kalerkantho

শনিবার । ৫ আষাঢ় ১৪২৮। ১৯ জুন ২০২১। ৭ জিলকদ ১৪৪২

সংশয় কাটিয়ে কিংসের মালদ্বীপ প্রস্তুতি

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

৮ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সংশয় কাটিয়ে কিংসের মালদ্বীপ প্রস্তুতি

মালদ্বীপ এএফসি কাপের ‘ডি’ গ্রুপের খেলা স্থগিতের প্রস্তাব করলেও এএফসি তাতে রাজি হয়নি। এশিয়ান ফুটবল নিয়ন্ত্রণ সংস্থা খেলা হওয়ার পক্ষে অনড়। কভিড-১৯ এর স্বাস্থ্যবিধি মেনে এএফসি কাপের খেলা আয়োজনের ওপর জোর দিয়েছে এএফসি। এই খবরে সংশয় কাটিয়ে বসুন্ধরা কিংসও আগামীকাল রওনা হবে মালদ্বীপের উদ্দেশে। 

গত পরশু মালদ্বীপের যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী আহমেদ মাহলুফের এক টুইটে এএফসি কাপের ‘ডি’ গ্রুপের খেলা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছিল। মন্ত্রী শঙ্কা প্রকাশ করে বলেছিলেন, ‘দেশে খুব আশঙ্কাজনকভাবে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। তাই মালদ্বীপ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন এএফসি কাপের দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের কেন্দ্রীয় ভেন্যুর খেলা স্থগিত করতে কথা বলছে এএফসির সঙ্গে।’ গত এপ্রিলেও তাদের সংক্রমণ ছিল নামমাত্র, দিনে গড় সংক্রমণ হতো মাত্র ৮৪ জনের। এ মাসে হঠাৎ বাড়তে শুরু করে সংক্রমণ। গত ৫ মে ৭৩৪ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এটাই হয়ে উঠেছিল দুশ্চিন্তার বড় কারণ। তবে এ জন্য মালদ্বীপ সরকার দেশে কোনো লকডাউন ঘোষণা করেনি। তাই এএফসিও চায়নি খেলা পেছাতে। দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় তারা কভিড প্রটোকল মেনে খেলা চালানোর অনুরোধ করেছে মালদ্বীপ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনকে। খেলা পেছালে অনেক জটিলতায় পড়ত এএফসি। তখন বাছাই পর্ব থেকে বাদ দেওয়া আবাহনীকেও হয়তো আবার বিবেচনায় নিতে হতো। তা ছাড়া করোনার কারণে গত বছরের আসরটিও স্থগিত করতে করতে একসময় বাতিল করতে হয়েছিল।

ক্রীড়ামন্ত্রীর ওই টুইটে যারা বেশি খুশি হয়েছিল সেই এটিকে মোহনবাগানেরও এখন মালদ্বীপে না গিয়ে উপায় নেই। ফিজিতে লকডাউনের কারণে তাদের বিদেশি ফরোয়ার্ড রয় কৃষ্ণা ভারতে ফিরতে পারেননি। অস্ট্রেলিয়ান ডেভিড উইলিয়ামসও আটকা পড়েছেন দেশে ফিরে গিয়ে। স্প্যানিশ কোচ অ্যান্থনিও হাবাসও অনুপস্থিত। এ জন্য তারা ‘ডি’ গ্রুপের খেলা পেছানোর আবেদন করেও হালে পানি পায়নি। পূর্বনির্ধারিত সময় অনুযায়ী এএফসি কাপের দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের খেলা আগামী ১৪ তারিখ থেকেই শুরু হবে মালেতে। তার আগে ১১ মে এখানে হবে বেঙ্গালুরু এফসি ও মালদ্বীপের ঈগলসের বাছাই পর্বের প্লে-অফ ম্যাচটি। এই ম্যাচের বিজয়ী দল চতুর্থ দল হিসেবে খেলবে ‘ডি’ গ্রুপে। বসুন্ধরা কিংসের সঙ্গে ‘ডি’ গ্রুপে আছে ভারতের এটিকে মোহনবাগান, মালদ্বীপের মাজিয়া স্পোর্টস ক্লাব।



সাতদিনের সেরা