kalerkantho

সোমবার । ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৭ মে ২০২১। ০৪ শাওয়াল ১৪৪

টালমাটাল ফুটবলের পাওয়ারহাউস

২০ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



টালমাটাল ফুটবলের পাওয়ারহাউস

ইউরোপিয়ান ফুটবলে নতুন ‘বিপ্লব’। সবচেয়ে বড় ধাক্কাও হয়তো। মর্যাদার পাঁচ লিগের অন্যতম তিনটি দেশের ১২ ক্লাব মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে ‘ইউরোপিয়ান সুপার লিগ’ নামে টুর্নামেন্ট শুরুর। ১৩ বার চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ী রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনাসহ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, লিভারপুল, জুভেন্টাস, ইন্টার মিলান, এসি মিলানের মতো দলগুলো অংশ নেবে এই লিগে। আরো তিন দল নিয়ে প্রতিষ্ঠাতা ক্লাব হবে ১৫টি। আর সব মিলিয়ে অংশ নেবে ২০ দল। পরাশক্তি এই ক্লাবগুলোর দাবি, উয়েফা অর্থের সমান বণ্টন করতে পারছে না। নিজেদের আর্থিক স্বার্থ দেখতে আর সমর্থকদের কাছে আরো আকর্ষণীয় ফুটবল উপহার দিতেই এই লিগ। তবে জার্মানি ও ফ্রান্সের কোনো ক্লাব এখনো এই বিপ্লবের অংশ হয়নি।

ফিফা ও উয়েফার সঙ্গে আলোচনা করেই আগামী আগস্টে এই লিগ চালু করতে চায় আয়োজকরা। তবে ফুটবলের নিয়ন্ত্রক এই দুই সংস্থা কোনোভাবে মানছে না সুপার লিগের ধারণাটা। এই লিগে খেললে ক্লাবগুলোকে নিজেদের ঘরোয়া লিগ থেকে নিষিদ্ধ করার হুমকি দিয়ে রেখেছে উয়েফা। ফিফাও সাফ জানিয়ে দিয়েছে, এই লিগে খেলা ফুটবলাররা কোনোভাবে বিশ্বকাপ ও জাতীয় দলে সুযোগ পাবেন না। এমন হুমকির পর সুপার লিগ কর্তৃপক্ষ ফিফা ও উয়েফার কাছে পাঠানো চিঠিতে উল্লেখ করেছে, এরই মাঝে টুর্নামেন্টের জন্য চার হাজার মিলিয়ন ইউরো বিনিয়োগ হয়েছে। তাই ফিফা বা উয়েফা বাধা দিলে প্রয়োজনে আদালতে যাওয়া হবে! মানে ‘বিদ্রোহী’ এই লিগ নিয়ে উত্তালই হতে চলেছে ফুটবল দুনিয়া।

গতকাল চ্যাম্পিয়নস লিগে ৩২ থেকে ৩৬ দলের নতুন ফরম্যাটের ঘোষণা দিয়েছে উয়েফা। এর ২৪ ঘণ্টা আগেই এসেছে ইউরোপিয়ান সুপার লিগের ঘোষণা। যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত জেপি মরগান ব্যাংক এই টুর্নামেন্টে বিনিয়োগ করতে চলেছে বড় অঙ্কের টাকা। অংশ নেওয়া প্রতিটি ক্লাব পাবে ৩.৫ বিলিয়ন ইউরো করে। চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য প্রাইজমানি ৪০০ মিলিয়ন ইউরো। অথচ চ্যাম্পিয়নস লিগে শিরোপাজয়ীরা পান ১২০ মিলিয়ন ইউরো। চ্যাম্পিয়নস লিগের তুলনায় প্রায় তিন গুণ বেশি অর্থ পাবে সুপার লিগে অংশ নেওয়া ক্লাবগুলো। তবে এই লিগ মাঠে গড়ালে ইউরোপিয়ান ফুটবলের চিরাচরিত কাঠামোই বদলে যেতে পারে হুমকি দিয়ে রাখল উয়েফা, ‘কিছু ক্লাবের স্বার্থসিদ্ধির জন্যই এমন পরিকল্পনা। আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে এই অশুভ উদ্যোগকে প্রতিহত করব।’ লা লিগা, সিরি ‘এ’, প্রিমিয়ার লিগ কর্তৃপক্ষও সাফ জানিয়ে দিয়েছে এই টুর্নামেন্টে অংশ নিলে লিগে বহিষ্কার করা হবে ক্লাবগুলোকে।

