kalerkantho

রবিবার । ৬ আষাঢ় ১৪২৮। ২০ জুন ২০২১। ৮ জিলকদ ১৪৪২

প্রথম সফরেই বাজিমাত করতে চায় কিংস

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

৯ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রথম সফরেই বাজিমাত করতে চায় কিংস

সব অনিশ্চয়তার মেঘ সরিয়ে প্রথমবার দেশের বাইরে পা রাখছে বসুন্ধরা কিংস। এই পদক্ষেপ যেন গৌরবের হয়, সেই আশায় বুক বেঁধে আছেন বসুন্ধরা কিংস সভাপতি ইমরুল হাসান, ‘দেশের বাইরে প্রথম খেলতে যাচ্ছি আর আমরা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ফিরতে চাই। আমার দলের সেই শক্তি আছে বলেই আমি বিশ্বাস করি।’

এএফসি কাপ খেলতে বসুন্ধরা কিংস আজ মালদ্বীপ রওনা হচ্ছে। তাতেই অস্কার ব্রুজোন দারুণ খুশি। আগেরবার টুর্নামেন্টটি মাঝপথে স্থগিত হওয়ার পর এবারও কিংস কোচ ভয় পেয়েছিলেন ‘সিঁদুরে মেঘ’ দেখে। ভয় কাটিয়ে এখন খেলার গ্যারান্টি মেলায় কোচ খুশি, ‘এএফসি কাপের জন্য আমরা যাবতীয় সব প্রস্তুতি নিয়েছি। তাই খেলা না হলেও খুবই দুর্ভাগ্যজনক হতো। আন্তর্জাতিক মঞ্চে আমাদের পরীক্ষা হওয়া দরকার।’ এই পরীক্ষার মঞ্চ মালদ্বীপে এএফসি কাপের ‘ডি’ গ্রুপের তিনটি ম্যাচ। ১৪ মে থেকে শুরু এই টুর্নামেন্ট খেলতে কিংসের ৪৫ সদস্যের বিশাল বহর আজ বিমানে চাপছে। এর মধ্যে ২৬ জন ফুটবলার এবং বাকিরা কোচ ও অফিশিয়াল। করোনা সংক্রমণের শঙ্কায় তারা বড় দল নিয়ে যাচ্ছে, যেন কেউ করোনা পজিটিভ হলে সমস্যায় পড়তে না হয়।

দেশের খেলায় বসুন্ধরা কিংস দুর্দান্ত ফর্মে। এই মৌসুমে অপরাজিত দলটি পয়েন্ট তালিকায়ও অনেক এগিয়ে। এই ফর্মটাকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নিয়ে যেতে চান কোচ, ‘আমাদের প্রস্তুতি অনেক ভালো। এই মুহূর্তে ফর্মের তুঙ্গে আছে দলটি, দলের এই সামর্থ্যটা এএফসি কাপের মঞ্চে প্রমাণ করতে চাই।’ এ জন্য লড়াই হবে এটিকে মোহনবাগান, মাজিয়া স্পোর্টস ক্লাব ও বেঙ্গালুরু-ঈগলসের বিজয়ী দলের সঙ্গে। চার দলের এই গ্রুপে বসুন্ধরা কিংসের বড় চ্যালেঞ্জার হিসেবে ভাবা হয়েছিল এটিকে মোহনবাগানকে। কিন্তু এই টুর্নামেন্ট উপলক্ষে তাদের সেরকম প্রস্তুতি নেই। কোচ হাবাস ভারতে ফিরতে পারেননি স্পেন থেকে। তা ছাড়া তাদের ফিজির রয় কৃষ্ণা ও অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড উইলিয়ামসও এখনো পর্যন্ত দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারেননি। তাই বসুন্ধরা কিংস মালদ্বীপ যাচ্ছে ‘টপ ফেভারিট’ হয়ে।