kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

প্রিভিউ

আবার ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ

২৩ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আবার ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ

শুরুতেই রুদ্ধশ্বাস লড়াই মনে করিয়ে দেওয়া ম্যাচ। গত আসরের দুই ফাইনালিস্ট মুখোমুখি এবার মূল আসরের প্রথম দিনই। টেস্ট আর ওয়ানডেতে সেই দাপট আর নেই। তবে টি-টোয়েন্টির বাজারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কদর সবচেয়ে বেশি। আর আজ তাদের প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড ওয়ানডের বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। কুড়ি-বিশ ক্রিকেটেও তাদের দাপট আছে। আর ২০১৬ সালের রোমাঞ্চকর ফাইনালের স্মৃতি তো থাকছেই জ্বালানি হিসেবে।

একদিকে ক্রিস গেইল, কিয়েরন পোলার্ড, আন্দ্রে রাসেল, ডোয়াইন ব্র্যাভোর মতো তারকারা, অন্যদিকে এউইন মরগান, জস বাটলার, জনি বেয়ারস্টো, লিয়াম লিভিংস্টোনদের মতো পারফরমার। ২০১৬ সালের সেই ফাইনালের পর দুই দলেরই শক্তি বৃদ্ধি ঘটেছে। লিভিংস্টোন, টাইমাল মিলসরা টি-টোয়েন্টিতে নতুন করে নিজেদের মেলে ধরার পথে। শিমরন হেটমায়ার, নিকোলাস পুরানরাও ক্যারিবীয়দের বৈচিত্র্যই শুধু বাড়িয়েছেন। তার পরও বেন স্টোকস, কার্লোস ব্রাথওয়েটকে আজ মনে পড়বে ক্রিকেট রোমান্টিকদের। স্টোকসের করা শেষ ওভারে ব্রাথওয়েটের চার ছক্কা হাঁকানোর প্রতিটা ফ্রেম এখনো স্মৃতিতে তাজা! এই দুজনের কেউই আজকের ম্যাচে নেই। স্টোকস সেই ফাইনালের দুঃস্বপ্ন মুছেছেন পরে ওয়ানডের ফাইনাল জিতে। প্রথম কোনো দল হিসেবে ওয়ানডের পর টি-টোয়েন্টিরও শিরোপা জেতার আশায় এখন ইংল্যান্ড। ক্যারিবীয়দের সামনেও ইতিহাসে হাতছানি, প্রথম দল হিসেবে টি-টোয়েন্টির শিরোপা ধরে রাখার।

তবে সেই হিসাব তো পরে, আজ টি-টোয়েন্টির বর্তমান নাম্বার ওয়ান ও বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের মুখোমুখি লড়াইয়ে যে ব্যাটে-বলে আগুন ঝরবে, কোনো সন্দেহ নেই। আজও ব্রাথওয়েটের মতো কেউ অন্য সবাইকে ম্লান করে দেন কি না সেটাই দেখার। ইডেনের ফাইনালে খেলা স্যামুয়েল বদ্রির মতে, ‘গেইল, পোলার্ড, ব্রাভোদের যে কেউই পার্থক্য গড়ে দিতে পারে। তবে এগিয়ে যাওয়ার লড়াইটা হবে শুরু থেকেই। যারা ভালো শুরু পাবে তারাই ম্যাচটা শেষ করে দিতে পারে।’ স্টোকসের বদলে ক্রিস ওকস ইংল্যান্ড দলে ঢুকেছেন। জোফ্রা আর্চারের না থাকাটা পুষিয়ে দিতে পারেন মিলস। তবে আদিল রশিদ ও মঈন আলী গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবেন আমিরাতের স্পিন-সহায়ক উইকেটে। ক্যারিবীয় পাওয়ার হিটারদের থামানোটাই পাঁচ বছর পরও মূল চ্যালেঞ্জ ইংলিশ বোলারদের জন্য।

২০১৬ ফাইনালের পর আরো চারবার দেখা হয়েছে দুই দলের। তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ জিতেছে মাত্র একটি ম্যাচ, ২০১৭ সালে তাদের ইংল্যান্ড সফরের একমাত্র টি-টোয়েন্টিটিতে। দুই বছর পর ক্যারিবীয়দের মাটিতে ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ জয় ইংলিশদের আত্মবিশ্বাসের খোরাক জোগাতেও পারে। ক্রিকইনফো



সাতদিনের সেরা