kalerkantho

শনিবার । ৩১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ অক্টোবর ২০২১। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ওমানে প্রস্তুতি ম্যাচ নিজেদের মধ্যেই

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : কথা ছিল, ওমানে স্থানীয় দলের বিপক্ষে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। তবে ৮ অক্টোবর সেই ম্যাচটি আর খেলা হচ্ছে না মাহমুদ উল্লাহদের। বায়ো বাবল বা জৈব সুরক্ষা বলয় ভঙ্গের সুযোগ থাকায় সেটি আর না খেলারই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির প্রধান আকরাম খান কাল জানিয়েছেন, ‘আমরা স্থানীয় দলের বিপক্ষে ম্যাচটি আর খেলছি না। কারণ সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে এ রকম ম্যাচ খেলা কঠিন।’

কঠিন কারণ, ম্যাচ খেলার আগে স্থানীয় দলের ক্রিকেটারদেরও সাত দিনের কোয়ারেন্টিন করাতে হবে। বর্তমান বাস্তবতায় বিশ্বকাপ আয়োজনকে সুরক্ষিত রাখতে আইসিসিও এই ধরনের ব্যবস্থাপনায় যেতে আগ্রহী নয়। আইসিসির নির্দেশনা অনুযায়ী সুরক্ষা বলয়ের বাইরে থাকা কারো সঙ্গে দেখা-সাক্ষাতেরও কোনো সুযোগ রাখা হয়নি। তাই এটি বাদ দিয়ে ৮ অক্টোবর বাংলাদেশ দল নিজেদের মধ্যেই একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা গেছে। যদিও ১৫ জনের মূল দলের সঙ্গে বাড়তি মাত্র দুজন ক্রিকেটার যাচ্ছেন বলে নিজেদের মধ্যে দুটি দল দাঁড় করানো কঠিনই। তবে দুই দল মিলিয়ে ২২ জন খেলোয়াড়ের ব্যবস্থা করতে হচ্ছে বিকল্প উপায়েই। ওমানে বাংলাদেশ দলের সঙ্গী হচ্ছেন সে দেশের জনা পাঁচেক বোলারও। তাঁরা মাহমুদ উল্লাহদের যাওয়ার আগে থেকেই হোটেলে কোয়ারেন্টিন শুরু করবেন বলে জানা গেছে। ৮ অক্টোবরের প্রস্তুতি ম্যাচে খেলবেন তাঁরাও।

৩ অক্টোবর রাতে রওনা হয়ে বাংলাদেশ দল ওমানের রাজধানী মাসকাট পৌঁছবে পরদিন। তবে বিশ্বকাপের অফিশিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে ৯ অক্টোবর তারা যাবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। ১২ ও ১৪ অক্টোবর আবুধাবিতে সেই দুই ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা ও আয়ারল্যান্ড। অবশ্য বিশ্বকাপের মূল ভেন্যু শেখ আবু জায়েদ স্টেডিয়ামে নয়, ম্যাচ দুটি হবে নবনির্মিত আবুধাবি ওভালের ১ ও ২ নম্বর মাঠে। ১৫ অক্টোবর আবার ওমানে ফিরবে বাংলাদেশ দল। ১৭ অক্টোবর প্রথম পর্বে তাদের অভিযান শুরু করবে স্কটল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে। ১৯ ও ২১ অক্টোবর পরের দুটি ম্যাচ ওমান এবং পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে।



সাতদিনের সেরা