kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ আগস্ট ২০২২ । ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১২ মহররম ১৪৪৪

জিয়ার চাকরি সৌদি আরবে

দীর্ঘদিনের সঙ্গী হারাচ্ছেন ফ্রেডরিখ

৫ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দীর্ঘদিনের সঙ্গী হারাচ্ছেন ফ্রেডরিখ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বাংলাদেশে কাজ শুরুর সময় থেকে তাঁকে সহকর্মী হিসেবে পেয়ে এসেছেন মার্টিন ফ্রেডরিখ। গত চার বছরে আর্চারিতে যত অর্জন তাতে ফ্রেডরিখের এই সহকারীরও অবদান কম নয়। আর্চারিতে বাংলাদেশের কোচদের মধ্যে সেরা সেই জিয়াউল হক এবার ফ্রেডরিখের সঙ্গ ছাড়ছেন, বিদায় নিচ্ছেন রোমান সানা, দিয়া সিদ্দিকীদের কাছ থেকেও। সৌদি আরব জাতীয় আর্চারি দলের কোচ হতে চলেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

সব কিছু চূড়ান্ত, এ মাসেই দেশ ছাড়ছেন জিয়া।

গতকালও জিয়ার অনুপস্থিতিতে জাতীয় দলের সহকারীর দায়িত্ব নেবেন কে, তা নিয়ে ফ্রেডরিখ বৈঠক করেছেন ফেডারেশনের সঙ্গে। জিয়ার এই চলে যাওয়ার ব্যাপারটা তাঁকে মেনে নিতে হচ্ছে, ‘জিয়া আমার ডান হাত ছিল। দুজন দুজনকে খুব ভালো বুঝতাম। একসঙ্গে আলোচনা করে অনেক জটিল পরিস্থিতি পার করেছি আমরা। সেই জিয়াকে ছেড়ে দিতে হচ্ছে ভেবে মনটা খারাপ। আবার ওর ক্যারিয়ারের দিকে চেয়ে ওর এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন দিতে হয়েছে আমার। এত বড় একটা সুযোগ কিছুতেই হাতছাড়া করা উচিত হবে না। ’ একই কথা আর্চারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজিব উদ্দিন আহমেদেরও, ‘জিয়া আমাদের গর্ব। সে চলে যাচ্ছে তাতে আমরা কতটা মানিয়ে নিতে পারব সে আলোচনা পরে। আগে তাঁকে অভিনন্দন জানাই বাংলাদেশের কোচ হিসেবে এত দূর যেতে পারার জন্য। ’

জিয়া নিজে বাংলাদেশের আর্চারির সেই শুরুর সময়কার একজন। ২০০৯ সালে এশিয়ান গ্রাঁপ্রিতে রুপা জিতেছেন। তাঁর হাত ধরেই আর্চারিতে এসে তারকা হয়েছেন তাঁর ছোট ভাই ইমদাদুল হক মিলন। বাংলাদেশের কোচদের মধ্যে তিনিই প্রথম যিনি ভিন্ন কোনো দেশের জাতীয় দলের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। জিয়া নিজেও রোমাঞ্চিত সামনের সময়টার কথা ভেবে, ‘বাংলাদেশের আর্চারদের ছেড়ে যাওয়াটা কঠিন। কিন্তু নিজের ক্যারিয়ারের কথা ভেবে আমাকে এই পদক্ষেপটা নিতেই হয়েছে। যে জায়গায় আছি সেখান থেকে তো এগোতে হবে আমাকে। ’



সাতদিনের সেরা