kalerkantho

রবিবার । ৮ কার্তিক ১৪২৮। ২৪ অক্টোবর ২০২১। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

নেইমারের ফেরায় উজ্জীবিত ব্রাজিল

২ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রোমাঞ্চকর, রুদ্ধশ্বাস সব ম্যাচ চলছে ইউরোয়। সে তুলনায় কোপা আমেরিকা এখনো সাদামাটা। অবশ্য ফরম্যাটটিই এমন। এক গ্রুপের পাঁচ দলের চারটির কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত হলে উত্তেজনা আসবে কোথা থেকে? আন্তর্জাতিক ফুটবলের সবচেয়ে পুরনো এই টুর্নামেন্টের আসল লড়াই শুরু আজ থেকে। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আর রানার্স আপের একই দিনে শুরু সেমিফাইনালের অভিযান। কোয়ার্টার ফাইনালে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল মুখোমুখি হচ্ছে চিলির। শেষ আটের অন্য লড়াইয়ে গতবারের রানার্স আপ পেরু খেলবে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে।

অপ্রতিরোধ্য ব্রাজিল হোঁচট খেয়েছে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে। টানা ১০ জয়ের পর তিতের দলকে থামায় ইকুয়েডর। এর পরও আজ কোয়ার্টার ফাইনালে চিলির বিপক্ষে ফেভারিট ব্রাজিলই। গ্রুপের শীর্ষস্থান নিশ্চিত হওয়ায় শেষ ম্যাচে বিশ্রামে ছিলেন নেইমার। কোপায় দুই গোলের পাশাপাশি দুটি অ্যাসিস্ট করা নেইমার দ্যুতি ছড়িয়েছেন টুর্নামেন্টজুড়ে। ব্রাজিলের বেশির ভাগ গোলের উৎস তিনিই। বিশ্বের সবচেয়ে দামি এই ফুটবলার ফেরায় উজ্জীবিত হয়েই নামবে ব্রাজিল। শেষ আটের আগে তাঁর পিএসজি সতীর্থ মার্কুইনহোস জানালেন, ‘শেষ ম্যাচে সেরা দলটি খেলেনি আমাদের। কয়েকজন বিশ্রামে থাকায় স্কোয়াডে থাকা প্রায় সবার অভিজ্ঞতা হয়েছে এবারের কোপায় খেলায়। এখন আর পরীক্ষা-নিরীক্ষার সময় নয়। নেইমার আক্রমণভাগের নেতা হয়ে ভরসা জোগাবে আমাদের।’

২০১৫ ও ২০১৬ সালে টানা দুইবার কোপা আমেরিকার শিরোপা জিতেছিল চিলি। গতবারও তারা খেলেছে সেমিফাইনালে। তবে চোটের জন্য অন্যতম সেরা তারকা অ্যালেক্সি সানচেসের খেলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে, যা বড় ধাক্কা তাদের জন্য। সেন্টার ব্যাক গুইলেরমো মারিপানও অনিশ্চিত। ইন্টারের হয়ে সিরি ‘এ’ জিতলেও আর্তুরো ভিদাল পেছনে ফেলে এসেছেন সেরা সময়। এ জন্যই গ্রুপ পর্বে মাত্র একটি জয় চিলির। চতুর্থ হয়ে পেয়েছে সেরা আটের টিকিট। টানা ১১ ম্যাচ অপরাজিত থাকা ব্রাজিলকে তাদেরই মাটিতে হারাতে আজ অভিনব কিছু করতে হবে চিলিকে।

গত কোপায় ফাইনাল খেলা পেরু এবারের অভিযান শুরু করেছিল ব্রাজিলের কাছে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়ে। এরপরই ঘুরে দাঁড়িয়ে কলম্বিয়া, ভেনিজুয়েলাকে হারানোর পাশাপাশি ইকুয়েডরের সঙ্গে ড্র করে হয়েছে গ্রুপ রানার্স আপ। অন্য গ্রুপে তৃতীয় হয়ে শেষ আটে প্যারাগুয়ে। ১৯৫৩ ও ১৯৭৯ সালের শিরোপাজয়ী প্যারাগুয়ে সোনালি অতীত ফেরাতে মুখিয়ে আছে সেমিফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করতে। পেরু থামাতে পারবে তো তাদের? ইএসপিএন



সাতদিনের সেরা