kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১০ আষাঢ় ১৪২৮। ২৪ জুন ২০২১। ১২ জিলকদ ১৪৪২

জুনিয়র এশিয়া কাপ জুলাইয়ে হচ্ছে না

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

৬ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জুনিয়র এশিয়া কাপ জুলাইয়ে হচ্ছে না

তৃতীয়বারের মতো স্থগিত হলো জুনিয়র এশিয়া কাপ হকি। আগামী জুলাইয়েও হচ্ছে না এ আসর। বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে আগামী দুই মাসেরও কম সময়ের মধ্যে ঢাকায় এত বড় একটি আসর আয়োজনের অনুমোদন দেয়নি যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। এএইচএফ (এশিয়ান হকি ফেডারেশন)-কে এই সিদ্ধান্ত এরই মধ্যে জানিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন।

ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইউসুফ জানিয়েছেন, ‘এএইচএফ থেকেই দেশের করোনা পরিস্থিতির ব্যাপারে সর্বশেষ খোঁজখবর নিচ্ছিল। এই টুর্নামেন্ট আয়োজনে আমাদের প্রস্তুতি কী, বিদেশি দলগুলোর জন্য কোয়ারেন্টিন কত দিনের হবে—এসব জানতে চেয়েছে। সে জন্যই আমরা মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করি। কিন্তু তারা এই পরিস্থিতিতে টুর্নামেন্টটি পিছিয়ে দেওয়ারই পরামর্শ দিয়েছে। আমরা সেটিই এএইচএফকে জানিয়েছি।’ এশিয়ান হকি ফেডারেশনের সঙ্গে আলোচনা করেই টুর্নামেন্টের পরবর্তী তারিখ ঠিক করা হবে বলে জানিয়েছেন ইউসুফ। গত বছরের জুনে হওয়ার কথা ছিল এই আসর। মার্চ থেকে করোনা সংক্রমণ রোধে সব রকম খেলাধুলা বন্ধ হয়ে গেলে টুর্নামেন্টটি পিছিয়ে দিতে হয়। পরে ঠিক হয় এ বছরের জানুয়ারিতে হবে সে আসর। কিন্তু জানুয়ারিতেও পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় আগামী জুলাইয়ে নিয়ে যাওয়া হয় এই আসর। এখন সেটিও হচ্ছে না।

এশিয়ার শীর্ষ ১০টি দল খেলবে জুনিয়র এশিয়া কাপের এ আসরে। এখান থেকে সেরা তিন দল সুযোগ পাবে আগামী জুনিয়র বিশ্বকাপেও। সে বিশ্বকাপ নভেম্বরে হবে ধরে নিয়ে টুর্নামেন্টটি খুব বেশি দিন পেছানো সম্ভব বলে মনে করছেন না বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২১ দলের কোচ মামুনুর রশিদ। সে জন্য ঈদুল ফিতরের পর অনুশীলন ক্যাম্প শুরুর পরিকল্পনা থেকে সরে না আসার অনুরোধ তাঁর ফেডারেশনকে, ‘নভেম্বরে বিশ্বকাপ হলে আগস্টের শেষ দিকেই হয়তো টুর্নামেন্টটি আয়োজন করতে চাইবে এএইচএফ। সে ক্ষেত্রে আমাদের অনুশীলনের মধ্যে থাকা উচিত।’ ফেডারেশন সম্পাদক ইউসুফ আবার বলছেন, ‘বিশ্বকাপ এ বছর আর হবে না। আর অনিশ্চয়তার মধ্যে ক্যাম্প চালিয়ে যাওয়ার মতো সামর্থ্য আমাদের নয়।’ যদিও খেলোয়াড়রা সেটিই চান—সারা বছর অনুশীলনের সুযোগ। লিগ না থাকায় এমনিতেই বেশির ভাগ সময় বসেই কাটাতে হচ্ছে তাঁদের।



সাতদিনের সেরা