kalerkantho

রবিবার । ৬ আষাঢ় ১৪২৮। ২০ জুন ২০২১। ৮ জিলকদ ১৪৪২

টানা ৯ বুন্দেসলিগা বায়ার্নের

৯ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টানা ৯ বুন্দেসলিগা বায়ার্নের

বুন্দেসলিগায় টানা নবম শিরোপা নিশ্চিত করেছে বায়ার্ন মিউনিখ। গতকাল লিপজিগকে ৩-২ গোলে ডর্টমুন্ড হারানোর পরই শিরোপা নিশ্চিত হয়ে যায় বায়ার্নের। ইউরোপে মর্যাদার ৫ লিগে কেবল জুভেন্টাসেরই ছিল টানা ৯ বার স্কুদেত্তো জয়ের কীর্তি।

এদিকে লা লিগায় গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে গোলশূন্য ড্র করেছে বার্সেলোনা ও অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ। লিওনেল মেসি ও লুই সুয়ারেস গোলের একাধিক সুযোগ পেলেও কাজে লাগাতে পারেননি একটিও। তাতে লাভ হয়েছে রিয়াল মাদ্রিদের। ৩৫ ম্যাচ শেষে অ্যাতলেতিকোর পয়েন্ট ৭৭ আর বার্সার ৭৫। আজ সেভিয়াকে রিয়াল হারালে শীর্ষে চলে যাবে জিদানের দল।

প্রিমিয়ার লিগ থেকে সরাসরি চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলার স্বপ্নে বড় হোঁচট খেয়েছে লিস্টার সিটি। নিউক্যাসলের কাছে জেমি ভার্ডিরা হেরেছেন ৪-২ গোলে। আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগের খেলার স্বপ্নে বড় ধাক্কা খেয়েছে টটেনহামও। লিডসের মাঠে ৩-১ গোলে হেরে গেছে স্পার্স। বুন্দেসলিগায় স্টুটগার্ট ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে অগসবুর্গকে। আর লা লিগায় এলচেকে

২-০ গোলে হারিয়েছে রিয়াল সোসিয়েদাদ।

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে সব মিলিয়ে তিনটি শিরোপা লিলের। ১৯৪৫-৪৬, ১৯৫৩-৫৪’র পর সর্বশেষ শিরোপা জেতে ২০১০-১১ মৌসুমে। এক দশক পর সেই লিল আবারও সুবাস পাচ্ছে লিগ জয়ের। ৩৬ ম্যাচ শেষে তাদের পয়েন্ট ৭৯ আর ৩৫ ম্যাচে পিএসজির ৭৫। নিজেদের শেষ দুই ম্যাচ জিতলেই শিরোপা উত্সবে ভাসবে লিল। অথচ দলে নেই কোনো মহাতারকা। ৩৫ বছর বয়সী তুর্কি ফরোয়ার্ড বুরাক ইয়ালমিজ এই মৌসুমে দলের হয়ে করেছেন সর্বোচ্চ ১৫ গোল। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১২ গোল কানাডার জোনাথন ডেভিডের। তাঁদের নিয়েই শিরোপার এত কাছে আসায় খুশি ফরাসি কোচ ক্রিস্তফ গালতিয়ের, ‘আমরা মৌসুমজুড়ে ধারাবাহিক ছিলাম। সবাই নিজেদের নিংড়ে খেলেছে। ছেলেদের জন্য আমি গর্বিত।’

এই মৌসুমে প্রথম দেখায় পিএসজির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছিল লিল। ফিরতি লেগে পার্ক দ্য প্রিন্সেসে ১-০ গোলে জিতে এসেছে তারা। মোনাকোর সঙ্গেও একটিতে ড্র আর জয় অপর ম্যাচে। পরশু লোকাল ডার্বিতে লেন্সকে ৩-০ গোলে হারানো ম্যাচে জোড়া গোল বুরাক ইয়ালমিজের। অপরটি জোনাথন ডেভিডের। এই মৌসুমে ১২ গোল করে অনন্য কীর্তিই করেছেন ডেভিড। কানাডার আর কোনো খেলোয়াড়ের ইউরোপে মর্যাদার পাঁচ লিগে এক মৌসুমে ১২ গোলের নজির নেই। ইএসপিএন