kalerkantho

শুক্রবার ।  ২০ মে ২০২২ । ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩  

প্রিমিয়ারের সবার জন্য উন্মুক্ত জাতীয় দল

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

২২ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রিমিয়ারের সবার জন্য উন্মুক্ত জাতীয় দল

হাভিয়ের কাবরেরা গেলেন আবাহনী দর্শনে। যেতে চান প্রিমিয়ার ডিভিশনের সব ক্লাবে। উদ্দেশ্য ফুটবলারদের একটা বার্তা দেওয়া। জাতীয় দলের ভেতর-বাহিরের সব খেলোয়াড়ের সঙ্গে সুসম্পর্ক রাখতে চান নতুন স্প্যানিশ কোচ।

বিজ্ঞাপন

সম্পর্কের উদ্দেশ্য হলো জাতীয় দলের দুয়ার সবার জন্য উন্মুক্ত।

বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নেওয়ার পর নতুন কোচ গতকাল হাজির হয়েছেন ঐতিহ্যবাহী আবাহনী ক্লাবে। খেলোয়াড়দের অনুশীলন দেখে হাভিয়ের কাবরেরা বলেছেন, ‘আবাহনী ক্লাবে এসে আমার ভালোই লাগছে। মারিওর (আবাহনী কোচ) সঙ্গে কথা হয়েছে। তাদের অবকাঠামো, খেলা সব কিছুই প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। খেলোয়াড়রা তৈরি হচ্ছে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ লিগ খেলার জন্য। এভাবে প্রিমিয়ারের ক্লাবগুলোতে আমি যেতে চাই। ক্লাব ও খেলোয়াড়দের সম্পর্কে জানা এবং তাদের রোজকার কর্মকাণ্ড সর্বোপরি প্রিমিয়াার ক্লাবগুলোর সঙ্গে জাতীয় দলের একটা সম্পর্ক থাকা জরুরি। ’ কাবরেরা আসলে জানতে চান এ দেশের ফুটবল সংস্কৃতি। ক্লাব ফুটবলারদের উঠে আসা এবং অনুশীলন ছাড়াও থাকা-খাওয়াসহ সব কিছু নিয়ে তাঁর সম্যক ধারণা থাকা দরকার। এতে করে ক্লাব ও ক্লাবের কোচ-ফুটবলারদের সঙ্গে একটা চমৎকার সেতুবন্ধ তৈরি হয় জাতীয় দলের কোচের সঙ্গে। এই সম্পর্কের জোরে তিনি চাইলে পরামর্শও দিতে পারবেন ক্লাব কোচকে।

৩৭ বছর বয়সী এই স্প্যানিশ খেলোয়াড়-কোচের সুসম্পর্কের বিষয়টিকে খুব গুরুত্ব দেন, ‘খেলোয়াড়দের সঙ্গে কোচের সুসম্পর্ক থাকবে, এটাই আমি বিশ্বাস করি। শুধু জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে কোচের সম্পর্ক নয়, যারা বাইরে থাকবে তারাও যেন অনুভব করে তাদের দলে ঢোকার সুযোগ আছে। ’ সুতরাং প্রিমিয়ারের সব ফুটবলারের জন্য তিনি উন্মুক্ত করে দিয়েছেন জাতীয় দলের দুয়ার। ঘরোয়া ফুটবলে ভালো পারফরম করা, অর্থাৎ নতুন কোচের চোখে যাঁরা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ফুটবল খেলতে পারবেন তাঁরাই তাঁর পছন্দের, ‘প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ফুটবলার চাই আমি। আগেও বলেছি সংবাদ সম্মেলনে। বিপিএল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ লিগ। শৃঙ্খলাপরায়ণ ফুটবলার চাই। ম্যাচের চাহিদা অনুযায়ী খেলতে পারে এবং ম্যাচ জেতাবে—এ রকম খেলোয়াড় আমি চাই। ’ 

ম্যাচ জেতানোর খেলোয়াড় তৈরি করাই হলো চ্যালেঞ্জিং। মানসম্পন্ন খেলোয়াড় থাকলে বাংলাদেশের সাফল্য আগেই আসত। এ জন্য কোচ হাই পারফরম্যান্স অবকাঠামোর প্রয়োজনীয়তার কথা আবারও বলেছেন, ‘হাই পারফরম্যান্স অবকাঠামো হলো কিভাবে আমরা তৈরি হব। টেকনিক্যাল, ট্যাকটিক্যাল, বিশ্লেষণ, মেডিক্যাল সব কিছুর ভেতর দিয়েই দলটি তৈরি হবে। জাতীয় দলের জন্য এ রকম একটা প্ল্যাটফর্ম লাগবে। ’



সাতদিনের সেরা