kalerkantho

শনিবার । ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩১ জুলাই ২০২১। ২০ জিলহজ ১৪৪২

অলিম্পিকে ঐক্যের আবেগী ডাক

২০ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অলিম্পিকে ঐক্যের আবেগী ডাক

অলিম্পিক মানেই উৎসবের আবহ। তারকাদের মিলনমেলা আর প্রাণের উচ্ছ্বাসে ভেসে যাওয়া। করোনার থাবায় এবার সে উপায় নেই। নানা বিধি-নিষেধের বেড়াজালে বন্দি অ্যাথলেটরা। গেমস ভিলেজে কয়েকজন করোনা আক্রান্ত হওয়ায় বাড়ছে শঙ্কা। জরুরি অবস্থার মাঝে অলিম্পিক হওয়ায় টোকিওজুড়ে চলছে বিক্ষোভও। করোনা, উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা, বিক্ষোভ—সব একপাশে সরিয়ে রেখে ২৩ জুলাই উদ্বোধন হচ্ছে টোকিও অলিম্পিকের। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টায় ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে বর্ণাঢ্য আয়োজনেই হবে উদ্বোধন অনুষ্ঠান। মহামারির মাঝে এই মিলনমেলার স্লোগান, ‘ইউনাইটেড বাই ইমোশন’।

আবেগ দিয়ে ঐক্যের আহ্বান জানিয়ে আয়োজকদের বিবৃতি, ‘খেলাধুলার একটা শক্তি আছে, যা ঐক্যবদ্ধ করতে পারে পুরো পৃথিবীকে। কঠিন এই সময়ে ঐক্যের আবেগী আহ্বান আমাদের। আবারও স্বাভাবিক হয়ে উঠবে পৃথিবী, এই আশাই করছি আমরা।’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন তাকাইউকি হিউকি। ২০০৬ তুরিন উইন্টার অলিম্পিক আয়োজনের অন্যতম রূপকার মার্কো বালিচ সাহায্য করবেন তাঁকে। দর্শকভরা গ্যালারি না থাকলেও আয়োজক, স্পন্সর প্রতিনিধি মিলিয়ে ১০ হাজারের বেশি দর্শনার্থী থাকবেন ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে।

অলিম্পিকের উদ্বোধন করবেন ৬১ বছর বয়সী জাপানি সম্রাট নারুহিতো। রাজপরিবারের সদস্যরাও থাকতে পারেন স্টেডিয়ামে। করোনার কারণে আমন্ত্রিত অনেক অতিথি আসবেন না শেষ পর্যন্ত। তবে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ আর যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেনের উপস্থিতির আশা করছেন আয়োজকরা। জাপানের শিল্প-সংস্কৃতিই মূলত তুলে ধরবেন পারফরমরারা। তবে অলিম্পিক মশাল জ্বালাবেন কে—সেটা গোপন রাখা হয়েছে এখনো।

২৩ তারিখে উদ্বোধন হলেও ফুটবল শুরু হয়ে যাচ্ছে আগের দিন। ইউরো চ্যাম্পিয়ন ইতালি সুযোগ পায়নি এবার। তবে শিরোপার দাবিদার হয়ে খেলবে কোপার চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা আর রানার্স আপ ব্রাজিল। টুর্নামেন্টটা মূলত অনূর্ধ্ব-২৩ হওয়ায় মেসি, নেইমাররা আসছেন না টোকিওতে। প্রথম দিনই গ্রুপ ‘সি’তে আর্জেন্টিনা খেলবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আর গ্রুপ ‘ডি’তে ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ জার্মানি। ছেলেদের ফুটবলের ফাইনাল ৭ আগস্ট।

করোনার কারণে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন অনেক তারকা। এরপরও দ্যুতি কমছে না একেবারে। রয়েছেন সিমোনে বাইলস, শেলি অ্যান ফ্রেজার প্রাইস, নোভাক জোকোভিচ, ওয়েড ভ্যান নিকার্ক, কেভিন ডুরান্টরা। বাংলাদেশের জন্য অলিম্পিকে অংশ নেওয়াটাই বড় কথা। তবে নিজের সর্বোচ্চটা উজাড় করে দিয়ে পদকের চেষ্টা করবেন রোমান সানা। স্বপ্নপূরণ হবে তো বাংলাদেশ আর্চারির সবচেয়ে বড় এই তারকার? এএফপি