kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

‘শেষ সুযোগ’ কাজে লাগাতে পারবেন মমিনুলরা?

২৩ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



‘শেষ সুযোগ’ কাজে লাগাতে পারবেন মমিনুলরা?

ক্রীড়া প্রতিবেদক : শ্রীলঙ্কার সর্বশেষ সফরেও সুযোগ হেলায় হারিয়েছে বাংলাদেশ। মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের ধীরগতির ও বল নিচু হওয়া উইকেটে স্পিনফাঁদ পেতে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের বিপক্ষে জেতা গেলেও লঙ্কানদের সঙ্গে টেস্ট সিরিজ জেতার সুবর্ণ সুযোগ তারা হারায় ২০১৮ সালে।   সেবার চট্টগ্রামে সিরিজের প্রথম ম্যাচ ড্র করে এসে ঢাকায় হারে বাজেভাবে। তাতে লঙ্কানদের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো সিরিজ জেতার সুযোগও যায় বিসর্জনে।

বিজ্ঞাপন

সাড়ে চার বছর পর দেশের মাঠেই আরেকটি সুযোগ এসে হাজির। যেটি আবার এক অর্থে মমিনুল হকদের জন্য ‘শেষ সুযোগ’ও হয়ে যেতে পারে।

বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক যদিও আপাতত শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ জয়েই চোখ রাখছেন। তবে বৃহত্তর প্রেক্ষাপটে দেখলে  চোখে ভেসে উঠতে পারে আরো সুদূরের ছবিও। বছরের শুরুতে মাউন্ট মঙ্গানুইতে নিউজিল্যান্ডকে হারানোর পর আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের বর্তমান চক্রে আরেকটি টেস্ট জেতার তুলনামূলক সহজসাধ্য সুযোগই উন্মুক্ত হয়ে আছে স্বাগতিকদের সামনে। যেটিকে কার্যত শেষ সুযোগ বলে মত দেওয়ার লোকেরও অভাব নেই কোনো। কারণ এই চক্রে আর মাত্র দুটো সিরিজই বাকি আছে বাংলাদেশের। এর একটি আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে। অন্যটি বছরের শেষ দিকে দেশের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে। এই দুই প্রতিপক্ষের শক্তি ও বর্তমান ফর্ম বিবেচনায় অসম্ভব না হলেও মমিনুলদের পক্ষে টেস্ট ম্যাচ জেতা কঠিন নিশ্চিতভাবেই। স্বাভাবিকভাবেই তাই এই প্রশ্ন উঠল যে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের চলতি চক্রে আরেকটি টেস্ট ম্যাচ জেতার এটিই শেষ সুযোগ কি না মমিনুলদের জন্য। মমিনুল অবশ্য দেশে-বাইরে সবখানেই সম্ভাবনার ছবি দেখিয়ে রাখতে চাইলেন। সেই সঙ্গে গুরুত্বে যেন আপাতত আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া ম্যাচটিকেই এগিয়ে রাখতে চাইলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়, সব সময় সুযোগ থাকেই। আপনি মিরপুরে খেলেন বা দেশের বাইরে, সব সময় সুযোগ থাকেই। সুযোগটি কিভাবে দেখেন, এটিই হলো সবচেয়ে বড় জিনিস। আমার কাছে মনে হয়, কন্ডিশন বা সব কিছুর কথা চিন্তা করলে এটি একটি (শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মিরপুর টেস্ট) ভালো সুযোগ। সর্বোচ্চ সুযোগ না, তবে এটিও একটি সুযোগ। দেখতে হবে, সুযোগটি আপনি কিভাবে নিচ্ছেন। সুযোগ সব সময়ই থাকে, এটি আমাদের জন্য সিরিজ জেতার আরেকটি সুযোগ। ’

সেই সুযোগ কাজে লাগানোর পথে মমিনুলদের সামনে অন্য কোনো কিছু বাধা হয়ে ওঠে কি না, উঠল সে প্রশ্নও। কারণ দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে টেস্ট সিরিজে বাজে পারফরম্যান্সের পেছনে দুই ম্যাচের সিরিজে টানা ১০ দিন খেলার মানসিক দৃঢ়তার অভাবের কথাই শোনা গেছে। তা-ও আবার যে সে নন, খোদ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসানের মুখেই শোনা গেছে এ রকম অভিযোগ। যদিও মমিনুল সেটি মানতে চাইলেন না। চট্টগ্রামে ড্র করে আসার পর এবার মিরপুরে এ রকম কিছু হওয়ার আশঙ্কা উড়িয়েই দিতে চাইলেন টেস্ট অধিনায়ক, ‘আমার তো মনে হয় না এ রকম কিছু হয়। এভাবে চিন্তা করলে কঠিন। আমার কাছে মনে হয়, আগামী পাঁচ দিন আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই পাঁচ দিনে মনোযোগ দেওয়া জরুরি। প্রতিটি দিন মাঠে আমাদের কেমন মনোভাব থাকে বা কিভাবে আমরা ইতিবাচক থাকি, এটিই আসল। আমাদের পক্ষে ১০ দিন খেলা কঠিন বলে আমার কাছে মনে হয় না। ’ এদিকে শ্রীলঙ্কার হেড কোচ ক্রিস সিলভারউড অপেক্ষায় মিরপুরে আরো কঠিন লড়াইয়ে ম্যাচ রোমাঞ্চকর হয়ে ওঠার, ‘আমার মনে হয় না ম্যাচটি সহজ হবে। দুই দলই জিততে চায়। গত ম্যাচেও বেশ কঠিন লড়াই হয়েছে। খুব দ্রুত ম্যাচের পরিস্থিতি বদলে গেছে। বাংলাদেশ কখনো কখনো চড়ে বসেছে, আমরাও সেখান থেকে লড়াই করে ম্যাচে টিকে থেকেছি। এখানেও (মিরপুরে) এমনই হবে। এখানে হয়তো খেলা আরো গতিময়তার সঙ্গে সামনে এগোবে। এটির জন্য আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে। রোমাঞ্চকর ক্রিকেট দেখার জন্য আমি মুখিয়েই আছি। ’ বাংলাদেশও কি ‘শেষ সুযোগ’ কাজে লাগাতে মুখিয়ে নেই?



সাতদিনের সেরা