kalerkantho

বুধবার ।  ১৮ মে ২০২২ । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩  

নেতিবাচকতা থেকে দূরে বিপিএল

১৮ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নেতিবাচকতা থেকে দূরে বিপিএল

ছবি : কালের কণ্ঠ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বিপিএলের রসায়নই অন্য রকম! ব্যক্তিগত দূরত্বের দেয়াল উঠে যায় চোখের পলকে। এমনকি অব্যবস্থাপনা নিয়েও জোরালো অভিযোগ ওঠে না। শুধু পারিশ্রমিক পরিশোধে নয়-ছয় হলেই নেতিবাচক খবরে ঢুকে পড়ে দেশের ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি আসরটি।

অব্যবস্থাপনা বিপিএলের পুরনো একটি সমস্যা।

বিজ্ঞাপন

প্রতিবছরই ফ্র্যাঞ্চাইজি তালিকায় অদলবদল হয়। টুর্নামেন্ট বাইলজে ফাঁকফোকর থাকে। এমন বিবিধ সমস্যার মধ্যেই মাঠে গড়ালে বিপিএলের দর্শকপ্রিয়তা হু হু করে বাড়ে। তাই ডিআরএস না থাকার মতো ঘাটতিও নীরবে মেনে নেয় দলগুলো। মিরপুরের একাডেমি মাঠে সবগুলো দলের অনুশীলনের জটলা থেকেও সংবাদমাধ্যমের চোখ খুঁজে নেয় তারকাদের।

গতকাল তারকামহলে দুটি শোডাউন হয়েছে। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস উড়িয়ে এনেছে জাতীয় দলের সাবেক কোচ স্টিভ রোডসকে। জানা গেছে, এত দিনের কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন শুরুতে দায়িত্ব নিতে গড়িমসি করায় জাতীয় দলের এক মহাতারকার মাধ্যমে যোগাযোগ করে রোডসের সঙ্গে। দুইবারের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লার হেড কোচ হওয়ার প্রস্তাবে রাজিও হয়ে যান রোডস। কিন্তু সালাউদ্দিনকে পুরনো দায়িত্বে ফেরত পেয়ে এই ইংলিশম্যানকে নতুন পরিচয় দিয়েছে ভিক্টোরিয়ানস, পরামর্শক।

সেই স্টিভ রোডস গতকালই প্রথম ফ্র্যাঞ্চাইজির অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন। সালাউদ্দিনের সঙ্গে কাজও করেছেন। তবে ভিক্টোরিয়ানস কোচের চেয়ে মাশরাফি বিন মর্তুজা ও মাহমুদ উল্লাহর সঙ্গে রোডসের ফ্রেমটাই সবচেয়ে আকর্ষক। ২০১৯ বিশ্বকাপের পর রোডসকে যেভাবে বিদায় জানিয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি), তা যথেষ্টই অপমানসূচক। তখন অধিনায়ক মাশরাফি, মাহমুদ সিনিয়র ক্রিকেটারদের একজন। কথিত আছে, রোডসের বিব্রতকর বিদায়ে তারকা ক্রিকেটারদের কিছু ‘ইনপুট’ ছিল। যদিও গতকাল হাসিমুখে আড্ডা দিতেই দেখা গেছে এই ত্রয়ীকে।

দিনের দ্বিতীয় সেরা ফ্রেমটা সাকিব আল হাসানের। জাতীয় দলের প্র্যাকটিস জার্সি গায়ে নেট করেছেন ফরচুন বরিশালের অধিনায়ক। অবশ্য তিনি কেন, বিপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর জার্সি তৈরিতে বরাবরই দেরি হয়। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস ছাড়া আর কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজিকে এখনো দলীয় জার্সিতে অনুশীলনে দেখা যায়নি। অবশ্য জার্সি যাঁদের দরকার, সেই ক্রিকেটারদের তরফে এটা নিয়ে কোনো আক্ষেপ নেই।

বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল এই টুর্নামেন্টে ঢোকার সময়টায় কোনো নেতিবাচকতাকে মনে ঠাঁই দিতে নারাজ, ‘প্রথম ছয়-সাতটা প্রশ্নের সবগুলোই নেতিবাচক। একটায়ও ইতিবাচক কথা নেই! দেখুন, ঘাটতি অবশ্যই থাকবে। সব জায়গায়ই ঘাটতি থাকে। কোন পরিস্থিতিতে এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হচ্ছে, এটা বুঝতে হবে। ’

বিপিএল শুরুর আগে তেমন সুখবরের একটি, প্রায় সব ফ্র্যাঞ্চাইজিই দল গুছিয়ে নিয়েছে। আসতে শুরু করেছে বিদেশি ক্রিকেটাররা।

প্লেয়ার্স ড্রাফট থেকে সবচেয়ে আকর্ষক ফ্র্যাঞ্চাইজি মিনিস্টার ঢাকা। মাশরাফি, তামিম ও মাহমুদ উল্লাহ আছেন যে এই দলে। গত রাতে হোটেলে উঠেও গেছে দলটি। দুটি স্যুট রুম বরাদ্দ আছে। একটি অধিনায়ক মাহমুদ উল্লাহর। অন্যটিতে কে উঠেছেন—মাশরাফি নাকি তামিম? ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটের জমকালো বাজারে এই প্রশ্নের উত্তরেরও বিস্তর দাম!



সাতদিনের সেরা