kalerkantho

শুক্রবার । ১২ আগস্ট ২০২২ । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৩ মহররম ১৪৪৪

আজও গোলোৎসব মেয়েদের?

আজ তাই বাংলাদেশের শুধু ২-০তে সিরিজ নিশ্চিত করার দিন নয়, দর্শকদের প্রত্যাশাও মেটাতে চান বাংলাদেশ কোচ, ‘এটা আমি আগেও বলেছি, ভালো ফুটবল খেলব, দর্শকদের আনন্দ দেব এবং জয় নিয়ে ফিরব ইনশাআল্লাহ।’

২৬ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আজও গোলোৎসব মেয়েদের?

ক্রীড়া প্রতিবেদক : একটা দলকে ছয় গোলে হারানোর পরের ম্যাচে তাদের নিয়ে আর কি ভয় থাকতে পারে—প্রশ্নটা সাধারণের। বাংলাদেশের মেয়েদের নিয়ে ফুটবলে বিপ্লব ঘটানো গোলাম রব্বানী নিশ্চয় সেই সাধারণের কাতারের নন। সাধারণে যা ভাবে না তা-ই তিনি ভাবেন। মালয়েশিয়ার বিপক্ষে আজকের ম্যাচটি নিয়েও তাই যথেষ্ট সতর্ক বাংলাদেশ কোচ।

বিজ্ঞাপন

‘পরিকল্পনা অনুযায়ী আমরা একটা ম্যাচ খেলে ফেলেছি। মেয়েরা তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী সর্বোচ্চটা দিয়েই খেলেছে এবং আমরা ভালোভাবেই জিতেছি। এখন সামনের ম্যাচটা আমাদের জন্য আরো গুরুত্বপূর্ণ। আগের ম্যাচের পারফরম্যান্সটাই আমরা এ ম্যাচে করতে চাই। কিন্তু এবার চ্যালেঞ্জটা আরো বেশি। কারণ আমরা যেহেতু একটা ম্যাচ ওদের বিপক্ষে খেলে ফেলেছি, ওরা এখন আমাদের সম্পর্কে জেনে গেছে। তাই এই ম্যাচেও আমাদের সর্বশক্তিই প্রয়োগ করতে হবে। খেলতে হবে পরিকল্পনা অনুযায়ী’—বলছিলেন গোলাম রব্বানী। অর্থাৎ নিজেদের পারফরম্যান্সের ধারাটা ধরে রাখার ব্যাপারে এতটুকু আপস করতে রাজি নন তিনি। এ ছাড়া এই ম্যাচের দর্শক আগ্রহ নিয়েও ভাবতে হচ্ছে তাঁকে। আগের ম্যাচের দাপুটে পারফরম্যান্সের পর এদিন আরো বেশি দর্শক কমলাপুর স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে থাকবে বলাই যায়। এমনটা আগেও হয়েছে। সর্বশেষ অনূর্ধ্ব-১৯ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপেই বাংলাদেশের মেয়েদের খেলায় দর্শক আগ্রহ তুঙ্গে পৌঁছেছিল। শিরোপা জিতে মারিয়া-মনিকারাও সেই সমর্থনের প্রতিদান দিয়েছিলেন।

আজ তাই বাংলাদেশের শুধু ২-০তে সিরিজ নিশ্চিত করার দিন নয়, দর্শকদের প্রত্যাশাও মেটাতে চান বাংলাদেশ কোচ, ‘এটা আমি আগেও বলেছি, ভালো ফুটবল খেলব, দর্শকদের আনন্দ দেব এবং জয় নিয়ে ফিরব ইনশাআল্লাহ। ’ একই রকম আক্রমণাত্মক থাকার কথাও বলেছেন তিনি। দ্বিতীয় ম্যাচে বেঞ্চে থাকা ফুটবলারদের পরখ করে নেওয়াটা তাই বিশেষ গুরুত্ব পাচ্ছে না তাঁর কাছে, বরং ম্যাচ পরিকল্পনায় জোর দিচ্ছেন। আভাস দিয়েছেন আগের ম্যাচের একাদশটাই খেলানোর। তাঁদের মধ্যে শুধু সিরাত জাহানের সামান্য চোট আছে, সেই পজিশনে বিকল্প ধরে রাখা হয়েছে তহুরা খাতুনকে। মালয়েশিয়া কোচ এই ম্যাচের আগে আর সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হতে চাননি। আসিয়ান ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের আগে দলটাকে পরখ করে নিতে এসেছিলেন তিনি বাংলাদেশে। আরেকটা বড় ব্যবধানের হারে তাঁকে ভগ্ন হৃদয়ে ফিরতে হবে। সেটা এড়াতে আজ সর্বশক্তিই প্রয়োগ করবে দলটি সন্দেহ নেই। সেদিন নিজেদের রক্ষণ বলে কিছু ছিল না, ম্যাচ শেষে উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন। আজ সেই রক্ষণভাগ নিশ্চিত আঁটসাঁট করেই রাখতে চাইবেন তিনি। নাকি পাল্টা আক্রমণ হানাবেন? বাংলাদেশ দলও এর জন্য তৈরি। অধিনায়ক সাবিনা খাতুনও বলেছেন দর্শক প্রত্যাশা মেটাতে তাঁরাও এ ম্যাচে শতভাগই ঢেলে দেবেন।



সাতদিনের সেরা