঁকান বাউন্ডারি। এর পাশাপাশি এক-দুই নিয়ে এগোনোর প্রচেষ্টাও লক্ষ করা যাচ্ছিল তাঁর ব্যাটে। শেষ পর্যন্ত মাত্র ১৬ রানে থামলেও উইকেটে তাঁর উপস্থিতি মনে ধরেছে ডমিঙ্গোর, ‘ওকে যেমন দেখলাম, তাতে সত্যিই ভালো লেগেছে। টেকনিক ভালো, রান করার সুযোগ খোঁজে সব সময়। মাঠে ওর চনমনে উপস্থিতি। ভালো ফিল্ডিংও করে। এটা গুরুত্বপূর্ণ। এ রকম অভিজ্ঞ ও দারুণ ফর্মে থাকা (ডিপিএলের পারফরম্যান্স বুঝিয়েছেন সম্ভবত) একজনকে দলে ফিরে পাওয়াটা দারুণ ব্যাপার। ’ অবশ্য এনামুলকে ইনিংস বড় করার তাগিদও দিয়েছেন হেড কোচ, ‘তবে ওকে রান করতে হবে। গোটা দুই ম্যাচে ভালো শুরু করেছে। তবে সব মিলিয়ে গত কয়েক সপ্তাহে ওকে যেমন দেখলাম, তাতে আমি রোমাঞ্চিত। ’



সাতদিনের সেরা