kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১০ আষাঢ় ১৪২৮। ২৪ জুন ২০২১। ১২ জিলকদ ১৪৪২

শেষ দিনের অপেক্ষায় দুই মাদ্রিদ

১৮ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শেষ দিনের অপেক্ষায় দুই মাদ্রিদ

লড়াই, প্রত্যাবর্তন, নাটক আর রোমাঞ্চের পসরাই বসেছিল যেন লা লিগায়। শুরুতে ভিএআরে কপাল পোড়ে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের। ওসাসুনার বিপক্ষে বাতিল দু-দুটি গোল! একই সময়ে শুরু হওয়া বিলবাওয়ের বিপক্ষে অপর ম্যাচে নাচো ফের্নান্দেসের গোলে রিয়াল মাদ্রিদ এগিয়ে যায় ৬৮ মিনিটে। অ্যাতলেতিকোর দুঃস্বপ্ন আরো বাড়ে ৭৫ মিনিটে আন্তে বুদিমারের গোলে ওসাসুনা ‘লিড’ নিলে। রিয়ালের কাছে শীর্ষস্থান আর লিগ হারানোটা মনে হচ্ছিল সময়ের অপেক্ষা। কিন্তু ফিরে আসার অসাধারণ আরেকটি গল্প লেখা হলো ছয় মিনিটের ব্যবধানে। ৮২ মিনিটে রেনান লোদি সমতা ফেরানোর পর ৮৮ মিনিটে লুই সুয়ারেসের গোলে আতশবাজি পোড়াতে থাকেন ওয়ান্দা মেত্রোপলিতানো স্টেডিয়ামের বাইরে জড়ো হওয়া হাজারো সমর্থক। জার্সি খুলে সুয়ারেসের উন্মাতাল দৌড় ও সতীর্থদের উল্লাসে তখন মাতোয়ারা মাদ্রিদ শহরের একটি প্রান্ত।

একই সময়ে ন্যু ক্যাম্পে শ্মশানের নিস্তব্ধতা। সেল্তা ভিগোর কাছে ২-১ গোলে হেরে শিরোপা দৌড় থেকে ছিটকেই গেছে বার্সেলোনা। লিওনেল মেসি শুরুতে এগিয়ে দিলেও সান্তি মিনার জোড়া গোলে কপাল পোড়ে তাদের। লা লিগা হয়ে পড়ে দুই দলের লড়াইয়ের মঞ্চ। ওসাসুনাকে ২-১ গোলে হারানো অ্যাতলেতিকো কিংবা বিলবাওয়ের বিপক্ষে ১-০ ব্যবধানে জয়ী রিয়াল মাদ্রিদই শিরোপা উল্লাসে ভাসবে শেষ দিনে। ২০০৭-০৮ মৌসুমের পর এবারই সেরা দুইয়ের বাইরে বার্সেলোনা। তাই লিওনেল মেসি ন্যু ক্যাম্পে শেষ ম্যাচ খেলে ফেললেন কি না; উঠে গেছে প্রশ্নটা। ২২ মে শেষ দিন অ্যাতলেতিকো মুখোমুখি হবে রেলিগেশনের শঙ্কায় থাকা ভায়াদোলিদের। আর রিয়ালের প্রতিপক্ষ ভিয়ারিয়াল। সেদিন জিতলেই ২০১৩-১৪ মৌসুমের পর লা লিগার মুকুট ফিরে পাবে অ্যাতলেতিকো।

স্তেফান সাভিচ ও কারাসকোর দুটি গোল বাতিল হয়েছিল ভিএআরে। লুই সুয়ারেসও একাধিকবার গোলরক্ষককে একা পেয়ে পারেননি বল জালে জড়াতে। উল্টো ৭৫ মিনিটে আন্তে বুদিমারের গোলে ওসাসুনা এগিয়ে গেলে মনে হচ্ছিল দিনটা বুঝি অ্যাতলেতিকোর নয়। কিন্তু রেনান লোদি ও লুই সুয়ারেসের দুই গোলে রুদ্ধশ্বাস জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে তারা। এরপর কোচ ডিয়েগো সিমিওনে প্রশংসায় ভাসালেন সুয়ারেসকে, ‘ও এককথায় অসাধারণ। এখনো ফুরিয়ে যায়নি প্রমাণ করতে এখানে এসেছে সুয়ারেস। সেটা প্রমাণও করে চলেছে প্রথম দিন থেকে।’ এই মৌসুমে লা লিগায় ২০ গোল করে ফেললেন সুয়ারেস। লা লিগায় টানা পাঁচ মৌসুম করলেন ২০ বা বেশি গোলের কীর্তি। এ জন্য খুশি সুয়ারেসও, ‘এগুলো খুশির উপলক্ষ। লিগ জিততে হলে আপনাকে ভুগতেই হবে, এদিন আমরা চাপটা কাটিয়ে উঠেছি।’

রিয়ালের শিরোপা জেতার সম্ভাবনার পাশাপাশি বড় প্রশ্ন মৌসুম শেষে জিনেদিন জিদান থাকবেন কি না? এ নিয়ে ম্যাচ শেষে জিদান বললেন, ‘মিডিয়ায় যা এসেছে পুরোটা মিথ্যা। শিরোপা জেতার জন্য নিজেদের উজাড় করে দিচ্ছি আমরা। এখন কিভাবে খেলোয়াড়দের বলতে পারি যে, আমি চলে যাচ্ছি?’ ইএসপিএন



সাতদিনের সেরা