সুপার লিগ কর্তৃপক্ষ অবশ্য লিগ, চ্যাম্পিয়নস লিগ সবই খেলতে চায়। পাশাপাশি খেলতে চায় নিজেদের টুর্নামেন্টও। এই পরিকল্পনাও হঠাৎ করেই হয়নি। সেই ২০০৯ সালে আর্সেনালের তৎকালীন কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গার এমন কিছুর আভাস পেয়ে জানিয়েছিলেন নিজের শঙ্কা। সেটাই এত দিনে জানানো হলো বিবৃতি দিয়ে। সুপার লিগের প্রেসিডেন্ট করা হয়েছে ফ্লোরেন্তিনো পেরেজকে। সমর্থকদের প্রত্যাশা মেটানোর আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি।

২০টি ক্লাব দুটি গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলবে সুপার লিগে। ১৫টি প্রতিষ্ঠাতা ক্লাবের সঙ্গে আমন্ত্রণ জানানো হবে আরো পাঁচটি দলকে। ‘হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে’ ভিত্তিতে হবে ম্যাচগুলো। কোয়ার্টার ফাইনাল খেলবে প্রতিটি গ্রুপের সেরা তিন দল। বাকি দুটি স্থানের জন্য দুই গ্রুপের চতুর্থ ও পঞ্চম দল নিজেদের মধ্যে খেলবে প্লে-অফ। কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বাকি ফরম্যাট চ্যাম্পিয়নস লিগের মতোই। ছেলেদের পাশাপাশি মাঠে গড়াবে মেয়েদের লিগও। বার্সেলোনা বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, যত দ্রুত সম্ভব এই টুর্নামেন্ট খেলতে চায় তারা। তবে ক্লাবগুলো যৌথ বিবৃতিতে জানিয়েছে আগস্টের কথা। ক্রিকেটের ক্যারি প্যাকার বা আইসিএলের মতো ‘বিদ্রোহী’ হয়ে টুর্নামেন্টটা মাঠে গড়াবে তো শেষ পর্যন্ত? মার্কা, এএফপি

একনজরে

ক্লাবগুলোর প্রাপ্তি

ইউরোপিয়ান সুপার লিগে অংশ নেওয়া প্রতিটি ক্লাব পাবে ৩.৫ বিলিয়ন ইউরো করে। চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য প্রাইজমানি ৪০০ মিলিয়ন ইউরো। অথচ চ্যাম্পিয়নস লিগে শিরোপাজয়ীরা পান ১২০ মিলিয়ন ইউরো। চ্যাম্পিয়নস লিগের তুলনায় প্রায় তিন গুণ বেশি অর্থ পাবে সুপার লিগে অংশ নেওয়া ক্লাবগুলো।

ফরম্যাট

২০টি ক্লাব দুটি গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলবে এই সুপার লিগে। ১৫টি প্রতিষ্ঠাতা ক্লাবের সঙ্গে আমন্ত্রণ জানানো হবে আরো পাঁচটি দলকে। ‘হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে’ ভিত্তিতে হবে ম্যাচগুলো। কোয়ার্টার ফাইনাল খেলবে প্রতিটি গ্রুপের সেরা তিন দল। বাকি দুটি স্থানের জন্য দুই গ্রুপের চতুর্থ ও পঞ্চম দল নিজেদের মধ্যে খেলবে প্লে-অফ। কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বাকি ফরম্যাট চ্যাম্পিয়নস লিগের মতোই।