kalerkantho

সোমবার । ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৭ মে ২০২১। ০৪ শাওয়াল ১৪৪

বদলে গেছে আরামবাগ

১৯ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : ফুটবল বেটিংয়ে জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠার পর আরামবাগ নিজেদের মধ্যেই শুদ্ধি অভিযান চালিয়েছে। তাতে মৌসুমের শুরু থেকে যাদের কাছ থেকে পৃষ্ঠপোষকতা নিয়ে আসছিল ক্লাবটি তাদের সঙ্গে সম্পর্ক ছেদ করেছে। দ্বিতীয় লেগের দলবদলে পুরনো সব বিদেশির সঙ্গে ‘সন্দেহভাজন’ চার স্থানীয় ফুটবলারকেও ছেঁটে ফেলেছে তারা। নিয়োগ দিয়েছে নতুন কোচ।

মধ্যবর্তী দলবদলে যে দুটি দল সবচেয়ে বেশি নতুন খেলোয়াড় নিয়েছে তারা বেটিংয়ে অভিযুক্ত আরামবাগ আর ব্রাদার্স ইউনিয়ন। ব্রাদার্স ৩ বিদেশিসহ সর্বোচ্চ ১৩ জন নতুন খেলোয়াড় নিবন্ধনের আবেদন করেছে। সেখানে আরামবাগ নিয়েছে ১২ জন। বেটিংয়ের কলঙ্কমুক্ত করতেই দল ঢেলে সাজানোর গুঞ্জন অবশ্য ব্রাদার্স স্বীকার করছে না। তবে আরামবাগ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী নিশ্চিত করেছেন বাফুফের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সন্দেহভাজন হিসেবেই পুরনো অনেককে তারা বদলে ফেলেছেন, ‘বাইরে থেকে এসে যারা দলটাকে নিয়ন্ত্রণ করা শুরু করেছিল, প্রথমেই আমরা তাদের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ করেছি। এখন আরামবাগে নিজেদের ক্লাবে এনে আমরা খেলোয়াড়দের তুলেছি। ওদের দিকে সার্বক্ষণিক নজর রাখতে পেরেছি। দুই গোলরক্ষকসহ স্থানীয় চারজনকে বাদ দিয়েছি। ওদেরকে নিয়ে প্রশ্ন ছিল। বিদেশিদের তো বাদ দিয়েছিই।’

দ্বিতীয় লেগে আরামবাগের তাই স্বচ্ছ ভাবমূর্তিই ফিরে পাওয়ার আশা। যদিও বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম বলছেন এতে করে পাতানো খেলার বিরুদ্ধে তাদের তদন্ত একটুও গতি হারাবে না, ‘ক্লাব এ পর্যন্ত যা করেছে তার ফল তাদের ভোগ করতে হবে। তারা এখন যা-ই করুক না কেন। আর ক্লাবগুলো কিসের ভিত্তিতে খেলোয়াড় বদল করেছে তা তো আমরা জানি না, বলতে পারে পারফরম্যান্সের কারণে। আমরা তাই আমাদের তদন্ত এগিয়ে নিচ্ছি। লকডাউনের পরেই হয়তো খেলোয়াড়, কর্মকর্তাদের আমরা সরাসরি জিজ্ঞাসাবাদ করব।’ আন্তর্জাতিক বেটিংয়ে সম্পৃক্ত হয়ে আরামবাগ ও ব্রাদার্সের বিরুদ্ধে স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ তুলেছে খোদ এএফসি। তাদের পর্যবেক্ষণ পেয়েই বাফুফে অনুসন্ধান শুরু করেছে। দল দুটি মাঠের পারফরম্যান্সেও তলানিতে আছে। ১২ ম্যাচে আরামবাগের পয়েন্ট মোটে ১। ব্রাদার্সের ৫।

ভারতীয় কোচ সুব্রত ভট্টাচার্যকে লিগের চার ম্যাচ পরই বিদায় করেছে আরামবাগ। কিন্তু নতুন ব্রাজিলিয়ান এনেও তাদের ভাগ্য ফেরেনি। এবার স্থানীয় জাহিদুর রহমান মিলনের কাঁধে দলটির দায়িত্ব। সুব্রতর নিয়ে আসা বিদেশিদের বদলে এবার  উজবেকিস্তান থেকে চার ফুটবলার এনেছে দলটি। স্থানীয়দের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা, পুলিশ ও নিচের স্তরের পিডাব্লিউডি থেকে নিয়েছে তারা তিন ফুটবলার। আরো পাঁচজন একেবারেই নতুন মুখ। ওদিকে ব্রাদার্স জাহিদ হাসান এমিলি, আতিকুর রহমান মিশু, আরিফুল ইসলাম, ইমতিয়াজ সুলতানের মতো সিনিয়র খেলোয়াড়দের দলে ফিরিয়েছে। সঙ্গে কলম্বিয়া, গাম্বিয়া ও নাইজেরিয়ার তিন বিদেশি। মধ্যবর্তী দলবদলে অন্য ক্লাবগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য বসুন্ধরা কিংসে বাংলাদেশে নাগরিকত্ব পাওয়া এলিটা কিংসলে ও কাতারপ্রবাসী ওবায়দুর রহমানের যোগদান, আবাহনীতে সানডে চিজোবা, সাইফ স্পোর্টিংয়ে জামাল ভূঁইয়া, মুক্তিযোদ্ধায় বাল্লো ফামোসা ও মোহামেডানে কিংস থেকে রবিউল হাসানের যাওয়ার ঘটনা।