kalerkantho

শুক্রবার । ১৪ মাঘ ১৪২৮। ২৮ জানুয়ারি ২০২২। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ভারতের চাই ১৩৩ রান

ম্যাচ রিপোর্ট

৯ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভারতের চাই ১৩৩ রান

শেষ হলো বিরাট কোহলি-রবি শাস্ত্রী যুগ। টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক হিসেবে গতকালই ভারতের হয়ে শেষবার টস করতে নেমেছিলেন কোহলি। আর প্রধান কোচ হিসেবে ডাগআউটে শেষবার বসেছিলেন শাস্ত্রী। চুক্তি শেষ হওয়ায় নতুন কোচ হিসেবে রাহুল দ্রাবিড়কে নিয়োগও দিয়ে ফেলেছে বিসিসিআই।

বিজ্ঞাপন

এমন ম্যাচে টস জিতে নামিবিয়াকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান কোহলি। আইসিসির সহযোগী এই দেশ ৮ উইকেটে করেছে ১৩২ রান। ডেভিড ওয়াইজ ২৬, স্টিফেন বার্ড করেন ২১ রান। ৩টি করে উইকেট রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবীন্দ্র জাদেজার।

নিউজিল্যান্ডের কাছে আফগানিস্তান হারার পরই নিশ্চিত হয়ে যায় ভারতের বিদায়। গতকাল সুপার টুয়েলভের শেষ ম্যাচটি ছিল তাই শুধুই আনুষ্ঠানিকতা। ফেভারিট হয়ে এসে এভাবে বাদ পড়ার জন্য অনেকে দায়ী করেছেন আইপিএলকে। এ জন্য সতর্ক করলেন ১৯৮৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক কপিল দেব, ‘খেলোয়াড়রা যখন দেশের বদলে আইপিএলকে বেশি গুরুত্ব দেয়, তখন আর কী বলার থাকে। আমি খেলোয়াড়দের আর্থিক অবস্থা জানি না, তাই বেশি বলতে চাই না। বলছি না যে আইপিএল খেলো না। তবে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করা বেশি গুরুত্ব পাওয়া উচিত। বিসিসিআইকে সমন্বয় করতে হবে এটা। এবারের ভুল থেকে শিক্ষা নিতে হবে। ’

ভারতীয় কিংবদন্তি সুনীল গাভাস্কার অবশ্য আইপিএল প্রসঙ্গ পাশ কাটিয়ে গেছেন। তিনি দায় দিচ্ছেন ব্যাটারদের, ‘পাকিস্তান আর নিউজিল্যান্ড আমাদের ব্যাটারদের আটকে রেখেছিল। হাত খুলে খেলতে দেয়নি। শেষ দিকে শিশির বড় ভূমিকা রেখেছে। বল টার্ন করেনি। তার পরও শুরুতে ১৮০ রান করলে লড়াই করার ভিত পেত বোলাররা। কিন্তু যখন আপনি ১১১ করবেন (নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে), তখন শিশিরকে দোষ দেওয়া যাবে না। আমরা রান পাইনি তাই বিদায় নিয়েছি। ’

কোহলি-শাস্ত্রী যুগের পর কি নতুনভাবে শুরু করবে ভারত? পুরনোদের ছেঁটে ফেলে দলে আনবে তরুণদের? গাভাস্কার অবশ্য ব্যাপক পরিবর্তনের বিপক্ষে, ‘পুরো দল বদলে ফেলার দরকার নেই। খেলার ধরন বদলাতে হবে আপনাকে। পাওয়ার প্লের সুবিধা নিতে হবে, যা গত কয়েকটি বিশ্বকাপে ভারত নিতে পারেনি। এটাই পরিবর্তন করতে হবে আমাদের। ’ বিদায় বেলায় রাহুল দ্রাবিড়ের জন্য শুভ কামনা জানালেন রবি শাস্ত্রী, ‘ভারতীয় দলের মানকে রাহুল আরো উঁচুতেই নিয়ে যেতে পারে। আমরা হারতে ভয় পাই না। জেতার চেষ্টা করলে আপনি হারতে পারেন। এখানে আমরা জেতার চেষ্টাই করিনি, কারণ একটা এক্স ফ্যাক্টরের অভাব ছিল। বিশ্বকাপ আর আইপিএলের মাঝে সময় রাখা উচিত ছিল, যা রাখা হয়নি। ’ ক্রিকইনফো



সাতদিনের সেরা