kalerkantho

সোমবার । ২৭ জুন ২০২২ । ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৬ জিলকদ ১৪৪৩

‘অন্যায়’ করা হচ্ছে দলগুলোর সঙ্গে

২৪ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কলকাতা থেকে প্রতিনিধি : এএফসি কাপে ‘ডি’ গ্রুপের ফায়সালা গিয়ে ঠেকেছে শেষ দিনের খেলায়। চার দলেরই ৩ পয়েন্ট করে। সুতরাং সবার সুযোগ আছে নক আউটে যাওয়ার। আজ শেষ দিনে ম্যাচ দুটির ফলাফলের ওপর নির্ভর করছে পরের রাউন্ডে কারা যাবে।

বিজ্ঞাপন

পয়েন্টের দিক থেকে সবার সহাবস্থান হলেও নিজেদের দুর্ভাগা ভাবছে দুটি দল—বসুন্ধরা কিংস ও গোকুলাম কেরালা।

তারা আজ বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টায় মুখোমুখি হবে। কিন্তু গতকাল সংবাদ সম্মেলনে গোকুলাম কেরালার কোচ ভিনসেঞ্জো আলবার্তো স্পষ্ট করে বলে গেছেন, ‘গ্রুপ পর্বের এই নিয়মটা কোনো দলের জন্যই ন্যায্য হয়নি। পুরো ফুটবলবিশ্ব জানে, গ্রুপের শেষ ম্যাচ ডে-তে একই সময় শুরু হয় ম্যাচগুলো। কিন্তু এখানে হচ্ছে একটির পর আরেকটি। এটা মোটেও ন্যায্য হয়নি। ’ বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে তাদের ম্যাচ শেষ হয়ে রাত ৯টায় শুরু হবে মোহনবাগান ও মাজিয়ার ম্যাচ।

কিংসের কোচ অস্কার ব্রুজোনও এএফসি কাপের এই ফরম্যাটের সমালোচনা করেছেন, ‘বিশ্বকাপ থেকে শুরু করে উয়েফাসহ বিভিন্ন মহাদেশীয় টুর্নামেন্টে গ্রুপের শেষ ম্যাচগুলো একই দিনে একই সময়ে শুরু হয়। তাতে একটি ম্যাচের ফলের প্রভাব যেন অন্য ম্যাচে না পড়ে। কিন্তু এখানে হচ্ছে উল্টো। ’ একটি ম্যাচের ফল জেনে বাকি দুই দল মাঠে নামবে পরের ম্যাচ খেলতে। তখন ফুটবলের স্পিরিট যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তেমনি শেষ ম্যাচে একটি দলের খেলার আগ্রহ নিয়েও তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেছেন, ‘প্রথম ম্যাচে আমরা (কিংস) হারলে মোহনবাগানের কোনো সুযোগই থাকে না। আবার গোকুলাম কেরালা হারলে পরের ম্যাচে মাজিয়ার জয়ও কোনো কাজে আসবে না। তাহলে তাদের খেলার মোটিভেশন কী হবে!’ আজ প্রথম ম্যাচে কিংস জিতলেই পরের ম্যাচে মোহনবাগানের জয় কাজে আসবে, তখন পয়েন্ট সমান হবে এবং ‘হেড টু হেডে’ তারা নক আউটে যাবে। কিংস জিতলে পরের ম্যাচে মাজিয়া কিসের অনুপ্রেরণায় খেলবে? আবার গোকুলাম জিতলে পরে মোহনবাগানের জয়েও কোনো কাজে লাগবে না। তখন কিসের জন্য তারা ম্যাচটি খেলবে?

এসব প্রশ্ন তুলে এই স্প্যানিশ কোচ সমাধানের কথাও বলেছেন, ‘আমার জানা মতে, কলকাতার কল্যাণীতে আরেকটি ভালো ফুটবল মাঠ আছে। সেখানেও একই সময়ে একটি ম্যাচ দিলে ফুটবলের স্পিরিট বজায় থাকত এবং প্রত্যেক দলই সমান সুবিধা পেত। ’ এএফসি এই পথে হাঁটবে না, অন্যায্য ফরম্যাটেই হবে শেষ দিনের ম্যাচগুলো।



সাতদিনের সেরা