kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ মাঘ ১৪২৮। ২০ জানুয়ারি ২০২২। ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

আবারও ভিসা বাতিল জোকোভিচের

১৫ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আবারও ভিসা বাতিল জোকোভিচের

মুক্তি পেয়ে মেলবোর্নে তিনি। শুরু করেছেন অনুশীলন। তাঁকে নিয়ে হয়ে গেছে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ড্র-ও। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ান ওপেন খেলা হবে তো নোভাক জোকোভিচের? নাটকের নতুন অধ্যায় শুরু গতকাল। দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বের এক নম্বর এই টেনিস তারকার ভিসা বাতিল করেছে অস্ট্রেলিয়ার সরকার। অস্ট্রেলিয়ার একটি আদালতের রায়ে ভিসা বাতিল স্থগিত হলেও গতকাল অভিবাসনমন্ত্রী অ্যালেক্স হকে নিজের বিশেষ ক্ষমতা প্রয়োগ করে বাতিল করেছেন জোকোভিচের ভিসা। অস্ট্রেলিয়ার আইন অনুযায়ী ‘স্বাস্থ্য নিরাপত্তা ও সামাজিক শৃঙ্খলার’ জন্য কাউকে ঝুঁকিপূর্ণ মনে হলে তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারেন অভিবাসনমন্ত্রী। করোনার টিকা না নেওয়ায় জোকোভিচ দেশটির জনগণের জন্য হুমকি আখ্যায়িত করে অভিবাসনমন্ত্রী অ্যালেক্স হকের বিবৃতি, ‘জোকোভিচের ভিসা বাতিল করা হয়েছে স্বাস্থ্যগত ভিত্তির কারণে।’

ভিসা বাতিল হলেও গতকাল জোকোভিচকে অস্ট্রেলিয়া থেকে সার্বিয়ায় পাঠানো হয়নি। কারণ এর বিপক্ষে আপিল করেছেন জোকোভিচের আইনজীবীরা। তাঁদের আশা বাতিল হবে দ্বিতীয় দফা ভিসা বাতিলের নির্বাহী আদেশ। তাঁর আইনজীবী নিকোলাস উড অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল সার্কিট ও ফ্যামিলি কোর্টকে জানিয়েছেন, ‘টিকা না নেওয়ার জন্য নয়, টিকাবিরোধী অনুভূতি উত্তেজনা ছড়াতে পারে বলেই ভিসা বাতিল করা হয়েছে। এটা স্পষ্টই যুক্তিহীন।’ আপিলের ওপর শুনানি অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল। রায় পক্ষে এলে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন খেলতে বাধা নেই জোকোভিচের। তবে নির্বাহী আদেশ বহাল থাকলে আগামী তিন বছর হয়তো অস্ট্রেলিয়া যেতে পারবেন না তিনি। আপিল শুনানির আগে আজ গ্রেপ্তার হওয়ার শঙ্কাও আছে জোকোভিচের।

জোকোভিচের খেলতে পারা না-পারা নিয়ে দুই রকম মতামত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন বিভাগের সাবেক উপসচিব আব্দুল রিজভি জানাচ্ছেন, ‘টেনিস খেলা অনেকের কাছে চাকরি নয়, তবে জোকোভিচের এটাই কাজ। আপিল বিভাগ এটা বিবেচনায় নিলে ব্রিজিং ভিসায় অস্ট্রেলিয়ায় থেকে খেলার সুযোগ পেতে পারেন তিনি।’ তবে মেলবোর্নের অভিবাসনবিষয়ক আইনজীবী কিয়ান বোনে বললেন উল্টোটা, ‘জোকোভিচের আইনজীবীদের জন্য কাজটা কঠিন। খেলার অনুমতি পাওয়া সহজ হবে না।’

অস্ট্রেলিয়ায় কোনো বিদেশির আসার জন্য দুই ডোজ টিকা নেওয়া বাধ্যতামূলক। জোকোভিচ টিকা নেননি। তাঁর আইনজীবীদের দাবি ১৬ ডিসেম্বর করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর দুই সপ্তাহ পেরিয়ে যাওয়ায় টিকা নেওয়ার দরকারও নেই। এই সময়ে তিনি কোথাও সফর করেননি। তবে আক্রান্ত হওয়ার পরদিনই একটি অনুষ্ঠানে শিশুদের সঙ্গে সময় কাটিয়েছেন তিনি। সরাসরি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন লেকিপকে। ভ্রমণ করেছেন স্পেনেও। ফরমের এই ভুলটা তাঁর এজেন্ট করেছেন বলে এটাকে ‘মানবিক ভুল’ বলে জানিয়েছেন জোকোভিচ। তবে শেন ওয়ার্নের মতো কিংবদন্তি এ জন্য ‘মিথ্যাবাদী’ বলেছেন তাঁকে। এএফপি



সাতদিনের সেরা