kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

তবু দমেননি পেরেজ

২৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তবু দমেননি পেরেজ

সুপার লিগের মৃত্যু হয়ে গেছে। ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ গংদের আর কোথাও ঠাঁই হবে না—এমনই একটি আবহ যখন চারপাশে, তখনই আবার মৃদু হুংকার রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতির, ‘প্রজেক্ট শেষ হয়ে যায়নি। এটি এখন স্থগিত আছে মাত্র। আমরা কাজ করছি। একভাবে না হলে অন্যভাবে হবে।’

ক্লাবগুলো যে সরে দাঁড়িয়েছে, সেটিই শেষ কথা নয় বলছেন পেরেজ, ‘চুক্তি থেকে এভাবে বেরিয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। তারা বাঁধা আছে। আর যেসব পরিচালক এখানে আছেন, তাঁরা ভালোভাবেই জানেন বাস্তবতাটা কী।’ তবে এত দিনের চেষ্টা বাধার মুখে এভাবে আটকে যাবে, ভাবতে পারেননি। কোথাও ভুল ছিল—মানছেন বিশ্বের সবচেয়ে নামি ক্লাবের এই সভাপতি, ‘আমার খারাপ লাগছে এবং হতাশ। কারণ এই প্রজেক্টটি নিয়ে তিন বছর ধরে কাজ করছি। হয়তো আমরা এটা ভালোভাবে ব্যাখ্যা করতে পারিনি।’ একে একে ক্লাবগুলো সরে দাঁড়ানোয় ইউরোপীয় ফুটবলের নতুন এ ভাবনা মুখ থুবড়ে পড়ার পর বুধবার রাতেই স্প্যানিশ রেডিও কাদেনা সারে নিজের এই প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন রিয়াল সভাপতি। সেখানে তিনি আবারও বোঝাতে চেয়েছেন লিগটি কেন প্রয়োজন ছিল, ‘চ্যাম্পিয়নস লিগ ফরম্যাটটি পুরনো। আর কোয়ার্টার ফাইনালের আগ পর্যন্ত কোনো আকর্ষণই নেই। নাদাল ফেদেরারের সঙ্গে খেললে কিন্তু সবাই দেখে, আর ৮০ নম্বর একজনের সঙ্গে খেললে কোনো আকর্ষণই নেই। তাই আমরা একটি ফরম্যাটের কথা ভাবছিলাম, যেখানে ইউরোপের সেরা দলগুলো মৌসুমের শুরু থেকেই একে অন্যের সঙ্গে খেলতে পারে।’

সবার আগে ইংলিশ দলগুলোর সরে দাঁড়ানো নিয়ে নতুন নতুন তথ্যই দিয়েছেন তিনি, ‘ম্যানচেস্টারের একটি অংশ শুরু থেকেই খুব একটা রাজি ছিল না। ওরাই হয়তো অন্যদের প্রভাবিত করেছে। আর ক্লাবগুলোর মালিক বেশির ভাগই তো আমেরিকান, এনবিএ বা এনএফএলের সঙ্গে যুক্ত। তাঁরা পরিস্থিতিটা বুঝতে পারেননি। আর ফিফাও এমন প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে যে আমরা যেন অ্যাটম বোমা ফেলেছি। কাউকে খুন করেছি। উয়েফা সভাপতি ও কয়েকটি দেশের ফুটবল প্রধান যেমন আক্রমনাত্মক প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন এমনটা আমি কখনোই দেখিনি।’  কিন্তু এখানেই যে তারা ইস্তফা দিচ্ছেন না পেরেজের সঙ্গে ুসর মিলিয়ে সে কথা বলেছেন বার্সেলোনা সভাপতি হুয়ান লাপোর্তাও, ‘কোন সন্দেহ নেই  অসাধারণ একটি টুর্নামেন্টের ভাবনা এটি। আর এই মুহূর্তে এটা ভীষণ প্রয়োজনও। আমরা তাই উয়েফার সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাবো। আশা করি একটা সমঝোতায় আসতে পারবো আমরা। মার্কা



সাতদিনের সেরা