kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ কার্তিক ১৪২৮। ২৮ অক্টোবর ২০২১। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

হকিতে খেলোয়াড় ‘ছিনতাই’

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : তিন বছর পর মাঠে গড়াবে হকি। এর আগেই উত্তাপ ছড়াতে শুরু করেছে হকির দলবদল। মেরিনার্সের খেলোয়াড়কে অপহরণ করেছে মোহামেডান—অভিযোগ তুলে গতকাল মেরিনার্স ক্লাব সংবাদ সম্মেলন করেছে।

তাদের অভিযোগ, ছিনতাই করা হকি খেলোয়াড়ের নাম সারোয়ার মুর্শেদ শাওন। আগের লিগে মেরিনার্সে খেলা শাওনকে নিয়ে ক্লাবের ম্যানেজার নজরুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেছেন, ‘মেরিনার্স গত ৯ সেপ্টেম্বর দুই লাখ টাকা অগ্রিম দিয়ে শাওনের সঙ্গে চুক্তি করে। গত ১৬ সেপ্টেম্বর তার নওগাঁ থেকে ক্লাবে আসার কথা। রওনা হওয়ার সময়ও তার সঙ্গে ফোনে কথা হয়; কিন্তু এক পর্যায়ে তাকে আর ফোনে পাওয়া যাচ্ছিল না। জানতে পারি, দুজন লোক বাসস্ট্যান্ড থেকে তাকে নিয়ে যায় এবং শাওন মোহামেডান ক্লাবে আছে।’ সংবাদ সম্মেলনে মেরিনার্স স্ট্যাম্পে তাঁর বাবার স্বাক্ষরসহ চুক্তিপত্র এবং স্বাক্ষরের ছবি সরবরাহ করে। সেই খেলোয়াড় মোহামেডানে আছেন শুনে মেরিনার্সের কর্মকর্তারা যোগাযোগ করেন সাদা-কালোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে। তাঁদের প্রতিশ্রুতি পেয়ে গত ১৭ সেপ্টেম্বর মেরিনার্স অপেক্ষা করতে থাকে শাওনের জন্য। এক পর্যায়ে রাতে মোহামেডান ক্লাবে গিয়ে তারা শাওনকে নিয়ে আসে এবং পরে মতিঝিল থানায় জিডি করতে গিয়েই পড়েছে আরেক দফা বিপাকে। ক্লাবের সহসভাপতি আলমগীর কবিরের দাবি, ‘শাওনকে থানায় নিয়ে যাওয়ার পর ওখানে মোহামেডানের ম্যানেজার আরিফুল হক প্রিন্সকে দেখা যায়। প্রচণ্ড চাপে রেখে শাওনের মুখ থেকে বলিয়ে নেওয়া হয় সে মোহামেডানে খেলতে চায়। এভাবে খেলোয়াড় ছিনতাই করে নিয়ে গেলে তো দল বদল করাই মুশকিল হয়ে পড়েছে।’

মোহামেডানের হকি কমিটির চেয়ারম্যান মঞ্জুর আলম মঞ্জুর দাবি, ‘একজন খেলোয়াড় নিজের মুখে বলেছে, সে মোহামেডানে খেলবে। এটা অপহরণ হয় কী করে। উল্টো মেরিনার্সের লোকজন আমাদের ক্লাবে গিয়ে ভাঙচুর করেছে, তার ফুটেজও আছে বলে আমাকে জানানো হয়েছে ক্লাব থেকে।’



সাতদিনের সেরা