kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ২৬ মে ২০২২ । ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৪ শাওয়াল ১৪৪

ইয়াসিরের মরিয়া চেষ্টা

১৪ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ইয়াসিরের মরিয়া চেষ্টা

চট্টগ্রাম থেকে প্রতিনিধি : ওয়ার্ম আপ শেষে ফিল্ডিং প্র্যাকটিস করার কথা তখন ইয়াসির আলীর। কিন্তু তিনি মরিয়া চেষ্টায় ব্যস্ত বল হাতে। অধিনায়ক মমিনুল হকের নেটে অফস্পিন করছেন, প্রতিটি ডেলিভারির পর রি-অ্যাকশন দেখে মনে হবে ইয়াসির বুঝি বাংলাদেশ দলের নিয়মিত বোলার। নিদেনপক্ষে অলরাউন্ডার।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু আদতে তাঁকে নিখাদ ব্যাটারই মনে করে টিম ম্যানেজমেন্ট। সেই ‘ভুল’ ভাঙানোর সময় যে খুব বেশি হাতে নেই ইয়াসিরের। প্রথম শ্রেণির ৬২ ম্যাচে মাত্র ২ উইকেট পাওয়া চট্টগ্রামের এই তরুণের বোলিংয়ে আস্থা রাখার পক্ষে যুক্তিও খুব বেশি নেই। কিন্তু ইয়াসির চেষ্টা থামাবেন কেন? শিশুকাল থেকে পারিবারিকভাবেই হাল ছাড়ার ইতিহাস নেই তাঁদের! বাবা ব্যবসায়ী। কিন্তু একমাত্র ছেলেকে ক্রিকেটার বানানোর মিশনে ব্যবসা ফেলে ছুটেছেন জেলা থেকে জেলায়। ছেলে স্বাস্থ্যবান। তাতে কি। ‘বাবা শ্রীলঙ্কার অর্জুনা রানাতুঙ্গার ভক্ত ছিলেন’, ইয়াসিরের ভারী শরীর নিয়ে তাই বিচলিত ছিলেন না তাঁর বাবা। আর দশটা পরিবারের মতো একমাত্র ছেলেকে উচ্চশিক্ষায় পাঠিয়ে কিংবা নিজের ব্যবসার গদিতে বসিয়ে দিতে পারতেন ইয়াসিরের বাবা। কিন্তু সহজ সে পথে না হেঁটে একমাত্র ছেলেকে পেশাদার ক্রিকেটার বানানোর ঝুঁকি নিয়েছিলেন, মরিয়া চেষ্টা চালিয়েছিলেন ইয়াসিরের বাবা।

সেই বাবার সন্তান তো লক্ষ্যে অবিচল থাকবেনই। অভিব্যক্তি দেখে বোঝা যাচ্ছিল, কঠিন এই সিদ্ধান্তের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করতে রাসেল ডমিঙ্গোর পেশাদার মনোভাবেও চিড় ধরেছে, ‘বোলিং করতে পারে, এমন কাউকে আমাদের বিবেচনা করতে হবে। এটা আমাদের জন্যও খুব চ্যালেঞ্জিং। যেমন—আমাদের ইয়াসির (আলী) রাব্বি আছে, যে কিনা দুর্দান্ত পারফরম করছে। কিন্তু (সাকিব আল হাসান যদি না খেলতে পারে) আমাদের এমন একজনকে দরকার, যে কিনা ১০-১৫ ওভার বোলিং করতে পারে। ’ এই যুক্তিতে আগামীকাল চট্টগ্রামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শুরু হতে যাওয়া প্রথম টেস্টের একাদশে ইয়াসিরের জায়গায় অগ্রাধিকার পাচ্ছেন মোসাদ্দেক হোসেন। ম্যাচপূর্ব প্র্যাকটিসের রুটিন যদি একাদশ গঠনের ছবি হয়, তবে চট্টগ্রাম টেস্টে খেলা হচ্ছে না ইয়াসির আলীর। অবশ্য সাকিব আল হাসান আজকের ফিটনেস টেস্টে উতরে গেলে ভিন্ন কথা, খেলবেন ইয়াসিরই। তবে সাকিবের ফিটনেস নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্টের যে সংশয়ের কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলের হেড কোচ, তাতে ইয়াসিরের জায়গায় বোলিং বিকল্পও খুঁজতে হচ্ছে। সেই ছকে দেরিতে স্কোয়াডে ঢোকা মোসাদ্দেককে এগিয়ে রাখা হয়েছে।

নিশ্চিত জীবন ফেলে অনিশ্চয়তার ক্রিকেটে ক্যারিয়ার গড়তে আসা ইয়াসির এতে দমবেন কেন? প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে মাত্র ২৭.৫ ওভার বোলিং করা তিনি এবার অফস্পিনেও ঝাঁপ দিলেন বলে! ছক ভেঙে বেরিয়ে পড়ার এই মানসিকতা তাঁর উত্তরাধিকারসূত্রে প্রাপ্ত।

 



সাতদিনের সেরা