kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

তাঁদের চোখে বাংলাদেশের সম্ভাবনা

শুরুটা ভালো না হলেও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০২১-এর সুপার টুয়েলভে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশ দল। এবার আসল বিশ্বকাপের মঞ্চে নিজেদের সামর্থ্য উজাড় করে দেওয়ার পালা। এই পর্বে কেমন করবেন মাহমুদ উল্লাহরা? দেশের সাবেক পাঁচ ক্রিকেটারের কাছে এই প্রশ্নটিই রেখেছেন রাহেনুর ইসলাম

২৩ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



তাঁদের চোখে বাংলাদেশের সম্ভাবনা

রকিবুল হাসান

শাপে বর হয়েছে বাংলাদেশের

ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তানের সঙ্গে খেলার সূচি ছিল বাংলাদেশের। আইসিসি মাঝপথে সূচি বদলেছে। এটাকে বাংলাদেশের জন্য শাপে বর বলব। অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আরব আমিরাতের কন্ডিশনে আমরা ফেভারিট। গরম আর ধীর গতির উইকেটে ভালো করার সুযোগ আছে মাহমুদ উল্লাহর দলের। পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদ মনের কষ্টের কথা তুলে ধরেছে। প্রথম ম্যাচ হারার পর খেলোয়াড়দের তীব্রভাবে আক্রমণ করেছিলেন অনেকে। অবশ্যই খারাপ করলে দলের সমালোচনা হওয়া দরকার, তবে সেটা গঠনমূলক হলে ভালো হয়। খেলোয়াড়রা নিজেদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করে। এটা ওদের রুটি, রুজি।

সাবেক অধিনায়ক

 

পাওয়ার প্লেতে পিছিয়ে পড়ছি

বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনাল খেলেছে। ওয়ানডে বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেললে অবাক হওয়ার কিছু নেই। এই ফরম্যাটে সবার সমান সুযোগ। তবে আমরা যেভাবে খেলছি, এভাবে খেললে হবে না। এটা পাওয়ার ক্রিকেট। অথচ প্রথম ৬ ওভারে রান পাচ্ছি না। এখানেই তো পিছিয়ে পড়ছি। আমরা অবশ্য দক্ষিণ আফ্রিকা আর শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ভালো খেলি। সেদিক থেকে এই দুটো দলকে পাওয়ায় ভালো হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডকে দেশের মাটিতে সিরিজে হারালাম। পাওয়ার হিটার না থাকলেও মাহমুদ, সাকিব, লিটন ও নাঈমরা ছন্দে থাকলে সেমিফাইনালের স্বপ্ন দেখাই যায়।

সাবেক ক্রিকেটার

 

খরচ কমাতে হবে মুস্তাফিজের

আইপিএলে খুব ভালো বল করেছে মুস্তাফিজুর রহমান। আমাদের ‘এক্স ফ্যাক্টর’ও। বিশ্বকাপে উইকেটেও পাচ্ছে। তবে আমার মনে হয়, মুস্তাফিজ রান একটু বেশি দিচ্ছে। ওমানের বিপক্ষে এক ওভারে পাঁচটি ওয়াইড একেবারে অপ্রত্যাশিত। খরচ কমাতে হবে মুস্তাফিজের। আরব আমিরাতে ওর কাটারগুলো দলকে জেতাতে পারে। মুশফিকুর রহিম খুব খারাপ সময়ে ছন্দ হারিয়েছে। ও দলের সেরা ব্যাটসম্যান। এই পর্বে মুশফিক যদি রানে ফেরে তাহলে আমি মনে করি দলের অনেক দূর যাওয়া সম্ভব। আমরা সবাই জানি, বাংলাদেশের ভালো করার সামর্থ্য আছে। সেমিফাইনালে খেলার সুযোগও আছে, তবে সহজ নয় ব্যাপারটা।

সাবেক ক্রিকেটার

 

মাহমুদদের মূল্যায়ন করে সবাই

একটা সময় টি-টোয়েন্টি ফরেম্যাটে আমরা পারতাম না। সেই ভীতি কাটিয়ে উঠেছি। বাংলাদেশ এখন এই ফরম্যাটের র‌্যাংকিংয়ে ৫-৬ নম্বরে থাকে। মাহমুদদের দলকে মূল্যায়ন করে সবাই। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডকে কদিন আগেই হারিয়েছি। আরব আমিরাতের কন্ডিশন আমাদের সাহায্য করবে। ধীরগতির উইকেট আর গরমে উপমহাদেশের বাইরের দলগুলোর মানিয়ে নেওয়া কঠিন। প্রস্তুতি ম্যাচেই আফগানিস্তান হারিয়ে দিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। আর বিরাট কোহলিকে ছাড়া অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে ভারত। আমরা এ থেকে আত্মবিশ্বাস পেতেই পারি। এই দলটার ওপর শতভাগ বিশ্বাস আছে আমার।

সাবেক ক্রিকেটার

 

অন্য মুশফিককেই দেখব

বিশ্বকাপ শুরুর অনেক আগে থেকেই বলে আসছি, বাংলাদেশ সেমিফাইনাল খেলবে। সেই সামর্থ্য আছে আমাদের। গ্রুপ পর্ব শেষ হওয়ার পরও একই কথা বলছি। তবে ওপেনিংটা ভালো হচ্ছে না আমাদের। লিটন সেরা ছন্দে নেই। সৌম্য প্রথম ম্যাচে রান না পেয়ে বাদ পড়েছে। নাঈম ফিফটি করার পরের ম্যাচে ভালো করতে পারেনি। তবে দলে এখন যা আত্মবিশ্বাস সেটা ওপেনারদের মাঝে ছড়িয়ে পড়তে সময় লাগবে না। ওদের ভালো একটা জুটি গড়া সময়ের অপেক্ষা শুধু। মুশফিকও দুর্দান্ত ব্যাটসম্যান। তবে ওকে ৮ নম্বরে খেলানোটা মানতে পারছি না। দলে থাকলে মুশফিক টপ অর্ডারেই খেলবে। আমার মনে হয়, সুপার টুয়েলভে অন্য মুশফিককেই দেখব।

সাবেক ক্রিকেটার



সাতদিনের সেরা