kalerkantho

বুধবার । ৭ আশ্বিন ১৪২৮। ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৪ সফর ১৪৪৩

রোমানের পদক ধরে রাখার লড়াই

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রোমানের পদক ধরে রাখার লড়াই

ক্রীড়া প্রতিবেদক : অলিম্পিকের মতো এবারের বিশ্ব আর্চারি চ্যাম্পিয়নশিপে রোমান সানার অংশ নেওয়া আর বড় খবর নয়। বাংলাদেশের মাত্র দ্বিতীয় ক্রীড়াবিদ হিসেবে অলিম্পিকে নিজের যোগ্যতায়ই খেলেছেন রোমান। ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে যুক্তরাষ্ট্রে শুরু হতে যাওয়া বিশ্ব আর্চারিতে অংশ নিচ্ছেন তিনি সেই আসরের একজন পদকজয়ী হিসেবে।

২০১৯ সালে নেদারল্যান্ডসে হওয়া সর্বশেষ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের ব্রোঞ্জ জেতেন রোমান। বিশ্ব পর্যায়ে কোনো একক ইভেন্টে সেটিই প্রথম কোনো পদক বাংলাদেশের। সেই পদকজয়ী একজন হিসেবে এবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে পা রাখাটা রোমানের জন্য ভীষণ মর্যাদার। পাশাপাশি সেই মর্যাদা অক্ষুণ্ন রাখারও বড় একটা চাপ এখন তাঁর কাঁধে। রোমান জানেন চ্যালেঞ্জটা, ‘বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ সব সময়ই কঠিন। অলিম্পিকের পরই সবচেয়ে বড় আসর। এখানে পদক জিততে বা ধরে রাখতে হলে আমাকে কঠিন লড়াই-ই করতে হবে। আমি সর্বোচ্চটাই চেষ্টা করব।’ রোমানের কোচ জিয়াউর রহমানও (জাতীয় দলের সহকারী কোচ) মনে করেন বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের মতো আসর থেকে পদক জিতে ফেরার প্রতিশ্রুতি দেওয়াটা কঠিন। এই আসরে তিনি তাই রোমানের সেরাটাই আগে দেখতে চান, ‘দেখুন, ২০১৯ সালে রোমান যখন নেদারল্যান্ডসের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপটা খেলে তখন ও ছিল ফর্মের তুঙ্গে। তার আগে অনেকগুলো টুর্নামেন্ট খেলে ও একেবারে ঝরঝরে হয়ে ছিল। মাঝখানে করোনায় লম্বা বিরতি পড়ায় সেই ছন্দটা কিন্তু নষ্ট হয়েছে। অলিম্পিক সামনে রেখে রোমান এরপর অনেক উন্নতি করেছে এবং এখনো সেই চেষ্টাটা করে যাচ্ছে। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে তার সেই উন্নতির ধারাবাহিকতাটা ধরে রাখাটাই তাই গুরুত্বপূর্ণ হবে।’ নেদারল্যান্ডসে কোয়ালিফিকেশনে ৬৭৬ স্কোর করা রোমান পরে দক্ষিণ এশীয় গেমসে ক্যারিয়ারসেরা ৬৮৬-ও মেরেছিলেন। অথচ টোকিওতে করেছেন তিনি ৬৬২।

কোরিয়া, ইতালি, তুরস্ক, জার্মানির অলিম্পিক পদকজয়ীই এবার বিশ্বচ্যাম্পিয়নের মুকুট পরতে নামছেন এই আসরে। রিকার্ভের শীর্ষ তারকা ব্র্যাডি অ্যালিসন অলিম্পিকে পদক না জেতার আক্ষেপ জুড়াতে চাইবেন ঘরের এই আসরে। সেই লড়াইয়ে রোমানকেও তাই আরো একবার দেখাতে হবে নিজের সেরাটা। সুইজারল্যান্ডের গত আর্চারি বিশ্বকাপের পর এখন অবশ্য শুধু রোমানের একক ইভেন্টই নয়, দিয়া সিদ্দিকীর সঙ্গে তাঁর মিশ্র দ্বৈতেও প্রত্যাশার চোখ থাকবে। রোমান নিজেও তাতে মনোযোগ রেখেছেন, ‘মিশ্র ইভেন্টটিও আমাদের জন্য এখন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে গেছে। আমরা সেখানেও সেরাটা দেওয়ারই চেষ্টা করব।’

এবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়শিপে রিকার্ভে ছেলেদের একক, ছেলেদের দলগত, নারী একক, মিশ্র দ্বৈত ও কম্পাউন্ড এককে অংশগ্রহণ থাকবে বাংলাদেশের। রোমানের সঙ্গে ছেলেদের দলে আছেন রামকৃষ্ণ সাহা ও  আব্দুল হাকিম। মেয়েদের মধ্যে যাবেন দিয়া ও বিউটি রায়। কম্পাউন্ড ইভেন্টে একমাত্র প্রতিযোগী অসীম কুমার। আর্চাররা অবশ্য গতকাল পর্যন্তও যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা পাননি। সেটি হাতে পেলে আজ রাতেই তাঁদের উড়াল দেওয়ার কথা। ১৯ সেপ্টেম্বর টুর্নামেন্টে আনুষ্ঠানিক অনুশীলন ইয়াংকটনে। তার আগে ১৭ ও ১৮ সেপ্টেম্বর বিশ্ব আর্চারি কংগ্রেসও সেখানে। বাংলাদেশ আর্চারি ফেডারেশন সাধারণ সম্পাদক রাজিবউদ্দিন আহমেদের তাতে অংশ নেওয়ার কথা। ভিসা না পাওয়ায় কাল তাঁর কণ্ঠে দুর্ভাবনা ছিল স্পষ্ট, ‘এখনো ভিসা পেলাম না। কাল হবে এমন আশাতেই এখন আছি। আমাদের সব প্রস্তুতি নেওয়া আছে। ভিসাটা হলেই রওনা হব।’



সাতদিনের সেরা