kalerkantho

শুক্রবার। ৩১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ মে ২০২১। ০২ শাওয়াল ১৪৪২

রোমাঞ্চ শেষে হাসি রিয়ালের

১২ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রোমাঞ্চ শেষে হাসি রিয়ালের

বেঞ্চেই ছিলেন জেরার্দ পিকে। সেই তিনি ম্যাচ শেষে পেলেন হলুদ কার্ড! ধ্রুপদি না হলেও এবারের এল ক্লাসিকো যে উত্তেজনা আর রোমাঞ্চে ঠাসা ছিল, টানেলে পিকের হলুদ কার্ড পাওয়াই বলছে সে কথা। মর্যাদা আর শিরোপার গতিপথ বদলে দেওয়া ম্যাচটি ২-১ গোলে জিতে পয়েন্ট টেবিলের চূড়ায় রিয়াল মাদ্রিদ। ৪৩ বছর পর এ নিয়ে লা লিগায় টানা তিনটি ‘এল ক্লাসিকো’ জিতল তারা। করিম বেনজিমা ও টনি ক্রুসের লক্ষ্যভেদে বিরতির আগে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে ছিল বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। ৬০ মিনিটে কাতালানদের হয়ে এক গোল ফেরান অস্কার মিনগুয়েসা।

চুক্তি নবায়ন না হলে হয়তো এটাই লিওনেল মেসির শেষ এল ক্লাসিকো, যা এ কিংবদন্তির জন্য হতাশারই হলো সেটা। রিয়ালের বিপক্ষে টানা সাত ম্যাচে কোনো গোল বা অ্যাসিস্ট নেই তাঁর। যদিও সের্হিয়ো রামোসের সমান সর্বোচ্চ ৪৫টি এল ক্লাসিকো খেলার রেকর্ড এখন তাঁর। বিরতির আগে কর্নার থেকে সরাসরি নেওয়া মেসির শটটা পোস্টে বাধা না পেলে ‘অলিম্পিক’ গোলে কাটতে পারত খরাটা। ৮৩ মিনিটে মার্টিন ব্রাথওয়েট বক্সে ফেরলান্দ মেন্দির ফাউলের শিকার হওয়ায় পেনাল্টির দাবিতে চিৎকার করতে থাকেন বার্সা খেলোয়াড়রা। তবে রেফারি জিল মানজানো তাতে সায় দেননি, এমনকি নেননি ভিএআরের সাহায্যও। ৯০তম মিনিটে কাসেমিরো দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখলে ১০ জনে পরিণত হয় রিয়াল। ইনজুরি টাইমে ইলাই মরিবার শট পোস্টে বাধা পেলে শেষ সুযোগটাও নষ্ট হয় বার্সার।

শেষ বাঁশির পরই স্ট্যান্ড থেকে মাঠে নেমে পেনাল্টি না দেওয়া আর মাত্র চার মিনিট ইনজুরি টাইমের জন্য রেফারির দিকে তেড়ে যাচ্ছিলেন জেরার্দ পিকে। এ জন্যই লুকা মদরিচ তাঁকে বলছিলেন, ‘অভিযোগ জানানোর জন্য অপেক্ষা তো করো! আর কত মিনিট ইনজুরি টাইম চাও তুমি?’ রোনাল্ড কোম্যান অফিশিয়াল সংবাদ সম্মেলনেও জানিয়েছেন ক্ষোভ, ‘মেন্দি যেভাবে ব্রাথওয়েটকে ফাউল করল, সেটা পেনাল্টিই ছিল। পেনাল্টি না দেওয়ায় শুধু আমি নই রেগে আছে খেলোয়াড়রাও।’ জিনেদিন জিদান অবশ্য পাত্তাই দিচ্ছেন না কোনো অভিযোগ, ‘রেফারি যদি বাঁশিই না বাজান, এর অর্থ এটা পেনাল্টি ছিল না। অতিরিক্ত সময় ৩, ৪, ৫ বা ৬ মিনিট হতে পারে—এই সিদ্ধান্তও রেফারি নেবেন। আমরা ভালো খেলা উপহার দিয়েছি। কেউ বলতে পারবে না আমরা শুধু রেফারির কল্যাণে জিতেছি।’

১৩ মিনিটে লুকাস ভাসকেসের পাস ছয় গজ বক্সের মুখে পেয়ে অসাধারণ ফ্লিকে রিয়ালকে এগিয়ে নেন করিম বেনজিমা। ২৮ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া টনি ক্রুসের ফ্রি কিক সার্জিনো ডেস্টের পিঠে লেগে দিক বদলে জড়ায় জালে। গোললাইনে বলের লাইনে থাকলেও ঠেকাতে পারেননি ইয়োর্দি আলবা। ৩৫ মিনিটে ভিনিসিয়ুসের পাস পেয়ে ফেদ ভালভের্দের শট পোস্টে বাধা না পেলে ব্যবধান আরো বাড়াতে পারত রিয়াল। বিরতির পর মুষলধারে বৃষ্টির মাঝে ৪-৩-৩ ছকে ফেরা বার্সা গোল পায় ৬০ মিনিটে। মেসির কাছ থেকে বল পেয়ে করা আলবার ক্রস ১০ গজ দূর থেকে জালে জড়ান অস্কার মিনগুয়েসা। ৩০ ম্যাচ শেষে রিয়ালের পয়েন্ট ৬৬ আর বার্সার ৬৫। এক ম্যাচ কম খেলা অ্যাতলেতিকো ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে আছে দুইয়ে। মার্কা