kalerkantho

শনিবার । ৩১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ অক্টোবর ২০২১। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

নেপালের সঙ্গে এবার ড্র

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : নেপালকে এবারও হারানো সম্ভব হলো না। তবে হারেওনি মেয়েরা। রক্ষণ পরীক্ষায় উতরে এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের প্রস্তুতি শেষ করেছে তারা গোলশূন্য ড্রয়ে। নিলুফা নীলা, মাশুরা পারভীন, শিউলি আজিমদের রক্ষণ দৃঢ়তায় নেপালিরা আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলেও গোলের পরিষ্কার কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি। নেপালের গোলমুখে কৃষ্ণা রানী, সিরাত জাহানদের সব চেষ্টা শেষ পর্যন্ত বিফলে গেছে সৃষ্টিশীলতার অভাবে।

দশরথ স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ ম্যাচটি শুরু করেছিল আক্রমণাত্মক মনোভাব নিয়েই। কৃষ্ণা রানী বার দুয়েক বল নিয়ে ডিফেন্স লাইন পেরিয়ে গেলেও ফাইনাল পাস বা শটটি তিনি নিতে পারেননি। ১৮ মিনিটে নিজেদের বক্সে মাসুরা পারভীনের শেষ মুহূর্তের ট্যাকলে রক্ষা পায় বাংলাদেশ। এরপর কৃষ্ণারই একটি দূরপাল্লার শট বেরিয়ে যায় ক্রসবারে লেগে। বিরতির আগে আগে আবার শিউলি আজিম ও শামসুন্নাহারের ডাবল ব্লকে পোস্টে শট নিতে পারেননি নেপালি দুই ফরোয়ার্ড বিমলা ও প্রীতি রাই। দ্বিতীয়ার্ধে স্বাগতিকরা গোলের জন্য মরিয়া হলেও বাংলাদেশ রক্ষণে ছাড় দেয়নি এতটুকু। আক্রমণে অবশ্য ঘাটতিটা স্পষ্ট ছিল। দেশসেরা স্ট্রাইকার সাবিনা খাতুনকে সেভাবে দেখা যায়নি প্রতিপক্ষের বক্সে হানা দিতে। মিডফিল্ডে মনিকা চাকমা, মারিয়া মান্দাও লং বল খেলে সমন্বিত আক্রমণের সুযোগগুলো নষ্ট করছিলেন। আগের ম্যাচের গোলদাতা তহুরা খাতুন নামেন নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার মিনিট তিনেক আগে। ফলে তিনিও ম্যাচে কোনো প্রভাব ফেলতে পারেননি।

তবে উজবেকিস্তানে র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে থাকা জর্দান, ইরানের বিপক্ষে লড়াইয়ে মাশুরা, শামসুন্নাহারদের রক্ষণ দৃঢ়তা নিশ্চয় আশাবাদী করবে কোচকে। তাসখন্দে আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর শুরু হবে বাংলাদেশের এশিয়ান কাপ বাছাই পর্ব। প্রথম ম্যাচ জর্দানের বিপক্ষে, ইরানের মুখোমুখি হবেন সাবিনারা ২২ সেপ্টেম্বর।



সাতদিনের সেরা