kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

‘নতুন’ আবাহনী

এবার আরো শক্তিশালী কিংস

২৬ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এবার আরো শক্তিশালী কিংস

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বসুন্ধরা কিংস সেই আগের মতোই সেরা দল নিয়ে দলবদলে। চ্যাম্পিয়নদের চেহারা এতটুকু মলিন না হলেও প্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনী জেগে উঠেছে ‘বার্ধক্য’ ঝেড়ে। ঘরের মাঠে টানা ব্যর্থতার পর ‘বুড়ো’দের বিদায় দিয়ে তারুণ্যে মজেছে আকাশি-নীল শিবির।

২০১৮-১৯ মৌসুম থেকে তারুণ্যের জয়জয়কার বসুন্ধরা কিংসে। দেশি তরুণ আর দুর্দান্ত বিদেশির সম্মিলনে সেই অভিষেক মৌসুম থেকে তারা শিরোপায় রাঙা। পরের লিগটি করোনায় মাঝপথে বাতিল হওয়ার পর গত বছরও সেরার মুকুট তাদের মাথায়। এবার জিতলে হবে হ্যাটট্রিক শিরোপা। এই স্বপ্ন নিয়ে কিংস গতকাল ৩৩ ফুটবলারের নাম নিবন্ধন করিয়েছে। চারজন একেবারে নতুন, বিকেএসপির। পুরো মৌসুমে তাঁরা ম্যাচ পাবেন কি না, তা নিয়ে সংশয় থাকলেও বাকি চারজনের অন্তর্ভুক্তি খুব গুরুত্বপূর্ণ। দুই ডিফেন্ডার ইয়াসিন আরাফাত ও মেহেদী হাসান, মিডফিল্ডার সোহেল রানা ও ফরোয়ার্ড সুমন রেজায় চ্যাম্পিয়নদের শক্তি বেড়েছে।

আবাহনী ছেড়ে সোহেল রানা হতে পারেন কিংসের মাঝমাঠের নতুন ভরসা। ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার জোনাথন ফের্নান্দেজের সঙ্গে যোগ হচ্ছেন বসনিয়ান অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার এস্তোয়ান ব্রাঞ্জেস। সুবাদে এই ত্রয়ীতে হতে পারে কিংসের মাঝমাঠে নতুন সাজ, এতে বদলে যেতে পারে চ্যাম্পিয়নদের খেলার স্টাইলও। তাতে গত লিগে সর্বোচ্চ ২১ গোল করা ব্রাজিলিয়ান রবসন রোবিনহোর গোলের পথ আরো সুগম হবে। ভালো সুযোগ বাংলাদেশি স্ট্রাইকার এলিটা কিংসলের জন্যও। কিংস সভাপতি ইমরুল হাসানও মনে করেন, ‘গতবারের চেয়ে এবার দলের শক্তি বেড়েছে। কয়েকজন বেঞ্চের ফুটবলারকে ছেড়ে আমরা বিভিন্ন ক্লাব থেকে যে চারজনকে নিয়েছি, তারা ভালো খেলবে আশা করি। এ ছাড়া এস্তোয়ান ব্রাঞ্জেস ফাইনাল পাস দেওয়ার পাশাপাশি গোলও করতে পারে।’

এদিকে কিংসের ইতিহাস গড়ার অন্যতম কারিগর ড্যানিয়েল কলিনদ্রেস এবার আবাহনী শিবিরে। এই কোস্টারিকান বিশ্বকাপারকে গতকাল নিয়ে এসেছে আবাহনী। আগামী শনিবার শুরু হওয়া স্বাধীনতা কাপে ৩৬ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডকে দেখা যাবে আকাশি-নীল জার্সিতে। মাঠে তাঁর সঙ্গী হবেন চীনে খেলা ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার ডরিয়েল টন। এ ছাড়া মধ্যমাঠের কারিগর ব্রাজিলিয়ান রাফায়েল আগুস্তোকে রেখে দিয়েছে আবাহনী।

নতুন মৌসুমের জন্য গতকাল ৩০ ফুটবলারের নাম নিবন্ধন করেছে তারা। তিন নতুন বিদেশির সঙ্গে যোগ হয়েছে দেশি তারুণ্য। সুশান্ত, মনির, নুরুল নাঈম ফয়সাল, রাকিব, রয়েল, প্রিতমে নবজাগরণের প্রত্যাশায় আছে ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। ‘বার্ধক্য’ ঝেড়ে নতুন সাজে জেগে ওঠার কথা বলছেন আবাহনী ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রূপু, ‘রায়হান, মামুনুল, নাসির, ওয়ালিদের আগেভাগে ক্লাব থেকেই না করে দেওয়া হয়েছিল। তাদের জায়গায় অনেক নতুন ফুটবলারকে নেওয়া হয়েছে। ভালো বিদেশিও আনা হয়েছে। তারা এখন মাঠে কতটা কী করতে পারে, দেখা যাক।’ একদম খোলনলচে বদলে ফেলা আবাহনী তৈরি হচ্ছে চ্যাম্পিয়নদের কিং ব্র্যান্ড ফুটবলকে চ্যালেঞ্জ জানানোর জন্য।



সাতদিনের সেরা