kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩ আগস্ট ২০২১। ২৩ জিলহজ ১৪৪২

ফুটবলের নতুন ‘লাইফলাইন’

১৭ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : করোনায় ভাগ্য খুলে গেছে বাংলাদেশ ফুটবলের! করোনাকালে এএফসি ফরম্যাট বদলেছে এশিয়ান কাপ ফুটবলের। নতুন ফরম্যাটে প্লে-অফ খেলার ঝুঁকি না নিয়ে বাংলাদেশ মহাদেশীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের বাছাইয়ে তৃতীয় ও চূড়ান্ত পর্বে সরাসরি খেলার টিকিট পেয়ে গেছে।

২০২২ বিশ্বকাপ ও ২০২৩ এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাই পর্বে শেষ ম্যাচে পরশু ওমানের কাছে ৩-০ গোলে হেরে বাংলাদেশ ‘ই’ গ্রুপের তলানির দল হিসেবে ঢুকে পড়েছিল প্লে-অফের দুঃস্বপ্নে। আগের বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাই শেষে প্লে-অফে ভুটানের কাছে হেরে তারা নির্বাসনে ছিল ১৬ মাসেরও বেশি। ওই সময়ে কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেনি তারা। সেই ফরম্যাট অনুযায়ী বাছাইয়ের আট গ্রুপের চতুর্থ স্থানে থাকা আট দলের নিচের চার দল ও পঞ্চম স্থানে থাকা আট অর্থাৎ মোট ১২ দল নিয়ে হতো প্লে-অফ। সেই হিসাবে ২ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে থাকা বাংলাদেশের পরিণতি হওয়ার কথা প্লে-অফ। কিন্তু এএফসি কাল সিদ্ধান্ত বদলে জানিয়েছে, আট গ্রুপের তিন সেরা পঞ্চম দল সরাসরি এশিয়া কাপ বাছাইয়ের তৃতীয় ও চূড়ান্ত পর্বে খেলবে। তখনই ‘এফ’ গ্রুপের মিয়ানমার (৬ পয়েন্ট) ও ‘ডি’ গ্রুপের ইয়েমেনের (৫ পয়েন্ট) পর শেষ দল হিসেবে বাংলাদেশও (২ পয়েন্ট) পায় বাছাইয়ের চূড়ান্ত পর্বে খেলার টিকিট। এতে আরো ছয়টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার সুযোগ পাচ্ছেন জামাল ভুঁইয়ারা।

তবে সদ্যঃসমাপ্ত বাছাইয়ে জেমির দলের ফুটবল নৈপুণ্যে আশার ঝলকানি নেই। জীবন বাজি রেখে রক্ষণ সামলে যদি সুযোগ মেলে কাউন্টার অ্যাটাকে—গত দুই বছরে এমন রক্ষণাত্মক ফুটবলে অভ্যস্ত হয়ে পড়া দলে সৃষ্টিশীল ফুটবলার নেই। তা-ও কি গোল আটকেছে? ৩ গোল করার বিপরীতে আট ম্যাচে তারা হজম করেছে ১৯ গোল। কলকাতায় ভারতের বিপক্ষে যে ম্যাচটি জেতার ছিল সেই ম্যাচেও শেষ মুহূর্তে গোল খেয়ে ১-১ গোলে ড্র করে। আসলে মাঝমাঠে বল ধরে খেলার ক্ষমতা না থাকলে প্রতিপক্ষের চাপে রক্ষণ একসময় ভেঙে পড়বেই। সুতরাং রক্ষণাত্মক ফুটবল কোনো সমাধান নয়। আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে হলে খেলোয়াড়দের মান বাড়াতে হবে, তাঁদের ভেতর গোলের অভ্যাস তৈরি করতে হবে। দেশের ফুটবল মান যে নিচে নেমেছে গত চার সাফ ফুটবলেই তা পরিষ্কার। টানা চার আসরে উপমহাদেশের সাত-আট দলের লড়াইয়েও তারা সেরা চারে (সেমিফাইনাল) পৌঁছাতে পারেনি। সুতরাং ফুটবলারদের মান পড়ে গেছে। মান বাড়লে আক্রমণাত্মক ফুটবলও ফিরবে। এত অধঃপতনের মধ্যে সুখবর হলো, নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার এলিটা কিংসলে বাংলাদেশি পাসপোর্ট পেয়েছেন এবং এশিয়ান কাপের চূড়ান্ত বাছাইয়ে খেলতে তাঁর বাধা নেই।



সাতদিনের সেরা