kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

সেই চিলির বিপক্ষে শুরু আর্জেন্টিনার

১৪ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সেই চিলির বিপক্ষে শুরু আর্জেন্টিনার

পেলে, ম্যারাডোনাও জেতেননি কোপা আমেরিকা। তবু তাঁদের এই একটি টুর্নামেন্টের অপূর্ণতা নিয়ে কে কথা বলে! তাঁদের মুকুটে যে আরো মূল্যবান পালক আছে—বিশ্বকাপ। লিওনেল মেসির তা নেই। চারটি বিশ্বকাপ খেলেও সেই আক্ষেপ জুড়ায়নি, তাই বলে একটা কোপার শিরোপাও জুটবে না!

সেই অপূর্ণতা ঘোচার মিশন নিয়েই আজ আরেকটি আসরে খেলতে নামছেন আর্জেন্টাইন খুদে জাদুকর। মেসির আক্ষেপ যেমন, তেমনি আলবিসেলেস্তেদেরও তো ২৮ বছরের অপেক্ষা একটা বড় ট্রফির। আজ রিও ডি জেনেইরোতে চিলির বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে সেই মিশন শুরু হচ্ছে তাদের। এই চিলিই শেষ দুইবার ফাইনালে কাঁদিয়েছে আর্জেন্টাইনদের। ২০১৪ বিশ্বকাপের পর ২০১৫ ও ২০১৬-র কোপা—টানা তিনটি ফাইনালে হারের ধাক্কায় মেসি তো অবসর নিয়ে নেওয়ার কথাও ভেবে ফেলেছিলেন।

সেই তিনিই আবার ফিরেছেন নতুন স্বপ্ন নিয়ে। ৩৪ বছর বয়সে হয়তোবা শেষবারের মতো। সেই একই ক্ষুধার কথা জানিয়েছেন তিনি সমর্থকদের, ‘কোপা জেতাটা সব সময়ই আমাদের স্বপ্ন। আর্জেন্টিনার হয়ে যেকোনো একটি ট্রফি জেতার জন্যই আমরা মুখিয়ে আছি। যারা পুরনো তাদের সেই অপেক্ষা, চাওয়াটা আরো তীব্রই।’ চিলির বিপক্ষে সর্বশেষ ফাইনালের পর আরো দুবার দেখা হয়েছে এই দুই দলের। দুটি ম্যাচই হয়েছে ড্র। ২০১৯-এর সেপ্টেম্বরে প্রীতি ম্যাচ গোলশূন্য। আর আজ মুখোমুখি হওয়ার আগে দুই দল বিশ্বকাপ বাছাইয়ের সর্বশেষ ম্যাচটাই ড্র করেছে ১-১ গোলে।

মেসি নিজ দেশেই এবার অপূর্ণ চাওয়াটা পূরণে নামতে পারতেন, কিন্তু করোনায় সব এমন উলটপালট হয়ে গেল যে ঘরের আসর তাদের খেলতে হচ্ছে কিনা চিরশত্রু ব্রাজিলের মাঠে। তাতে চ্যালেঞ্জটা আরো বাড়লই আকাশি-সাদাদের জন্য। গতবার ব্রাজিলের কাছে হেরে সেমিফাইনালে বিদায়। যদিও সেই ম্যাচের রেফারিং নিয়ে আর্জেন্টাইনরা ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন। এবারের মিশন তাই প্রতিরোধ মিশনও হতে পারে তাদের। তবে যেভাবেই ভাবা হোক না কেন, মেসির যে এই ট্রফিটা চাই-ই। সর্বকালের সেরা হওয়ার লড়াই যাঁর, জাতীয় দলের হয়ে একটা বড় শিরোপা না হলে কি তাঁর চলে! গোলডটকম