kalerkantho

বুধবার ।  ২৫ মে ২০২২ । ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩  

অস্ট্রেলিয়া ছাড়তেই হলো জোকোভিচকে

১৭ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অস্ট্রেলিয়া ছাড়তেই হলো জোকোভিচকে

শেষ হলো ১০ দিনের নাটক। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলার শেষ আশাটুকুও শেষ হয়ে গেছে নোভাক জোকোভিচের। দ্বিতীয়বার ভিসা আপিলের বিপক্ষে ২০ গ্র্যান্ড স্লামজয়ী এই কিংবদন্তি আপিল করেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল আদালতে। শুনানির পর গতকাল তাঁর আপিল খারিজ করে দেন তিন সদস্যের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ।

বিজ্ঞাপন

তাই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে শিরোপা ধরে রাখার অভিযানে নামা হচ্ছে না বিশ্বসেরা এই টেনিস তারকার। আটক থাকার পর ছাড়তে হয়েছে অস্ট্রেলিয়াও।

আদালতের রায় মেনে নিয়েছেন জোকোভিচ। অস্ট্রেলিয়া ছাড়তে সংশ্লিষ্ট সব বিভাগকে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন হতাশা নিয়ে, ‘ভিসা বাতিল নিয়ে যে আবেদন করেছিলাম, আদালত সেটা বাতিল করায় সত্যিই হতাশ আমি। এর অর্থ অস্ট্রেলিয়া থাকতে পারছি না। অংশও নিতে পারছি না অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে। আদালতের সিদ্ধান্তের প্রতি আমি শ্রদ্ধাশীল। এই দেশ থেকে চলে যেতে সব রকম সাহায্য করতে চাই যথাযথ কর্তৃপক্ষকে। ’

গতকাল স্থানীয় সময় রাত ১০টা ৩০ মিনিটে মেলবোর্ন থেকে দুবাই চলে গেছেন জোকোভিচ। আদালতে হেরে যাওয়ায় অস্ট্রেলিয়ার সরকার চাইলে তিন বছর নিষিদ্ধও করতে পারে তাঁকে। এমন কিছু হলে আগামী তিন বছর অস্ট্রেলিয়ান ওপেন খেলতে পারবেন না ৯ বার এই গ্র্যান্ড স্লাম জেতা তারকা।

টিকা না নিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় জোকোভিচের থাকা নিয়ে তোপের মুখে পড়েছিল দেশটির সরকার। আদালত আপিল খারিজ করায় তাই স্বস্তি ঝরল অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনের কণ্ঠে, ‘জনগণের নিরাপত্তায় সীমান্ত সুরক্ষিত রাখতে চাই আমরা। ’ উল্টো সুর সার্বিয়ার প্রধানমন্ত্রী আনা ব্রানাভিচের কণ্ঠে, ‘ওরা একের পর এক মিথ্যা বলে চলেছে। ’ সার্বিয়ার প্রেসিডেন্ট আলেকজান্দার ভাসিচও একহাত নিলেন অস্ট্রেলিয়ার সরকারকে, ‘ওরা ভেবেছে অপমানিত করা হলো জোকোভিচকে। আসলে অপমানিত হয়েছে অস্ট্রেলিয়াই। জোকোভিচ মাথা উঁচু করে আসবে সার্বিয়ায়। ’

হতাশা জানিয়েছে ছেলেদের টেনিসের নিয়ন্ত্রক সংস্থা এটিপিও, ‘জোকোভিচ টেনিসের কিংবদন্তি। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে ওর না থাকাটা টেনিসকেই পিছিয়ে দেবে। ’ অস্ট্রেলিয়ার প্রধান বিচারপতি জেমস অ্যালসপ আপিল খারিজের পর বলেছেন, ‘তাঁর মতো ক্রীড়াঙ্গনের এক মহাতারকা যে উদাহরণ সৃষ্টি করলেন, সেটা তরুণদের জন্য অনুসরণীয় নয়। ’ যেভাবে পুরো ব্যাপারটা ঘটেছে, সেটা মানতে পারছেন না  সাবেক নাম্বার ওয়ান অ্যান্ডি মারে, ‘সব কিছু এখানে ঘটেছে একেবারে শেষ বেলায়। এ জন্যই এমন বিশৃঙ্খলা হলো। ’

জোকোভিচ খেলতে না পারায় কপাল খুলেছে ১৫০ নম্বর র‌্যাংকিংয়ে থাকা ইতালির সালভাতোরে কারুসোর। জোকোভিচের জায়গায় আজ প্রথম রাউন্ডে মায়ামির কেকমানোভিচের মুখোমুখি হবেন তিনি। এএফপি, বিবিসি

৬ জানুয়ারি : করোনার টিকা না নিয়ে আসায় জোকোভিচকে আটকে রাখা হয় মেলবোর্নের পার্ক হোটেলে।

১০ জানুয়ারি : বিচারক অ্যান্থনি ক্যালির আদেশে অনুমতি পান অস্ট্রেলিয়ায় থাকার।

১৪ জানুয়ারি : অভিবাসনমন্ত্রী অ্যালেক্স হকে দ্বিতীয় দফা বাতিল করেন জোকোভিচের ভিসা।

১৫ জানুয়ারি : আবারও আটক হয়ে পার্ক হোটেলে জোকোভিচ।

১৬ জানুয়ারি : খারিজ হয় জোকোভিচের আপিল। তাই খেলতে পারবেন না অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে।



সাতদিনের সেরা