kalerkantho

রবিবার । ৪ আশ্বিন ১৪২৮। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১১ সফর ১৪৪৩

তিন সোনায় টোকিও মাতালেন সান

মেয়েদের ১০০ মিটার স্প্রিন্ট ফাইনাল আজ

৩১ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তিন সোনায় টোকিও মাতালেন সান

মাইকেল ফেলপস, উসাইন বোল্টের মতো কিংবদন্তিরা নেই। টোকিও অলিম্পিকে তাই কিংবদন্তির জন্য হাহাকার। সেই অতৃপ্তি কিছুটা হলেও মেটাতে পারেন শেলি অ্যান ফ্রেজার প্রাইস। অলিম্পিক ইতিহাসে কখনই মর্যাদার ১০০ মিটার স্প্রিন্টে টানা তিনবার সোনা জেতেননি কেউ। আজ ১০০ মিটারের ফাইনালের আগে হিটে ঝলমলেই ছিলেন এই জ্যামাইকান। গতকাল ১০.৮৪ সেকেন্ডে নিজের হিটে প্রথম হন তিনি। আইভরি কোস্টের মারিয়া জোসে তা লু অপর হিটে করেছেন আফ্রিকার রেকর্ড। ১০.৭৮ সেকেন্ডে হিট শেষ করে হুমকিও দিয়ে রেখেছেন প্রাইসকে।

গতকালের দিনটা ছিল অবশ্য দক্ষিণ কোরিয়ার আন সানের। প্রথম অ্যাথলেট হিসেবে এবারের অলিম্পিকে তিনটি সোনা জিতেছেন এই আর্চার। মিশ্র ইভেন্টে এই আন সান ও কিম জে-দেওক জুটির কাছে হেরেছিলেন বাংলাদেশের রোমান সানা ও দিয়া সিদ্দিকী জুটি। সেই ইভেন্টের পর মেয়েদের দলগত সোনাটাও জেতেন ২০ বছর বয়সী এই তরুণী। গতকাল এককেও বাজিমাত তাঁর। তাতে এবারের অলিম্পিকে প্রথম অ্যাথলেট হিসেবে জিতলেন তিনটি সোনা। ফাইনালে রাশিয়ার এলেনা ওসিপোভার সমান স্কোর ছিল সানের। এরপর শুট-অফে নেওয়া শটে ১০ স্কোর করে জেতেন সোনা। ওসিপোভা ৮ স্কোর করে জেতেন রুপা।

সাঁতারে বিশ্বরেকর্ড হয়েছে মেয়েদের ২০০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোকে। আট বছর আগে গড়া বিশ্বরেকর্ড ভেঙে ২ মিনিট ১৮.৯৫ সেকেন্ডে সোনা জিতেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার তাতানা শোয়ানমেকার। এটা আবার গত ২৫ বছরে অলিম্পিক সাঁতারে প্রথম সোনা দক্ষিণ আফ্রিকার। সাঁতারে আবার চারটি পদক পেয়ে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন এমা ম্যাককিওন। গতকাল ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে নতুন অলিম্পিক রেকর্ড ৫১.৯৬ সেকেন্ডে সোনা জেতেন এই অস্ট্রেলিয়ান। এদিকে ছেলেদের ১০০ মিটার ব্যাকস্ট্রোকের পর ২০০ মিটার ব্যাকস্ট্রোকেও নতুন অলিম্পিক রেকর্ড ১ মিনিট ৫৩.২৭ সেকেন্ডে চ্যাম্পিয়ন রাশিয়ার এভগেনি রিলভ। রুপা জেতা যুক্তরাষ্ট্রের রায়ান মারফি মানতে পারছেন না এটা। ঘুরিয়ে ডোপিংয়ের অভিযোগ তাঁর, ‘আমি সাঁতারের যে রেসটা লড়েছি সেটা হয়তো ঠিকঠাক ছিল না!’

এদিকে ছেলেদের টেনিসের দ্বৈতে নিজেদেরই দেশের ইভান ডডিগ-মার্লিন চিলিচ জুটিকে ৬-৪, ৩-৬, ১০-৬ গেমে হারিয়ে সোনা জিতেছেন ক্রোয়েশিয়ার নিকোলা মেকতি-মাতে পাভিচ জুটি। টেবিল টেনিস ইতিহাসে চারজন নারী খেলোয়াড় জিতেছেন চারটি করে অলিম্পিক সোনা। গতকাল ছেলেদের এককে স্বদেশি ফেন ঝেনডংকে হারিয়ে সেই কীর্তি ছুঁলেন মা লং। এর আগে ২০১২ সালে একটি আর ২০১৬ রিও অলিম্পিকে দুটি সোনা জিতেছিলেন চীনের এই তারকা।